ফ্লাডলাইট

“কী পরিকল্পনা রংপুর রাইডার্স-এর?”- মুখোমুখি ইশতিয়াক সাদেক

ইশতিয়াক সাদেক, রংপুর রাইডার্স এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ২ ফেব্রুয়ারি মিরপুর শেরে-এ-বাংলা স্টেডিয়ামের হসপিটালিটি বক্সের সামনে কথা হয় জনাব ইশতিয়াকের সাথে। ‘নিয়ন আলোয়’র জন্য দিয়েছেন একটি সাক্ষাৎকার। পাঠকদের জন্য সেটির চুম্বক অংশ তুলে ধরলাম।

রংপুর রাইডার্স

প্রশ্নঃ হেলস এবং ভিলিয়ার্সের কোন রিপ্লেসমেন্ট আসছে কিনা?

– না, কেউ আসবেনা। হেলস বা এবি’র মানের কোন রিপ্লেসমেন্ট এতো অল্প সময়ে আনা সম্ভব না আসলে! এদের কনভেন্স করতেই অনেক সময় লাগে। সেই সময় নেই। তাছাড়া কেউ এসেই রেজাল্ট দিবে তার গ্যারান্টি নেই। প্লে অফে মানিয়ে নেয়ার সময় থাকেনা। ভাগ্যে থাকলে যা আছে তাতেই হবে। আজকে দেখেন বোপারা সুযোগ পেয়েই পারফর্ম করলো। স্কোয়াডের উপরেই ভরসা রাখবো আমরা।

রংপুর রাইডার্স

প্রশ্নঃ হেলসের ইনজুরি সিরিয়াস ছিলো?

-তার চেয়ে জরুরী ইসিবি ওকে ফিরে যেতে বলেছে। সামনে ইংল্যান্ডের ওয়ানডে আছে, তারা রিস্ক নিতে চায়নি। বোর্ড ডাকলে ছাড়তেই হয়, এটাই নিয়ম। ওয়ার্নার কিন্তু ইনজেকশন নিয়ে খেলতে পারতো, কিন্তু বোর্ড ফিরে যেতে বলেছিলো। এমনই!

প্রশ্নঃ এবিকে মানানোর চেষ্টা করেছিলেন নিশ্চয়?

-সব রকমের! কোচ, মাশরাফি, আমি নিজে এমনকি দলের অন্য প্লেয়ারদের দিয়েও চেষ্টা করা হয়েছে কিন্তু সে রাজি হয়নি। ওর আসলে ৫ ম্যাচ খেলার কথা ছিলো, অনেক অনুরোধ করার পর ৬ ম্যাচের জন্য রাজি হয়। তবে সে কথা দিয়ে গিয়েছে আমাদের!

প্রশ্নঃ কেমন কথা?

-সামনের সিজনে এবি আমাদের হয়ে ৯-১০ ম্যাচ খেলবে। রংপুরের ম্যানেজমেন্ট নিয়ে সে খুশি। নিশ্চিত করেছে আসার ব্যাপারে।

প্রশ্নঃ একটা বিষয় প্রায় আলোচনা হয়, বিপিএলের ফ্র‍্যাঞ্চাইজীগুলো সাধারণত পাকিস্তানি এবং ক্যারিবিয়ান প্লেয়ারদের বেশি প্রাধান্য দেয় আপনাদের মাঝে ব্যতিক্রম দেখা যায়? গত দুই সিজনে কোন পাকিস্তানি প্লেয়ার নেননি আপনারা। এই ব্যাপারে কি কিছু বলবেন?

কন্ট্রোভার্সি (বিতর্ক) এড়াতে। ফ্র‍্যাঞ্চাইজী লীগ মানেই বিতর্ক। আপনি বাজে ভাবে ম্যাচ হারলে, বা কোন বোলার বড় নো বল, ওয়াইড বল দিলেই ফিক্সিং নিয়ে কথা উঠে। আমাদের দেশে পাকিস্তানি প্লেয়ারদের নিয়ে এমনিতেই বিভিন্ন কথা হয়, মিক্সড ইমপ্রেশন কাজ করে ফ্যানদের ভেতর। পাকিস্তানি প্লেয়ার থাকলে এসব কথা বেশি হয়। এজন্য কন্ট্রোভার্সি এড়াতে আমরা দায়িত্ব নেয়ার পর পাকিস্তানি প্লেয়ারদের বাদেই দল করার চেষ্টা করেছি।
আমি বলবো না পাকিস্তানের প্লেয়াররা খারাপ, অনেক ভালো ভালো প্লেয়ার আছে তাদের। আবার হয়তো পছন্দমত প্লেয়ার না পেলে কম্বিনেশন মেলাতে সামনে নিতেও পারি! কিন্তু সেটা প্রথম পছন্দ না, আমাদের প্রথম চাওয়া ওদের ছাড়াই কিভাবে শক্তিশালী দল করা যায়।

রংপুর রাইডার্স

সৌভাগ্যবশত আমাদের কোচ এবং ক্যাপ্টেন এই বিষয়টা মাথায় রেখেই প্লেয়ার সিলেকশনে তাদের চাওয়া বা পছন্দ জানায় আমাদের।

বিষয়টা সম্পূর্ণ আমাদের ব্যাপার, অন্যরা কিভাবে দল করে বা বিপিএলে পাকিস্তানি প্লেয়ার খেলা নিয়ে আমাদের কোন মতামত নেই।

আর ক্যারিবিয়ানদের কথা বললেন, আমরা কিন্তু ওদের নিয়েছি! জনসন চার্লস, স্যামুয়েল বাদ্রী গতবার ছিলো। এবার ওশান থমাসকে নিয়েছিলাম কিন্তু ও বোর্ডের অনুমতি পায়নি। আরো একজন বোলার (কোট্রেল) আছে এবার। আর গেইলতো আছেই! তবে কম্বিনেশনের কারনে গেইল ছাড়া বাকিদের খেলার সুযোগ কম হয় এই আরকি! (হাসি)

প্রশ্নঃ রংপুর বিপিএলকে কিছু চমক দিয়েছে আপনারা আসার পর। ম্যাককালাম, মালিঙ্গা, হেলস, এবি ডি ভিলিয়ার্সের মতো প্লেয়ারদের প্রথমবার বিপিএলে এনেছেন আপনারা। এই ব্যাপারটা জানতে চাই।

প্রথমে বলবো আমরা খুব সৌভাগ্যবান!

এদের আসা কিন্তু পুরা টুর্নামেন্টের জন্য ভালো দিক। শুধু আমরা না, অন্যরাও করে। ওয়ার্নার, স্মিথের মতো প্লেয়ার এসেছে। ইমরান তাহির, পারনেল এসেছে।

আমাদের কথা বলি, আমরা ফ্যানদের নতুন নতুন চমক দিতে চাই। আর ওরাও হয়তো মনে করে আমাদের ম্যানেজমেন্ট ভালো, ভরসা পায়।

রংপুর রাইডার্স

টম মুডি একজন সম্মানিত বিশ্বমানের পরিচিত এবং সফল কোচ। মাশরাফিকে আন্তর্জাতিক লেভেলে অন্য প্লেয়াররা যথেষ্ট সম্মান করে। এই দুইজন থাকায় আমাদের জন্য কাজটা সহজ হয় ওদের কনভেন্স করা। আমরা এই ব্যাপারে খুব সিরিয়াস, ওরা যাতে অভিযোগ করতে না পারে ফিরে গিয়ে। বাজ (ব্রেন্ডন ম্যাককালাম) এবারো আসতো বিগ ব্যাশ না থাকলে। ওর সাথে স্টিল আমাদের গুড রিলেশন, যোগাযোগ হয়। এই সেদিনই মেইল করলো শুভকামনা জানিয়ে।

আমরা ইনশাআল্লাহ বিপিএলে আরো ভালো ভালো সুপারস্টার আনবো সুযোগ পেলে।

প্রশ্নঃ আপনাদের বোলিং বিভাগ প্রায় পুরোপুরিভাবে লোকাল প্লেয়ারদের উপর নির্ভর করে, যেটা অন্য কোন দলে নেই!

– এদিক থেকেও আমরা লাকি! দেখেন, ম্যাশ, অপু, শফিউল, গাজি এরা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভালো করেছে। শফিউলের বিপিএল রেকর্ড ইমপ্রেসিভ। ফরহাদ রেজা অনেক ভালো সাপোর্ট দিচ্ছে। নাহিদুলকে আমরা সুযোগ পেয়েই আবার নিয়েছি। আমরা ভেবেছিলাম হয়তো পাবোনা (হাসি)

এছাড়া হাতে বোপারা, হাওয়েল, কট্রেল আছে লাগলে নামানো যাবে। তো লোকাল হলেও কোন সমস্যা হচ্ছেনা। শহিদুল, আফ্রিদি এরাও ভালো।

আর কম্বিনেশন, এক সাইড অন্য সাইডকে ব্যাক করে। আমরা ১৯৪ চেজ করে জিতেছি সিলেটে। আবার চট্টগ্রামের উইকেটে ঢাকাকে বোলাররা ১৮০ রানে আটকে দেয়। আজকে কুমিল্লার অবস্থা দেখেন। তো সমস্যা হচ্ছেনা কপাল ভালো!

(ম্যাচ শেষের দিকে, প্রেজেন্টেশন শুরুর আগে নামতে হবে একটু তাড়াতাড়ি শেষ করতে হবে!!)

প্রশ্নঃ রংপুরে হোম ম্যাচ খেলার কথা বলেছিলেন স্টেডিয়াম সংস্কার করে?

– জটিল প্রসেস। চেষ্টা আছে আমাদের। কিন্তু আন্তর্জাতিক মানের ড্রেসিং রুম, আউট ফিল্ড কেমন জানিনা, পিচ বানানো, ফ্লাডলাইট বসানো, না হলে নাইট ম্যাচ কিভাবে হবে! আর অনেক অনেক সংস্কার লাগবে। টাফ, খুব টাফ। তবে প্ল্যান তো একটা আছেই! দেখি কি হয়!

“ঠিক আছে, আপনার তাড়া আছে। ধন্যবাদ ভাই!”

– আপনাকেও ধন্যবাদ, আপনাদের জন্য শুভকামনা।

(তারপর তিনি বললেন আপনিতো “রংপুরের জামাই”, একটা গিফট নিয়ে যান! রংপুরের একটা ফ্যান জার্সি উপহার হিসেবে দিলেন ইশতিয়াক ভাই। দারুন মানুষ, প্রায় ১৫ মিনিট সময় দিয়েছেন খেলা দেখতে দেখতে। আর এটাই নিয়ন আলোয়-এর নেয়া বিপিএল এ প্রথম সাক্ষাৎকার)

আরো পড়ুনঃ এবারের বিপিএল-এর ডার্কহর্স রাজশাহী!

Most Popular

To Top