ফ্লাডলাইট

রবি ফ্রাইলিংকঃ “উপেক্ষিত” একজন হার-না-মানা ক্রিকেটারের গল্প…

রবি ফ্রাইলিংক নিয়ন আলোয় neonaloy

ক্রিকেটে “লেট ডেভেলপার” বলে একটা কথা প্রচলিত আছে। যারা তাদের ক্যারিয়ারের শুরুতে নজর কাড়তে ব্যর্থ হলেও অভিজ্ঞতা এবং পরিশ্রম দিয়ে নিজেকে একসময় টপ ক্লাস ক্রিকেটে মেলে ধরতে পারেন তাদের বলা হয় LATE DEVELOPER।

রবার্ট “রবি” ফ্রাইলিংক তেমনই একজন লেট সাউথ আফ্রিকান ডেভেলপার। যিনি মোটামুটি সবসময় উপেক্ষিত থেকে গিয়েছেন। এই ধরনের ক্রিকেটাররা সাধারণত ন্যাচারাল ট্যালেন্ট নন। আবার ফ্রাইলিংকের উপেক্ষিত থাকার আরেকটা কারণ হতে পারে তার বিশালাকার শারীরিক গঠন। দেখে প্রথমে মনে হবে এই লোক ফিল্ডিং করে কিভাবে!

ল্যান্স ক্লুজনারের ন্যাচারাল রিপ্লেসমেন্ট ভাবা হয়েছিলো যাকে, তার ক্যারিয়ার কখনোই জাতীয় দল পর্যন্ত বিস্তৃত হতে পারেনি পিক টাইমে।

রবি ফ্রাইলিংক নিয়ন আলোয় neonaloy

সাউথ আফ্রিকান প্রদেশ কাওয়াজুলু-নাটালে জন্ম ফ্রাইলিংকের। ক্রিকেট খেলা শুরু করেন স্কুল জীবনেই। কিন্তু জায়গা হয়নি নাটালের স্কুল টিমে। থেমে থাকার মানুষ নন তিনি, স্কুলে থাকতেই এমেচার ক্লাব ক্রিকেটে নাম লেখান। সেখানে ভালো করায় এক সময় সুযোগ আসে নাটালের একাডেমী দলে খেলার। ২০০৪ সালে লিস্ট “এ” অভিষেক হয় রবির।

২০০৫ সালে নাটালের হয়ে তিন দিনের ম্যাচের টুর্নামেন্টে প্রথম শ্রেনীর অভিষেক। অভিষেক ম্যাচে ২০ ওভার বল করে ৯৪ রানে ৬ উইকেট তুলে নেন। একই বছর অভিষেক সাউথ আফ্রিকার প্রধান প্রথম শ্রেণীর টুর্নামেন্ট সানফয়েল সিরিজে।

২০০৬ সালে সাউথ আফ্রিকান ন্যাশনাল একাডেমী দলে ডাক পান এবং বর্ষসেরা একাডেমী প্লেয়ারের নমিনেশন পেয়েছিলেন সেবার।

নাটালের হয়ে সে বছর ১৬ টি প্রথম শ্রেনীর ম্যাচ খেলেন এবং উল্লেখযোগ্য অবদান রাখলেও পরের মৌসুমে চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের তালিকায় জায়গা পাননি।

চুক্তি ছাড়া অনিশ্চিত জীবনের দিকে পা না বাড়িয়ে ২০০৮ সালে কলপ্যাক চুক্তিতে ইংল্যান্ডে পা বাড়ান। তবে তার আগে ২০০৭ সালেই লঙ্ক্যাশায়ার লীগ এবং ইস্ট এংলিয়ান প্রিমিয়ার লীগে ১৮ ম্যাচ খেলে কলপ্যাকের জন্য নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করেন।

রবি ফ্রাইলিংক নিয়ন আলোয় neonaloy

২০০৮ সালের ১০ জুন কাউন্টি টিম সারের দ্বিতীয় একাদশের হয়ে অভিষেক হয় ফ্রাইলিংকের। উস্টারশায়ারের বিপক্ষে ম্যাচে ১৩০ রানে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন। সব মিলিয়ে সেবার দুটি প্রথম শ্রেনীর ম্যাচ খেলেন। তার উপর আস্থা রেখে দ্বিতীয় ডিভিশন ওয়ানডে দলেও খেলানো হয় তাকে, তিন ম্যাচ খেলে ৯২ রান এবং ৭ উইকেট সংগ্রহ করেন।

সারের হেড কোচ এলান বুচার ফ্রাইলিংকের স্লোয়ার, ইয়র্কার এবং বাউন্সার দেয়ার ক্ষমতাকে পছন্দ করায় সুযোগ পেয়ে যান সারের প্রথম একাদশ অর্থাৎ মূল দলে। ইংল্যান্ডের প্রো-৪০ (৪০ ওভারের ওয়ানডে টুর্নামেন্ট) লীগে সারের হয়ে অভিষেক ম্যাচে ৫২ রানে ৩ উইকেট শিকার করেন ফ্রাইলিংক।

তবে উপেক্ষা যেন তার জীবনসঙ্গী! সারের হয়ে আর কোন প্রথম একাদশের ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি তিনি। তবে দ্বিতীয় একাদশের হয়ে আরো কিছু ম্যাচ খেলার সুযোগ পান।

২০০৮-‘০৯ মৌসুমে আবার ফিরে আসেন সাউথ আফ্রিকায়। কোন চুক্তি ছাড়াই লায়ন্সের হয়ে দুটি প্রো-২০ ম্যাচ খেলেন। তবে আবারো এমেচার লীগে দূর্দান্ত পারফর্ম করে ডলফিনসের হয়ে ২০০৯-‘১০ প্রো-২০ টুর্নামেন্টে অংশ নিয়ে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হয়ে যান। ক্যারিয়ারে প্রথমবার এতো বড় অর্জন করার পর আর পেছনে তাকাতে হয়নি ফ্রাইলিংকে। দাপটের সাথে খেলে বেড়িয়েছেন সাউথ আফ্রিকার ঘরোয়া ক্রিকেটে।

রবি ফ্রাইলিংক নিয়ন আলোয় neonaloy

২০০৪ সালে প্রফেশনাল ক্রিকেটে নাম লেখানোর সাত বছর পর ২০১১ সালে এসে কাওয়াজালু-নাটালের সাথে চুক্তিবদ্ধ হন রবি ফ্রাইলিংক। সেবছরই ৮ ম্যাচে ১৪ উইকেট নিয়েছিলেন ১৬.২১ গড়ে। এই পারফর্মেন্স জায়গা করে দেয় আইপিএল দল দিল্লী ডেয়ারডেভিলসের স্কোয়াডে। কিন্তু হায়! এক ম্যাচেও সুযোগ হয়নি তার!

২০০৯-‘১০ সালের ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকান প্রো-২০ প্লেয়ার অব দ্যা ইয়ার হয়েছিলেন। বলের পাশাপাশি ব্যাট হাতেও বেশ সুনাম রয়েছে ফ্রাইলিংকের। ২০০৮ সালে লায়ন্সের হয়ে যে মাত্র দুটি ম্যাচ খেলেছিলেন তার একটি ছিলো ফার্স্ট লেগ সেমিফাইনাল (বর্তমানের কোয়ালিফায়ার), সেই ম্যাচে লাস্ট বলে বিশাল এক ছক্কা মেরে টাইটান্সের বিপক্ষে জয় ছিনিয়ে আনেন রবি।

ঘরোয়া ক্রিকেটে নিয়মিত পারফর্ম করলেও জাতীয় দলে সুযোগ হয়নি ২০১৭ সালের বাংলাদেশ সিরিজের আগে পর্যন্ত। সাউথ আফ্রিকা কখনো ক্যালিস, কখনো মরিস, কখনো ভারনন ফিলান্ডারের ভেতর তাদের পেস বোলিং অলরাউন্ডার খুঁজে নেয়ায় সুযোগ হয়নি রবির। অবশেষে বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টুয়েন্টি সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক অভিষেক হয় ৩৪ বছর বয়সে।

জাতীয় দলে এই বয়সে ডাক পাওয়ার ঘটনাকে “SHOCKING” বলেছিলেন রবি ফ্রাইলিংক। এটাকে সারাজীবন পরিশ্রম করে যাওয়ার সম্মান বলেছিলেন।

২৬ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে প্রথম প্রোটিয়া জার্সি পরে মাঠে নামেন এই অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার, তার প্রথম আন্তর্জাতিক উইকেট বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

এখন পর্যন্ত ৩ টি-টুয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়েছেন, তবে ওভারপ্রতি রান দিয়েছেন মাত্র ৬.২০ করে!

বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ খেলার কিছুদিন পরেই ডিসেম্বর মাসে সাউথ আফ্রিকার ঘরোয়া টি-টুয়েন্টি ইতিহাসের তৃতীয় হ্যাটট্রিক তুলে নেন র‍্যামস্ল্যাম টি-টুয়েন্টি চ্যালেঞ্জে।

২০১৭ সালে T20 GLOBAL LEAGUE এর দল প্রিটোরিয়া ম্যাভেরিকসের হয়ে মাঠে নামার কথা থাকলেও বাতিল হয় টুর্নামেন্ট, তবে ২০১৮ সালে খেলেন তাশওয়ানে স্পারটান্সের হয়ে। এছাড়া গত বছর সিপিএলে খেলেছেন ত্রিনিবাগো নাইট রাইডার্সের হয়ে।

২০১৮-২০১৯ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে চিটাগাং ভাইকিংস তাদের দলের ভেড়ায় এই অভিজ্ঞ অল রাউন্ডারকে। প্রথম ম্যাচে ৪ উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছিলেন। আজ নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ২৬ রানে ৩ উইকেট নেয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতে ২৪ বলে ৪৪* রান করে প্রায় জিতিয়েই দিয়েছিলেন ম্যাচ!

রবি ফ্রাইলিংক নিয়ন আলোয় neonaloy

বাংলাদেশের স্লো-লো উইকেটের সাথে দারুন মানিয়ে গিয়েছে ফ্রাইলিংকের নিখুঁত মিডিয়াম পেস। অভিজ্ঞতা দিয়ে বল করছেন চমৎকারভাবে।

সাউথ আফ্রিকার হয়ে খুব স্বাভাবিক ফ্রাইলিংকের কোন সেন্ট্রাল চুক্তি নেই, যেটা সারাজীবন তার সাথে হয়ে আসছে! তবে আফ্রিকান কোচ অটিস গিবসন জানিয়েছেন ২০২০ টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের ভাবনায় খুব ভালোভাবে রয়েছেন এই অভিজ্ঞ, কিন্ত সারাজীবন উপেক্ষিত বর্ষীয়ান অলরাউন্ডার!

রেকর্ড কর্নারঃ সাউথ আফ্রিকার প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট ইতিহাসের ম্যাচ সেরা বোলিং রেকর্ড রবি ফ্রাইলিংকের। ২০১৬ সালে নাটালের হয়ে এক ম্যাচে দুই ইনিংস মিলিয়ে ৬২ রানে ১৪ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন ফ্রাইলিংক।

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top