নাগরিক কথা

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, দেশরত্ন শেখ হাসিনার কাছে খোলা চিঠি

খোলা চিঠি নিয়ন আলোয় neon aloy

প্রিয় দেশরত্ন,
আশা করি পরম করুণাময়ের দয়ায় আপনি শারীরিক আর মানসিকভাবে সুস্থ আছেন। মহান আল্লাহ্‌র কাছে আপনার সুস্থতার জন্য সবসময় দোয়া করি। এই অসুস্থ দেশটাকে ভালো রাখার জন্য আপনার সুস্থ থাকাটা খুব জরুরি। আপনি দেশ পরিচালনায় খুব ব্যস্ত থাকেন তাই সংক্ষেপে আপনাকে কিছু কথা বলতে চাই এই খোলা চিঠির মাধ্যমে। আমি জানি না এই লেখা আপনার চোখে পড়বে কিনা, তারপরেও আমি আশা করি এই লেখাটা আমাদের একটু হলেও নতুন করে চিন্তা করতে বাধ্য করবে।

সম্প্রতি আপনি দেশজুড়ে মাদকবিরোধী অভিযান শুরু করেছেন। আপনি নিজে যেহেতু এই অভিযানে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন, আমি আশা করি অচিরেই এই দেশে মাদক আমদানি ও উৎপাদন সহনশীল মাত্রায় চলে আসবে আর মাদক আমদানি আর উৎপাদনের সাথে জড়িত সবাই নিশ্চিহ্ন হয়ে দেশে একটা শান্তিপূর্ণ অবস্থান সৃষ্টি হবে। এই দেশের একজন সচেতন নাগরিক হিসাবে আমি আপনার এই কাজের সাথে আমার পূর্ণ সমর্থন জ্ঞাপন করছি। আর আশা করি খুব দ্রুতই আমারা ওই অভিযানের ফল দেখতে পাবো।

আপনার এই কাজে আমার খুব খুশি হওয়ার কথা এবং আমি খুশি ছিলামও। কিন্তু, আজকে আমি খুব কষ্ট বুকে নিয়ে এই লেখাটা লিখতে বসেছি! আপনার এই মাদক বিরোধী অভিযানে অসংখ্য মাদক ব্যবসায়ীকে আইনের আওতায় আসতে দেখে আমি যেমন খুশি হয়েছি তাঁর চেয়ে বেশি কষ্ট পেয়েছি আপনার এই অভিযানে নিহত হওয়া তথাকথিত এক মাদক ব্যবসায়ীর নির্মম হত্যাকান্ডে! বিশ্বাস করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আমি এখনও চোখ বন্ধ করলে মাদক বিরোধী অভিযানে নিহত কক্সবাজারের টেকনাফ পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর একরামূল হকের মৃত্যুর পূর্বমুহুর্তে বলা, “না, আমি জড়িত নই” এই কথাটা কানে ভাসে! আমি এখনো কান পাতলে তাঁর অসহায় মেয়ে দুইটার চিৎকার শুনতে পাই। তারা চিৎকার করে বলছে, ”আমাদের বাবা কোন অপরাধ করেনি। আমাদের বাবাকে আমাদের কাছে ফিরিয়ে দিন!” মৃত্যর পূর্বমুহুর্তে তাঁর মনে নিশ্চয় তাঁর অসহায় মেয়ে দুইটাকে ঘরে ফিরে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি রাখতে না পারার অসহায়ত্ব ভেসে উঠেছিল!

আপনিও আপনার বাবা; বাঙালি জাতির জনক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ আপনার পরিবারের প্রায় সবাইকে হারিয়েছেন। আপনজন হারানোর কষ্ট আপনার চেয়ে বেশি এই দেশে আর কারো বুঝার কথা না। আপনি নিশ্চয় এখন নিহত একরামুল হকের পরিবারের আর্তনাদ টের পাচ্ছেন! আপনার কাছে তাই বিনীত অনুরোধ, হয় এইটা নিশ্চিত করুন যে মাদক বিরোধী অভিযানে কোন নিরাপরাধ মানুষ মারা পড়বে না অথবা বিনা বিচারে এই হত্যাকাণ্ড বন্ধ হবে, সকল অপরাধী তার প্রাপ্য বিচারটুকু পাবে; আত্মপক্ষ সমর্থন করার সুযোগটুকু পাবে। দেশদ্রোহী রাজাকার আলবদররা যদি আত্মপক্ষ সমর্থন করার সুযোগ পেয়ে থাকে তাহলে এই মাদক ব্যবসায়ীরা কি দোষ করেছে? ওরাও তো এই দেশের মানুষ, ওদেরও সঠিক বিচার পাওয়ার অধিকার রয়েছে। ওরাতো একদিনেই এই পাপ কাজে লিপ্ত হয়নি। ওদেরকে যারা এই পাপ কাজে নিযুক্ত করেছে তাদের কেউ কি ক্রসফায়ারে নিহত হয়েছে? হয়নি, আর হবেও বলে মনে হয় না। গাছের শিকড় না কেটে তার পাতা আর কান্ড কেটে কোন লাভ আছে বলে মনে হয় না। সেই গাছ আবারো বিকশিত হবে আগের চেয়ে বেশি পাতা আর কান্ড নিয়ে!

অতএব, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, উপরের কথাগুলা বিবেচনায় নিয়ে নিহত একরামুল হকের এই হত্যাকাণ্ডের বিচার বিভাগীয় তদন্তের ব্যবস্থা করুন আর প্রত্যেক অপরাধীকে আত্মপক্ষ সমর্থন করার সুযোগ করে দিন।

বিনীত নিবেদক,
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের একজন সাধারণ মানুষ
মোহাম্মদ মোজাম্মেল হোসেন ভূঁইয়া
bablu2k011@gmail.com

আরো পড়ুনঃ একরামুল হক, আপনার মৃত্যুর জন্যে আমরাই দায়ী

[এডিটরস নোটঃ নাগরিক কথা সেকশনে প্রকাশিত এই লেখাটিতে লেখক তার নিজস্ব অভিজ্ঞতার আলোকে তার অভিমত প্রকাশ করেছেন। নিয়ন আলোয় শুধুমাত্র লেখকের মতপ্রকাশের একটি উন্মুক্ত প্ল্যাটফরমের ভূমিকা পালন করেছে। কোন প্রতিষ্ঠান কিংবা ব্যক্তির সম্মানহানি এই লেখার উদ্দেশ্য নয়। আপনার আশেপাশে ঘটে চলা কোন অসঙ্গতির কথা তুলে ধরতে চান সবার কাছে? আমাদের ইমেইল করুন neonaloymag@gmail.com অ্যাড্রেসে।]

Most Popular

To Top