বিশেষ

চকবাজারের ঐতিহ্যবাহী ইফতারি বাজারের দামদর, এবং কিছু কটূ কথা

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

রসনাবিলাসে উপমহাদেশের মানুষদের মত বিলাসী লোকজন খুঁজে পাওয়া আসলেই দুষ্কর। আর এর পরিচয় মিলে আমাদের লোকালয়ে প্রচলিত প্রবাদেই- “ধার করে হলেও ঘি খাও”! আর এই ভোজনরসিক জনপদেও কিছু কিছু অঞ্চলের মানুষের খাবার-দাবারের প্রতি আবেগ ছাড়িয়ে যায় অন্য সবাইকে। আর এরকম একটি জনপদ পুরান ঢাকা।

সেই মধ্যযুগ থেকেই পুরান ঢাকা ছিল এ অঞ্চলের ব্যবসা এবং রাজনৈতিক কেন্দ্র। মোঘলদের হাত ধরে যে রন্ধনরীতি এ অঞ্চলে প্রবেশ করেছে, সময়ের সাথে সাথে তা আরো সমৃদ্ধ হয়েছে এ অঞ্চলের রন্ধনশিল্পীদের সৃজনশীলতার ছোঁয়ায়। আর তারই ছাপ পাওয়া যায় এখনো এখানকার মানুষদের ভোজনবিলাসীতায়। সেই সাথে খাঁটি পুরান ঢাকাইয়াদের অতিথিপরায়ণ মনোভাব এবং এখানকার খাবারের অনন্য স্বাদ টেনে এনেছে সারাদেশের ভোজনরসিকদের।

আর তারই ধারাবাহিকতায় সারা বছরই ভীড় লেগে থাকে পুরান ঢাকার অলি-গলিতে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা অজস্র খাবারের দোকানে। আর পবিত্র রমজান মাসে তো প্রতিবছরই বসে চকবাজারের ঐতিহ্যবাহী ইফতারি বাজার। আর সে ইফতারি বাজারে হুমড়ি খেয়ে পড়ে সারা শহরের ভোজনবিলাসী মানুষেরা। সারাদিন রোজা রেখে পরিবারকে সাথে নিয়ে ভালমন্দ কিছু ইফতারি করতে কে না চায়?

আর সেজন্যই এবার ঘুরে এসেছিলাম চকবাজারের ঐতিহ্যবাহী ইফতারি বাজারে, জেনে এসেছি সেখানকার সবচেয়ে আকাংক্ষিত খাবারগুলোর দামদর। আর সেগুলোই তুলে ধরছি আজ আপনাদের সামনে।

সাশলিকঃ ৫০-৬০টাকা/পিস

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

 

শাহী পরটাঃ খাসী ৬০ টাকা, বীফ/চিকেন ৫০ টাকা প্রতি পিস

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

সুতী কাবাবঃ ৩০০টাকা/০.৫ কেজি

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

কোয়েল পাখির রোস্টঃ ৬০টাকা/পিস

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

দেশী মুরগীর রোস্টঃ ৩৫০টাকা/পিস

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

পাকিস্তানী মুরগীর রোস্টঃ ২০০টাকা/পিস

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

পেস্তা বাদামের শরবতঃ ২০০টাকা/লিটার

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

সাগুদানার ফিরনিঃ ১০০টাকা

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

দই বড়াঃ ২০০টাকা/কেজি

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

“বড় বাপের পোলায় খায়”: ৫০০টাকা/কেজি

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

খাসীর লেগরোস্টঃ ৪৫০-৬০০টাকা/পিস

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

হাসলি মুরগীর লেগঃ ৪২০টাকা/পিস

চকবাজারের ইফতারি ইফতার নিয়ন আলোয় neonaloy

তবে আমাদের ফিচারের ছবিগুলো দেখেই লোভে পড়ে যদি চকবাজার দৌড় দেন এবং নির্বিচারে এটা-ওটা কিনে বাসায় ফেরত আসেন, তাহলে সম্ভবত সেটা খুব একটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে না। এমনকি আপনি আমাদের গালমন্দও করতে পারেন। কেননা অন্যান্য অনেক জিনিসের মত চকবাজারের ঐতিহ্যবাহী ইফতারি’র বাজারেও ঢুকে গেছে ভেজাল খাবার এবং অসাধু ব্যবসায়ীরা।

ইতোমধ্যেই চকবাজারের ইফতারি বাজার থেকে কেনাকাটা করে বেশ ক’জন ঠকেছেন বলে জানা যাচ্ছে। ফেসবুকের বিভিন্ন ফুড রিভিউ গ্রুপেও পাওয়া যাচ্ছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। ফেসবুক ইউজার লুতফর রহমান শুভ জানাচ্ছেন,

“শুধু দেখতেই সুন্দর কিন্তু কোন স্বাদ নাই। অযথা টাকা নষ্ট ছাড়া আর কিছুই নাহ।”

তাজুল ইসলাম নামের আরেকজনের মন্তব্য-

“আসলে এক সময় অনেক ভাল ছিল। কিন্তু এখন আমাদের অতিরিক্ত লোভের জন্য এটার কোয়ালিটি নষ্ট হয়ে গিয়েছে”

আর কামরুজ্জামান সুমন তো ঘোর বিরোধী চকবাজারের ইফতারি আইটেমের-

“পৃথিবীর সবচেয়ে জঘণ্য ইফতার আইটেম। একবার খাইলে দ্বিতীয়বার কেউ আর ঐ চকবাজারের মত নোংরা এলাকায় যাবেন না এটা শিওর।”

তাই দিনশেষে বলাই যায়, চকবাজারের ইফতারি বাজারের আইটেমগুলো এখন অনেকটা “দিল্লীর লাড্ডূ” হয়ে দাঁড়িয়েছে ভোজনরসিকদের জন্য। এগুলোর লোভনীয় ঘ্রাণ এবং চেহারা যেমন আপনাকে আকৃষ্ট করবে, তেমনি খাওয়ার পরে হয়তো আপনার পেটের পীড়ার কারণও হয়ে দাঁড়াতে পারে অনায়াসে! এখন সিদ্ধান্ত আপনার- আপনি কি চকবাজারের ঐতিহ্যবাহী ইফতারি খেয়ে পস্তাবেন, নাকি না খেয়ে আফসোস করবেন?

Most Popular

To Top