ফ্লাডলাইট

মাঠে নামছে ব্রাজিল- আর্জেন্টিনা!

মাঠে নামছে ব্রাজিল- আর্জেন্টিনা! Neonaloy

ফুটবলপ্রেমীদের জন্য ইন্টারন্যাশনাল ব্রেক মানেই অন্যকিছু। তারমধ্যে সেটা যদি ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, স্পেন, জার্মানির মতো বড় দলের মধ্যকার ম্যাচ হয় তাহলে সেই আনন্দের মাত্রা হয় আকাশচুম্বী।

আজ রাতেই ফ্রেন্ডলি ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে ব্রাজিল-জার্মানি ও আর্জেন্টিনা-স্পেন। বিশ্বকাপের আগে নিজ নিজ দলের শক্তি ও দুর্বলতা দেখার সুবর্ণ সুযোগ।

প্রথমেই বলি ব্রাজিল এবং জার্মানির কথা। ব্রাজিল ফ্যানদের জন্য চির আক্ষেপের নাম “মারাকানাজো” ট্র‍্যাজেডি। ১৯৫০ সালে ব্রাজিলের মারাকানায় ব্রাজিল উরুগুয়ের কাছে হেরে হারিয়েছিলো বিশ্বসেরার মুকুট। যে আক্ষেপ থেকে সেই ট্র‍্যাজেডির নাম হয় “মারাকানাজো”।

কিন্তু গত বিশ্বকাপে এই ট্র‍্যাজেডির থেকেও বড় ট্র‍্যাজেডি রচিত হয় ব্রাজিলের মিনেইরোতে যা পরিচিত “মিনেইরাজো” নামে। নিজের ঘরের মাঠে ব্রাজিল সেমিফাইনালে হারে জার্মানির কাছে ৭-১ গোলে! জার্মানির সাথে ব্রাজিলের সর্বশেষ ইন্টারন্যাশনাল ম্যাচ সেটাই। সেমিফাইনালের এই অতিমানবীয় পারফরমেন্স জার্মানিকে ২০১৪ সালের বিশ্বসেরা হতে সাহায্য করেছিল অবশ্যই। আজ রাতে আবার মুখোমুখি এই দুই ফুটবল জায়ান্ট।

মাঠে নামছে ব্রাজিল- আর্জেন্টিনা! Neonaloy

২০১৪ সালের সেই ম্যাচ! সারা জীবন ভুলবে না দুই দল

জার্মানি ও ব্রাজিল গত ৪ বছরে অনেক পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে গিয়েছে। জার্মান দলটি বেশ তারুণ্যনির্ভর। এই তারুণ্যনির্ভর দল নিয়ে জার্মান কোচ জ্যোয়াকিম লো ২০১৭ সালে জিতেছেন কনফেডারেশন কাপ। স্টিগান, কিমিচ, ড্রাক্সলার, ওয়ের্নার মতো তরুণদের সাথে আছে ক্রুস, ওজিল, হামেল্টস এর মতো তারকারা। অন্যদিকে ব্রাজিলিয়ান কোচ তিতে ব্রাজিলকে সাম্বার ছন্দে করে তুলেছেন প্রায় অপরাজিত। তারুণ্য এবং অভিজ্ঞতায় ব্যালান্সড একটা দল। হেসুস, কৌতিনহো, মারকুইনহোস, এ্যালিসনদের সাথে আছে অভিজ্ঞ মিরান্ডা, আলভেজ, থিয়াগো সিলভা এবং মার্সেলোরা। ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার ইনজুরির কারণে দলের বাইরে থাকার পরেও দলে ভারসাম্যে ঘাটতি দেখা যায়নি।

মুখোমুখি ২২ ম্যাচের লড়াইয়ে ১২টি জিতেছে ব্রাজিল এবং ৫ টি জিতেছে জার্মানি বাকি ৫ টি ম্যাচ হয়েছে ড্র। আজকে  রাতে পরিসংখ্যান সব মিথ্যে হয়ে যাবে এই দুই দলের খেলায়। ব্রাজিল কি ৪ বছর আগের প্রতিশোধ নিবে নাকি জার্মানি মেতে উঠবে আবার কোন ধ্বংসযজ্ঞে।
ব্রাজিল এবং জার্মানি মুখোমুখি হবে রাত ১২ঃ৪৫ মিনিটে

ব্রাজিল-জার্মানি ম্যাচের পরে রাতের অন্যতম আকর্ষন হলো স্পেন-আর্জেটিনা ম্যাচটি। ফুটবল পাগল মানুষরা রোমান্টিসিজমে আক্রান্ত হয় তিকিতাকার মোলায়েম ছন্দে নেচে উঠা স্পেন অথবা ম্যারাডোনার একক নৈপুণ্যে জেতানো আর্জেন্টিনার নাম শুনলেই। দিনবদলের পালাতে স্পেন অনেক চড়াই-উতরাই পেরিয়েছে ২০১২ এর ইউরোর পর থেকে। গত ৬ বছরে কোন বৈশ্বিক আসরেই সেভাবে মেলে ধরতে পারেনি নিজেদের। কিন্তু ২০১৮ বিশ্বকাপ কোয়ালিফায়ারে দেখা যায় অপরাজিত স্পেইনকে।

ইতালিকে পিছনে ফেলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে কোয়ালিফাই করে স্পেন। গত ম্যাচে জার্মানির সাথে দুর্দান্ত খেলে বুঝিয়ে দিয়েছে কেন স্পেইন শিরোপার অন্যতম দাবিদার। তারুণ্য এবং অভিজ্ঞতার মিশেলে অসাধারণ মিডফিল্ডে ইস্কো, এ্যাসেন্সিও, ইনিয়েস্তা, বুস্কেটস এর সাথে বর্তমানে অন্যতম সেরা ডিফেন্ডার রামোস এবং পিকেরা আছে।

অন্যদিকে আর্জেন্টিনাও গত ম্যাচে ইতালিকে উড়িয়ে দিয়েছে তাদের দুর্দান্ত খেলায়। বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা মেসি ছিল না মাঠে তা আর্জেন্টিনার খেলায় বুঝা যায়নি। আজও হয়তোবা ইনজুরির শংকায় থাকা ডি মারিয়াকে মাঠে দেখা যাবে না, কিন্তু মেসির খেলার সম্ভবনা আছে। মেসি গত ৪ টি ফাইনালে দলকে ফাইনালে উঠালেও শেষ পর্যন্ত শিরোপার স্বাদ পাননি। দলের সমন্বয়ের অভাবে বার বার হচ্ছেন শিরোপা বঞ্চিত। হিগুয়েন, আগুয়েরো, মেসির সাথে এইবার লো সেলসো এবং লানজিনির মতো তরুণেরা আছে দলে।

মাঠে নামছে ব্রাজিল- আর্জেন্টিনা! Neonaloy

মেসি! কোটি কোটি চোখ তাকিয়ে থাকবে তার দিকে

 

স্পেন এবং আর্জেন্টিনা মুখোমুখি হয়েছে ১৩ টি ম্যাচে। সর্বশেষ দল দুইটি মুখোমুখি হয়েছিলো ২০১০ সালে। স্পেন ৪-১ গোলে পরাজিত হয়েছিল আর্জেন্টিনার কাছে। স্পেন ৫ টি এবং আর্জেন্টিনা ৬ টি ম্যাচে জয়ী হয়েছে। অপর ২ টি ম্যাচ ড্র। আর্জেন্টিনা এবং স্পেন মুখোমুখি হবে রাত ১ঃ৩০ মিনিটে

ইউরোপ আর লাতিন আমেরিকার এই সৌন্দর্যময় খেলায় কার পক্ষে বাজি ধরবেন আপনি?
নামে ইন্টারন্যাশনাল ফ্রেন্ডলি হলেও উত্তাপ এতটুকু কম হবে না। একদিকে ব্রাজিল-জার্মানি অন্যদিকে
স্পেন-আর্জেনটিনা। আমি বাজি ধরবো ফুটবলের পক্ষে। তাতে সবদিকে জয় আমারই হবে!

আরো পড়ুনঃ রোনালদোর প্রেমিকারা 

Most Popular

To Top