শিল্প ও সংস্কৃতি

ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন হলিউড!

ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন হলিউড! Neon Aloy

একজন হলিউড মুভির ফ্যান হিসাবে আপনার ফ্যান্টাসি কি হতে পারে? কোন  কোন অভিনেতাদের একসাথে এক মুভিতে দেখতে চান? সেই মুভির পরিচালক হিসাবে কাকে দেখতে চান? একটু কল্পনা করুন তো।

আচ্ছা, একটু সহজ করে দেই। কেমন হয় যদি ‘ইনগ্লোরিয়াস বাস্টার্ড’র লেফটেন্যান্ট এডো রাইনে কিংবা ‘ট্রয়’র আর্চিলিসখ্যাত ব্রাড পিট, ‘টাইটানিক’র লাভার বয় জ্যাক ওরফে লিওনেল ডিকাপ্রিও এবং ‘মিশন ইম্পসিবল’ সিরিজের এজেন্ট ইথেন হান্টখ্যাত টম ক্রুজকে একসাথে দেখা যায়? সেই সাথে ‘সুইসাইড স্কোয়াড’র হার্লে কুইনখ্যাত মার্গোট রুবি?

এতো গেল অভিনেতা-অভিনেত্রীদের কথা। কোন পরিচালককে দিয়ে পরিচালনা করাতে চান এই মুভি? কেমন হয় যদি ‘দ্যা হেইটফুল এইট’, ‘ট্রু রোমান্স’, ‘ইনগ্লোরিয়াস বাস্টার্ড’ কিংবা ‘কিল বিল’র মতো মুভি পরিচালনা করেছেন যে পরিচালক, দুইটি একাডেমি এ্যাওয়ার্ড(অস্কার) ইতিমধ্যে যার ঝুলিতে তিনি পরিচালনা করেন এ মুভিটি?

খুব বেশিদিন বাকি নেই এই ফ্যান্টাসি সত্যি হতে। হ্যাঁ, বলছিলাম সনি পিকচার্সের অর্থায়নে কুইন্টিন টারানটিনোর পরিচালনায় সত্য ঘটনা অবলম্বনে তৈরি হতে যাওয়া মুভি ‘ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন হলিউড’র কথা। এ মুভিতে মুখ্য চরিত্রে আছেন ব্রাড পিট, লিওনেল ডিকাপ্রিও, মার্গোট রুবি এবং জো বেল প্রমুখ অভিনেতা-নেত্রী। হাল যুগের আরেকজন বিখ্যাত অভিনেতা টম ক্রুজেরও এ মুভিতে একটি মুখ্য চরিত্র পাওয়ার কথা শোনা যায়। কিন্তু সে চরিত্রটি ব্রাড পিট কিংবা  ডিকাপ্রিও কতৃর্ক পূরণ হয়ে গিয়েছে কিনা, নাকি অন্য কোন একটি চরিত্র সে ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। আশা করা যায়, কিছুদিনের মধ্যেই, মূল শুটিং শুরু হওয়ার আগেই সে বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন আমেরিকা! neonaloy

 

 

গল্পটা ষাটের দশকের শেষের দিকের। হলিউড তখনও এখনকার হলিউড হয়ে উঠতে পারে নি, সবেমাত্র আলো ছড়াতে শুরু করেছে। নবীন অভিনেতা রিক ডাল্টন এবং তাঁর বন্ধু ক্লিফ বুথও বুকভরা স্বপ্ন নিয়ে অজানা হলিউডে ঠাই খুঁজে বেড়াচ্ছেন। তাঁদেরই প্রতিবেশি ছিলেন সে সময়ের গ্লামার, আমেরিকান অভিনেত্রী শ্যারন টাটে। এই শ্যারন টাটেই ১৯৬৯র সামারের শেষ দিকে নির্মমভাবে খুন হলেন ম্যানসন পরিবার কতৃ্র্ক, যা ‘ম্যানসন পরিবার কেলেঙ্কারি’ নামে পরিচিত।
‘টাটে হত্যাকাণ্ড’ শুধু একটি হত্যাকে কেন্দ্র করেছিল না, এটি ছিল ৫টি খুনের সমগ্র। লস এঞ্জেলসের ১০০৫০ সিলো ড্রাইভে ১৯৬৯ সালের আগস্ট মাসের ৮-৯ তারিখে নব দম্পতি পরিচালক রোমান পোলাস্কি এবং অভিনেত্রী শ্যারেন টাটের সদ্য কেনা বাসায় এ নির্মম হত্যাকাণ্ড ঘটেছিল। ঘটনার রাতে পোলাস্কি মুভি পরিচালনার কাজে ইউরোপে ছিলেন।

ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন আমেরিকা! neonaloy

শ্যারেন টাটে এবং রোমান পোলাস্কি

 

এই হত্যাকাণ্ডের প্রধান খুনি ছিলেন ট্যেক্স ওয়াটসন। তাঁর সাথে আরও ছিল সুজান অ্যাটকিন্স, লিন্ডা কাসাবিয়ান, প্যাটরিকা ক্যারেনউইনসন। মূলত চার্লস ম্যানসনের প্ররোচনায় এবং অর্থায়নে এই হত্যাকাণ্ডে লিপ্ত হয় তারা।

ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন আমেরিকা! neonaloy

খুনি পাঁচজন

 

চার্লস ম্যানসন ছিলেন একজন উদীয়মান সঙ্গীতশিল্পী। সঙ্গীত পরিচালক টেরি মেলচারের সাথে চার্লসের একটি এ্যালবাম বের হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু টেরি মেলচার কোন এক কারণে চার্লস ম্যানসনকে বাজেভাবে তিরস্কার করেন। অপমানবোধ থেকেই চার্লস প্রতিশোধ নেয়ার জন্য সিদ্ধান্ত নেয়। সেখান থেকেই এই খুনের পরিকল্পনা।

হ্যাঁ, প্রশ্ন আসতেই পারে, টেরি মেলচারের উপর প্রতিশোধ নিতে গিয়ে শ্যারন টাটেকে খুন করা কেন? বলা যায় শ্যারন টাটে আসলে বলীর পাঁঠা হয়েছিলো সেদিন। চার্লস ম্যানসন খুনিদেরকে যে ঠিকানা দিয়েছিলেন, সেটি টেরি মেলচারের বসতবাড়িরই ছিল কিন্তু এ ঘটনার কয়েকদিন আগে সে বাসাটি টেরির কাছ থেকে কিনে নেয় রোমান পোলাস্কি এবং শ্যারেন টাটের দম্পতি।
সেদিন বাসায় শ্যারেন টাটের সাথে আরও ছিলেন ডিজাইনার জেই সেবরিঙ, চিত্রনাট্য লেখক ওহজেকি ফ্রিকোয়োস্কি এবং তাঁর প্রেমিকা আবিগেল ফোলজার। তাদেরকেও সেদিন টাটের সাথে বলীর পাঁঠা হতে হয়।

ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন আমেরিকা! neonaloy

খুন হওয়া পাঁচ জন

 

মূলত, চার্লসের নির্দেশনা ছিল, বাসায় যাকে পাওয়া যাবে, তাকেই যেন খুন করা হয়। খুনিরা বাসায় ঢুঁকে প্রথমেই টেলিফোন সংযোগ কেটে দেয়। প্রথমেই তাঁদের সামনে পড়ে ১৮ বছর বয়সী স্টিভেন প্যারেন্টে, যে কিনা প্রোপার্টির কেয়ারটেকার ইউলিয়াম গ্যারেটসনকে দেখতে এসেছিলো। স্টিভেন ট্যেক্সের কাছে বারবার মিনতি করতে থাকে, কাউকে কিছু বলবে না। ট্যেক্স প্রথমে স্টিভেনকে ছুরি মারার চেষ্টা করে কিন্তু স্টিভেন সরে গেলে সে প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। তখন ট্যেক্স তাঁর ২২-ক্যালিবার পিস্তল দিয়ে স্টিভেনকে গুলি করে চারবার। তারপর কাসাবিয়ানকে পাহারায় রেখে জানালা কেটে ভিতরে প্রবেশ করে ট্যেক্স। ভিতরে ঢুঁকে দরজা খুলে  ঢুকতে দেন অ্যাটকিন্স এবং প্যাটরিকাকে। অ্যাটকিন্সের সাথে ট্যেক্স কথা বলার সময় ড্রয়িং রুমে ঘুম থেকে জেগে উঠেন ফ্রিকোয়োস্কি। ফ্রিকোয়োস্কিকে লাথি মেরে মেঝেতে ফেলে দেন ট্যেক্স। এরপর প্যাটরিকার সাহায্যে টাটে এবং সেবরিঙকে দড়ি দিয়ে বেঁধে ফেলেন। গর্ভবতী টাটেকে এভাবে কষ্ট দেয়াতে বাঁধা দেয়ার চেষ্টা করে সেবরিঙ। তখন সেবরিঙকে গুলি করে ট্যেক্স। ফ্রিকোয়োস্কি পালানোর চেষ্টা করলে তাঁকে পিস্তল দিয়ে আঘাত করে ট্যেক্স। তখন পিস্তলটি ভেঙ্গে যায়। তারপর ছুরিঘাত করা শুরু করে ট্যেক্স। ফ্রিকোয়োস্কি এবং ফোলজারকে সেদিন যথাক্রমে ৫১ এবং ৭ বার ছুরিঘাত করা হয়।

নয় মাসের গর্ভবতী টাটে সেদিন তাঁর অনাগত বাচ্চার জন্য কিরকম আকুতি-মিনতি করেছিল তা সহজেই অনুমেয়। ট্যেক্স তাঁর জবানীতে বলেছিল, টাটে তখন ‘মা, মা…’ বলে ডাকছিল। ট্যেক্স ষোল বার ছুরিঘাত করে সেদিন মৃত্যু নিশ্চিত করেছিল টাটের। টাটের অনাগত সন্তান পৃথিবীর আলো দেখার আগেই চলে গেল দুনিয়া থেকে।

ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন আমেরিকা! neonaloy

আদালতে ট্যেক্স ওয়াটসন

 

এমনই এক মর্মান্তিক কাহিনী নিয়ে টারানটিনোর তাঁর নবম মাস্টারপিস বানাতে যাচ্ছেন। রিক ডাল্টন এবং ক্লিফ বুথের চরিত্রে অভিনয় করছেন যথাক্রমে লিওনেল ডিকাপ্রিও এবং ব্রাড পিট। শ্যারন টাটের চরিত্রে থাকবেন মার্গোট রুবি।

ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন আমেরিকা! neonaloy

 

দর্শকরা অধীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করে আছেন সব বিখ্যাত পরিচালক, অভিনেতা-নেত্রীতে ঠাঁসা এই মুভির রিলিজের। কতোটা পূরণ হবে সবার আশা, এটাই দেখার বিষয়।

 

Most Popular

To Top