টুকিটাকি

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাড়ি

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাসা neonaloy

নিজের পরেই আমরা যাদের নিয়ে সবচেয়ে বেশি চিন্তা করি সেটা হল আমাদের পরিবার। নিজের পরিবার আর নিজের নিরাপত্তা নিয়েই আমাদের চিন্তা। নিরাপত্তার খাতিরে আমরা বাসায় নিরাপত্তার ব্যবস্থার করি। দরজায় তালা ঝুলাই, বাড়ির পাশে সীমানা দেই, অন্যদের চেয়ে নিজেদেরকে রক্ষা করি সেই সাথে নিজেদের প্রিয় মানুষ গুলোকেও। কিন্তু এই নিরাপত্তার ক্ষেত্রে কিছু মানুষ এগিয়ে আছে অন্য সকলের চেয়ে। আজকে জানবো পৃ্থিবীর কিছু বাড়ির কথা যেখানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা কঠোরের চেয়েও কঠোর।

জম্বি বাংকার- পোল্যান্ডের অবস্থিত বাড়িটির নামের মাঝেই বোঝা যায় বাড়িটি কিসের উদ্দেশ্য তৈরি। ৬১০০ স্কয়ার ফিটের এই বাড়িটি সম্পূর্ণ কংক্রিট দিয়ে তৈরি। জম্বিদের আক্রমন থেকে বাঁচাতে বাড়িটি তৈরি করা হলেও একে পৃ্থিবীর অন্যতম নিরাপদ বাসা হিসেবে আখ্যা দেওয়া হয়েছে। কংক্রিট দিয়ে বানানো হলেও বাড়িটির সমস্ত দেয়াল নড়াচড়া করা যায় এবং এর ভেতরেও সকল ধরনের অত্যাধুনিক সুযোগ সুবিধাও রয়েছে। প্রয়োজনে দেয়াল সরিয়ে জানালা খোলা যায়। পুরো বাড়িটিতে ঢোকার জন্য মাত্র একটাই রাস্তা রয়েছে তাও একটি সিড়ির মাধ্যমে। দরকার শেষ হলে সিড়িটি ভেতরে ঢুকিয়ে রাখা হয়। এই সিড়ি ছাড়া কেই ভেতরে ঢুকতে কিংবা বের হতে পারবে না।

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাসা neonaloy

 

ফেয়ার ফিল্ড এস্টেট- ফেয়ার ফিল্ড এস্টেট পৃ্থিবীর অন্যতম নিরাপদ বাসা হিসেবে আখ্যা পেয়েছে। হ্যাম্পটনে অবস্থিত ফেয়ার ফিল্ড এস্টেটের মালিক বিলিওনার IRA Renard। এই বিলিওনারের নিজস্ব আর্ট কালেকশন আছে এই এস্টেটে যার বর্তমান মূল্য ৫০০ মিলিয়ন ডলার। উচ্চ সিকিউরিটি সম্বলিত গেট ছাড়াও রয়েছে উচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। শুধুমাত্র আমন্ত্রিত অতিথিরাই এখানে ঢোকার অনুমতি পায়। এছাড়া আর কারো ঢোকার সাধ্য নেই। এতসব ছাড়াও রয়েছে বুলেট প্রুফ জানালা ও ক্যামেরা সকলের গতিবিধি লক্ষ্য রাখার জন্য।

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাসা neonaloy

 

বিল গেটস- মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটসকে আপাতদৃষ্টিতে সাধারন মনে হলেও নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে কোন ছাড় দেননি। শুধু নিরাপত্তা ছাড়াও তার বাড়িটি পৃ্থিবীর অন্যতম দামী বাড়ি হিসেবেও গণ্য করা হয়। সফটওয়্যার কোম্পানি হওয়ায় খুব সহজেই অনুমান করা যায় যে তার বাড়িটির নিরাপত্তা সিস্টেম ও সেরকমই হবে, কিন্তু তিনি শুধু প্রযুক্তির নির্ভর হয়েই থাকেননি বরং প্রকৃতিকেও লাগিয়েছেন নিরাপত্তার কাজে। বাড়ির চারিপাশে লাগিয়েছেন অসংখ্য কাঁচ যেগুলো তাকে ও তার পরিবারকে ফটোগ্রাফার ও পাপ্পারাজিদের কাছ থেকে দূরে রাখবে। এসকল ব্যবস্থা ছাড়াও তার বাসায় আমন্ত্রিতদেরকে একটি বিশেষ পিন দেওয়া হয় যার মাধ্যমে তাদের সকল গতিবিধি লক্ষ্য করা হয়।

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাসা neonaloy

 

কার্দেশিয়ান- প্যারিসে দুর্ঘটনা ঘটার পরপরই নিজের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছেন কিম কার্দেশিয়ান। সেরাদের মধ্যে থেকে বেছে নিয়েছেন নিজের নিরাপত্তার জন্য। এছাড়াও বাড়ির চারপাশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা করছেন জোরদার। এছাড়াও কোথাও যাওয়ার পথে তিনি বেশ কয়েকটি গাড়ি নিয়ে বের হন যাতে কেউ তাকে ফলো না করতে পারে। পূর্ব অনুমতি ছাড়াও কারো পারমিশনও নেই সেখানে ঢোকার। এছাড়াও বলা হয়ে থাকে যে, তার বাড়িতে নাকি সেইফ রুম বলে একটি রুম আছে, যা উন্নত মানের টেকনোলজি দিয়ে তৈরি যাতে যদি কখনো সমস্যা হয় তিনি তার পুরো পরিবার সহ যাতে সেখানে অবস্থান করতে পারেন।

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাসা neonaloy

 

ম্যাক্সিমাম সিকিউরিটি ম্যানশন- খুব কাঠখোট্টা নাম হলেও কলোরাডো তে অবস্থিত এই বাসাটি নিরাপত্তার দিক থেকে অন্যতম শ্রেষ্ঠ বাসা। ৩২ একরের পুরো জায়গাটিতে ৬ মিলিয়ন মূল্যের সিকিউরিটি সিস্টেম রয়েছে। সবচেয়ে মজার বিষয় হচ্ছে সিকিউরিটি টিমের অনুমতি নিয়ে অ্যাপলের অ্যাপের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় তথ্যের মাধ্যমে যে কেউ এই বাসার ভেতরের অবস্থা জানতে পারে। এছাড়াও এখানকায় অবস্থান করা প্রত্যেকটি ব্যক্তির ফিঙ্গার প্রিন্ট মাত্র ২০ মিনিটের মধ্যে এখানকার সিস্টেম বের করে ফেলতে পারবে। তাই যদি কেউ ঢুকেও পড়ে তাহলে ধরাও পড়ে যাবে। তার চেয়েও মজার বিষয় হচ্ছে এখানকার সকল কাজ রেকর্ড করে রাখা হয় এমনকি কেউ বিনা কারণে পানি ছেড়ে রাখলেও।

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাসা neonaloy

 

করবি ফ্যামেলি রেসিডেন্স- ক্যালিফোর্নিয়ার হলিউড হিলসে অবস্থিত এই বাসাটি তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় বেশি খরচ করার জন্য বিখ্যাত। পুরো বাড়িটি এমন ভাবে তৈরি যাতে যদি কখনো ভূমিকম্প হয় কিংবা প্রাকৃতিক দুর্ঘটনা ঘটে তাতে যাতে কোন রকম ক্ষতি না হয়। এছাড়াও তাদের সুরক্ষার জন্য বাড়ির নিচে একটি আন্ডারগ্রাউন্ড বাংকার আছে যাতে যেকোন দুর্ঘটনায় তারা সেখানে অবস্থান নিতে পারে এবং ৬ মাসের রসদ ও সেখানে রাখা আছে। এতো গেল প্রাকৃতিক দুর্যোগের কথা, এছাড়াও যদি কোন নিউক্লিয়ার বোমা কিংবা অন্য কোন ভাবে তাদের ক্ষতির সম্ভাবনা থাকে সেখান থেকেও বাড়িটি সুরক্ষিত। যদি কোন আততায়ী সেখানে ঢুকে যায় তার থেকে বাঁচার উপায়ও রয়েছে। ঘরের কিছু বোতাম টিপ দিলেই সরাসরি সেখানের লোকাল পুলিশের কাছে খোঁজ চলে যাবে, অর্থাৎ তাদের কোন ফোন কল করার দরকার নেই। এসকল জিনিস ছাড়াও তাদের রয়েছে কৃত্রিম ধোয়ার ব্যবস্থা যাতে করে তারা পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ পায়।

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাসা neonaloy

 

রিয়ংসং রেসিডেন্স- নর্থ কোরিয়ায় যেখানে অন্য মানুষের ঢোকার সুযোগ নেই সেখানে কিভাবে সিকিউরিটির এত কড়াকড়ি? কিন্তু এ যে সে বাড়ি নয়। স্বয়ং নর্থ কোরিয়ার নেতা কি জং উনের বাড়ি তাই এত সতর্কতা। এখানেই নিজের পরিবার নিয়ে থাকেন। পুরো বাড়িটি ইলেকট্রিকের তারের বেড় দেওয়া। আর রয়েছে অস্ত্র সম্বলিত সৈন্য ও মাইন ফিল্ড। বাড়ির দেওয়াল গুলো লোহা ও কংক্রিট দিয়ে মোড়া যাতে যদি কখনো নিউক্লিয়ার এট্যাক হয় তাতে যাতে রাজ পরিবারের সদস্যরা বেঁচে যায়। এতো গেল মানুষের তৈরি দুর্ঘটনা, প্রাকৃতিক দুর্ঘটনার জন্য ও তৈরি রয়েছে, যদি কখনো কোন দুর্ঘটনা ঘটেই যায় তবে মাটির নিচ দিয়ে যাওয়া ২৬ টি টানেলের মাধ্যমে অন্য পাশে থাকা চ্যানইয়ং প্রসাদে যাওয়ার রাস্তাও রয়েছে। এত সব কিছু পেরিয়ে যাওয়ার পর যদি কেউ ঢুকতেও পারে তবে কে জানে তার জন্য ভেতরে আর কি কি রয়েছে?

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাসা neonaloy

 

বাকিংহাম প্যালেস- লন্ডনের একটি জনপ্রিয় ঘোরার জায়গা হল এটি। তাই স্বভাবতই এখানে নিরাপত্তার কড়াকড়ি একটু বেশিই। কিছু কিছু সময়ে কিছু কিছু রাস্তা পর্যটকদের জন্য বন্ধ থাকে এবং সেখানকার রাস্তাগুলো নিশ্চিত করে যাতে কেউ ভুল করে সেখানে ঢুকে না পড়ে। অনেক সময় ধরে খেয়াল করলে সেখানকার গার্ডদের পরিবর্তন ও খেয়াল করা যায়। সেখানকার রক্ষীরা তাদের সুবিধার্থে রিং সিস্টেম ব্যবহার করে।

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাসা neonaloy

 

হোয়াইট হাউজ- হোয়াইট হাউজের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও খুবই উন্নত। এর চারপাশে রয়েছে ইলেক্ট্রিক তারের বেড়া। এছাড়াও এর আশে পাশে বিভিন্ন স্পেশাল এজেন্টও আছে যাদের কাজ হল এর চারপাশে খোঁজ রাখা। এগুলো ছাড়াও হোয়াইট হাউজের ব্যবস্থায় এর আকাশ পথ কেউ ব্যবহার করতে পারে না এমনকি কাছেও ঘেষতে পারে না। হোয়াইট হাউজে আরো রয়েছে বুলেট প্রুফ জানালা ও রাডার। এর ইনফ্রারেড সেন্সনের মাধ্যমে এর আশে পাশের সকল মুভমেন্ট ও লক্ষ্য রাখা হয়। বারাক ওবামা বিশ্বের সবচেয়ে গুরুতর সুরক্ষিত রাষ্ট্রপতি ছিলেন।

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাসা neonaloy

 

ক্রোটস্টাড ফোর্ট আলেক্সজান্ডার ১- এই দুর্গটি বানানো হয়েছিল রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবাগের অযথা মানুষদের দূরে রাখার জন্য। এই সম্পত্তির কাছাকাছি যাওয়ার মতো কোন উপায় নাই। অনেক মানুষ অনেক বছর ধরে এটি জয় করার চেষ্টা চালালেও কেউ সফল হয়নি। এর ভিত্তি প্রশান্ত মহাসাগরের ভেতরে ১২ মিটার পর্যন্ত লম্বা, এছাড়াও রয়েছে ৫৫৩৫ টা পিলার। এর উপরে আরো স্তর রয়েছে। এর প্রথম স্তরে আছে বালি, তারপরে কংক্রিট আর তারপরে আছে গ্রানাইটের স্তর। যদিও এটা এখন পরিত্যক্ত কিন্তু তাও ঘোরার জন্য তেমন ভাল নয়।

 

পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি গার্ড দেওয়া বাসা neonaloy

 

 

আরো পড়ুনঃ যে এলাকার কোন বাড়িতে দরজা নেই 

Most Popular

To Top