নাগরিক কথা

যে কারণে সেদিনের ঘটনায় নিরপেক্ষ হতে পারি না…

সোহান সাকিব নিরপেক্ষ নিয়ন আলোয় neon aloy

খুব ‘নিরপেক্ষ’ একটা মতামত দিতে পারতাম- “সাকিবের এমন করাটা একদমই উচিত হয়নি… আহা ক্যাপ্টেনের এত মাথা গরম করলে কিভাবে হবে… ক্রিকেট ভদ্দরনোকের খেলা” ইত্যাদি মুখস্ত বুলি একটার পর একটা ডেলিভারি দিয়ে ‘সুশীলদের’ বেশ বাহবাও কুড়োনো যেত।

সেটা কেন করা যায় না তা কালকের ম্যাচের শেষে শাস্তির বৈষম্য দেখে আরো নিশ্চিত হলাম। সাকিবের জরিমানা এবং ডিমেরিট পয়েন্ট, সোহানকে ডিমেরিট পয়েন্ট দেওয়া হয়েছে।

পরশু যা হয়েছে তাতে এই শাস্তি মেনে নিতে কারোরই আপত্তি থাকার কথা না, নাইও। আপত্তিটা কোন জায়গায় এবং কেন এসবের দরকার আছে- সেটা জানার আগে ক্রিকইনফো থেকে ঘটনার অথেনটিক বর্ণনাটা জেনে নিই-

“The shoving – or one instance of it, at least – was by a Sri Lanka player on a Bangladesh substitute.. He was pushed – not particularly hard, but not lightly either – as a group of Sri Lanka fielders followed him closely towards the boundary.

The shove, as well as the umpire’s refusal to award a no-ball, then tipped Bangladesh captain Shakib Al Hasan into a fury.”

সারমর্ম হলো,সোহান মাঠে আসার পরে এক পর্যায়ে শ্রীলংকান কেউ তাকে ধাক্কা দেয়, যেটাকে ওরা লিখেছে এইভাবে “He was pushed – not particularly hard, but not lightly either”।

চাইলে ধাক্কা খেয়ে চুপচাপ বের হয়ে আসতে পারতো সোহান, ক্রিকেটের ভব্যতা রক্ষা পেতো। কিন্তু কেন মেনে নিবে? ধাক্কা কেন দিবে? এতকিছু হয়ে গেলেও আমাদের কেউ ওদের সাথে ফিজিক্যাল কনট্যাক্টে গেছে?

সব কিছুর শুরু যে নো বল থেকে, ফাইনালে যাওয়ার ম্যাচ, যে সময়ে বাড়তি একটা রান, বাড়তি একটা বল, যে বলে(ফ্রি হিট) আউট হওয়ারও কোন চান্স নাই, একেবারে দিনের আলোর মত পরিস্কার নো বল- একজন আম্পায়ার কল দিবে, আরেকজন তা গ্রাহ্যই করবেনা- তাও চুপচাপ মেনে নিয়ে ক্রিকেটের কুলমান বাঁচাতে হবে?

এটা কি এই প্রথম যে গুরুত্বপূর্ণ মুহুর্তে আম্পায়ারিং এর জঘন্য সিদ্ধান্তগুলো আমাদের বিপক্ষে গিয়েছে?

আগের ম্যাচেও শেষের দিকে ফিল্ডিং টিমকে তাড়া না দিয়ে ভদ্রলোক আম্পায়ারকে দেখলাম ব্যাটসম্যান, মুশফিকদের তাড়া দিচ্ছেন পানি-টানি না খেয়ে দ্রুত ক্রিজে এসে রেডি হতে! ভায়া, আম্পায়ারদের জীবনেও ‘কুলীন’ দেশের কোন ব্যাটসম্যানকে এইভাবে তাড়া দেওয়ার নজির দেখিনা।

আর কালকের ব্যাপারটা তো পুরো ক্রাইমের মত ছিল!

মূল কথায় ফিরি।

তো ব্রাদার, নো বল দিলেন না, ধাক্কাও দিলো ওরা- শাস্তি পেল শুধু সোহান-সাকিব? দুইদিন আগেই স্মিথের কাঁধে হালকা লেগে যাওয়াতেও তো রাবাদাকে ব্যান করে দিলেন দেখলাম! ক্রিকেটে নাকি ফিজিক্যাল ভায়োলেন্সকে খুব কঠোর চোখে দেখা হয় ব্লা ব্লা। দিতে পারতেন না লংকান ওই খেলোয়াড়কে শাস্তি? দিতে পারতেন না কয়েকজন মিলেও থামাতে হিমশিম খেয়ে যাওয়া কুশল মেন্ডিসকে একটি ডিমেরিট পয়েন্ট? আম্পায়ারের ব্যাপারেও বা কি সিদ্ধান্ত নিলেন?

এইসবের জন্যেই সাকিবের রিএকশন ‘ঠিক’ আছে। যতবার অন্যায় করে যাবেন, চাইব একজন সাকিব ঠিক এভাবেই দাঁড়ায়ে যাক, করুক প্রতিবাদ। তাতে যদি সাকিবরা অ্যারোগেন্ট প্রমাণিত হয়, তো তাই-ই সই। আমি আমার ক্যাপ্টেনকে ব্যাক করে যাব। এত সুশীলতা চর্চা করার টাইম নাই।

লেখকঃ তারেক আহসান

Most Popular

To Top