ফ্লাডলাইট

রানার জন্যেই খেলুক বাংলাদেশ

রানার জন্যেই খেলুক বাংলাদেশ

প্রয়াত মানজারুল ইসলাম রানা যেদিন নিহত হন সেদিন ছিলো ১৬ মার্চ। ১৬ মার্চ বা তার আশেপাশের দিনগুলাতে বাংলাদেশ সাধারনত হারে না। মার্চ মাস, মানজারুল ইসলাম রানা আর বাংলাদেশের জয় যেন একই সূত্রে গাঁথা। অন্তত প্রতিপক্ষ দলকে কখনোই ছেড়ে কথা বলেনি। জ্বলে উঠেছে শোককে শক্তি বানিয়ে। সেসব ম্যাচে গুরুত্বপুর্ন ভূমিকা রাখতেন রানার ঘনিষ্ঠ বন্ধু মাশরাফি। আজ মাশরাফি থাকবেন না কিন্তু থাকবেন সাকিব-তামিম-মুশফিক, রানার জন্য খেলা ম্যাচসমূহে তারাও জ্বলে উঠেন সবসময়।

রানার মৃত্যুর ঠিক পরের দিন ১৭ মার্চ ভারতের সাথে সেই জয়ে ফিফটি করেছিলেন সাকিব, তামিম এবং মুশফিক। সাকিবের দলে আগমন রানার জায়গা পূরনের জন্যেই। খুলনা বিভাগের সতীর্থ তারা।

১৮ মার্চ ২০০৮ ঢাকায় আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ম্যাচে জিতেছিলো বাংলাদেশ।

২০১১ সালের ১১ মার্চ ইংল্যান্ডকে এবং ১৪ মার্চ নেদারল্যান্ডসকে হারায় বাংলাদেশ বিশ্বকাপে।

২০১২ সালের ১৬ মার্চ এশিয়া কাপের ম্যাচে ভারতকে হারায় বাংলাদেশ। তামিম, সাকিব, মুশফিক তিনজনই ব্যাট হাতে গুরুত্বপুর্ন দ্বায়িত্ব পালন করেন।

২০১৩ সালের ২৮ মার্চ শ্রীলংকার মাটিতে শ্রীলংকার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে জেতে বাংলাদেশ।

২০১৪ সালের ১৬ মার্চ টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে আফগানিস্তানকে মাত্র ৭৮ রানে গুটিয়ে দিয়ে জয় পেয়েছিলো বাংলাদেশ। সাকিব বল হাতে নিয়েছিলেন ৩ উইকেট।

২০১৫ সালের ৯ মার্চ এডিলেডে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে চলে যায় বাংলাদেশ। মুশফিক করেছিলেন ৮৯ রান।

২০১৭ সালের ১৬ মার্চ পড়েছিলো বাংলাদেশের শততম টেস্টের ভেতর। জিতেছিলো বাংলাদেশ। সাকিব করেছিলেন সেঞ্চুরী, তামিম চতুর্থ ইনিংসে ৮০।

২০১৬ সালের ২৩ মার্চ টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে নিশ্চিত জেতা ম্যাচ মাত্র ১ রানে হারতে হয়েছিলো ভারতের বিপক্ষে। এছাড়া ২২ মার্চ ২০১২ সালে এশিয়া কাপের ফাইনালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ২ রানের পরাজয়।

আজ আবার ১৬ মার্চে শ্রীলংকার বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। আজ মাশরাফি না থাকলেও তামিম, সাকিব, মুশফিকের উপর গুরু দ্বায়িত্ব থাকবে।

রানা যে বছর নিহত হলেন সেই বছরেই আন্তর্জাতিক অভিষেক হয় রিয়াদের। সমসাময়িক ক্রিকেটার, জাতীয় দলে একসাথে খেলা না হলেও ঘরোয়া ক্রিকেটে একসাথে খেলেছেন। রিয়াদ এখন সিনিয়র প্লেয়ারদের একজন। তার উপরেও দ্বায়িত্ব থাকবে রানার জন্য ভালো কিছু করার।

সৌম্য-মিরাজ তখন নিতান্তই শিশু। পেসার হান্টের মাধ্যমে জাতীয় দলে আসার আগে রুবেল কোন প্রফেশনাল ক্রিকেটই খেলেন নাই। তবু তারা যেই বিভাগের ক্রিকেটার, সেই খুলনার সাবেক অধিনায়ক ছিলেন মানজারুল ইসলাম রানা। সাবেক অধিনায়কের জন্য বাড়তি কিছু করার তাগিদ হয়তো তাদের ভেতর কাজ করবে।

ইমরুল রানার সাথে একদলে খেলেছেন ঘরোয়াতে। রিজার্ভ বেঞ্চে বসা ইমরুল আর বাংলাদেশে টিভির সামনে বসা মাশরাফি, রাজ্জাক, রাসেলরাও নিশ্চয়ই এটাই চাইবেন, “রানার জন্যেই খেলুক বাংলাদেশ”।

আজ কলম্বোতে রানা ফিরে আসুক, দলের অদৃশ্য দ্বাদশ প্লেয়ার হিসেবে রানা আজ মাঠে নামবেন।

আজ কি পারবে বাংলাদেশ ম্যাচ জিতে রানাকে উৎসর্গ করতে?

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top