নাগরিক কথা

এই হামলা কি অবাক হওয়ার মত কিছু?

মুহম্মদ জাফর ইকবাল নিয়ন আলোয় neon aloy

জাফর স্যারের উপর হামলায় আমরা যতটা অবাক হয়েছি, আসলে ততটা অবাক হওয়ার আদৌ কোন কারণ কি আসলে আছে? আমি নিশ্চিত স্যার নিজেও এতটা অবাক হননি! আমি ব্যাক্তিগতভাবে কিছুটা শংকিত হয়েছি, বেশ খানিকটা লজ্জা পেয়েছি। বারবার এমন অবাধ সুযোগ পেয়েও এই ঘৃনজীবী কীটগুলো তাদের “মিশন” সম্পন্ন করবে না – সেটা মনে হতেই শংকিত হয়েছি।

আর লজ্জিত হয়েছি, মানুষের নোংরামি দেখে – বিশ্বাস না হলে সংবাদ মাধ্যমগুলোর ফেসবুক পেইজের কমেন্টস সেকশনে অসংখ্য মন্তব্য দেখলেই জানতে পারবেন।

মুহম্মদ জাফর ইকবাল নিয়ন আলোয় neon aloy

ড মুহম্মদ জাফর ইকবালের উপর হামলার খবর প্রকাশ পেতেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উল্লাস প্রকাশ শুরু করে কিছু মানুষ

একটা মানুষ আমেরিকার সফল স্বাচ্ছন্দ্যময় জীবন ছেড়ে, দেশের সীমিত সুযোগ আর নিজের ভীতিপ্রদ জীবনের কথা জেনেও দেশে ফিরে এসে – এই দেশের মানুষ কে শিক্ষিত করার চেষ্টা করছেন বছরের পর বছর। এমন সিদ্ধান্ত নিতে দেশের প্রতি সত্যিকারের ভালোবাসা থাকতে হয়, বুকের পাটা থাকতে হয়! একজন শহীদসন্তান হিসাবে স্যারের সেগুলো যে বেশ ভালোই আছে, সেটা আর না বললেও চলে!

তিনি নিজেই আজ একখন্ড বাংলাদেশ।

অথচ এমন একটা নির্বিরোধী মানুষকে আমরা বারবারই ” কোপানোর” নিশানা করেছি, লজ্জাটা এর জন্যই পেয়েছি।

একজন জাফর ইকবাল চেয়েছেন এই দেশকে সবটুকু দিতে। হয়তো মনের জোরে আবারো উঠে দাঁড়াবেন, শেষ বিন্দু পর্যন্ত দিয়ে যাবেন দেশের জন্য। কিন্তু তারপরও কিছু সভ্য চামড়ায় ঢাকা অসভ্য ইতর দেশ-বিদেশে বসে তাদের জিহ্বা ধার দিয়েই যাবে – তাদের চাপাতি ধার দিয়েই যাবে! তারপর কোন এক জায়গায় কোন একদিনে সেই চাপাতি আবারো নেমে আসবে তার শরীরে আর দেশ-বিদেশের মচ্ছবকারীরাও শাণিত করবে তাদের জিহ্বা, এখন যেমন করছে অনলাইনে!

গত কয়েক দশকে যারাই দেশকে জ্ঞান-বিজ্ঞানে এগিয়ে নিতে চেয়েছেন, তারাই চাপাতির তলায় বিসর্জিত হয়েছেন। এই দেশে হুমায়ুন আজাদ, অভিজিৎ রায়, জাফর ইকবালেরা চাপাতির আঘাতে ক্ষত-বিক্ষত হবেন, তাই দেখে অসভ্যের দল উল্লাস করবে, আনন্দে মাতোয়ারা হবে – এমন বাংলাদেশ আমি চাইনি, আমরা চাইনি!

উন্নত বিশ্বে, শিক্ষিত সমাজে এমন মানুষদের মাথায় তুলে রাখা হয় আর আমরা এদের মাথায় কুপিয়ে হত্যা করি! এই দেশ আমার কাছে, আমাদের কাছে অচেনা প্রান্তর মনে হয়!

জাফর স্যার শহীদের সন্তান – বিজয়ী মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। একটা বিশাল প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে – দেশ নিয়ে নিজের লালিত স্বপ্ন হস্তান্তর করেছেন সফলতার সাথে। আর এ কারণেই আশাগুলো নিরাশায় রুপ নেয় না।

যেই স্বপ্ন, যেই আশা, যেই আদর্শ তিনি প্রজন্মান্তরে জ্বালিয়ে দিয়েছেন – তা কি চাপাতির কয়েকটি কোপেই নিভিয়ে দেয়া যায় রে, নরাধম?

তার সেই স্বপ্ন – সেই আশা – সেই আদর্শ যে ভালোবাসা – সে যে আমাদের শিখা অনির্বাণ!

সে নিজেই যে আমাদের স্বপ্নের বাতিঘর…..

আরো পড়ুনঃ

আসুন, একটু লজ্জিত হই…
এরপর কে হবেন ‘টার্গেট’?
“আমি নিজেই জাফর ইকবালকে ছুরি মারতাম”

Most Popular

To Top