টুকিটাকি

৯৯ বছর বয়সে বিশ্ব রেকর্ড!

৯৯ বছর বয়সে বিশ্ব রেকর্ড!

দাদাকে দেখি নি, নানাকে দেখার সৌভাগ্য হয়েছিলো। নানা, বেঁচে ছিলেন ১০৯ বছর বয়স পর্যন্ত। তবে, ৮৫ বছর পার হওয়ার পরই তেমন একটা বের হতেন না ঘর থেকে, বড়জোর উঠান পর্যন্ত যেতেন। ৯২ বছর বয়স থেকে একেবারে বিছানায়, টয়লেতে যেতেও অন্য কারো সাহায্য প্রয়োজন হতো।

প্রাণশক্তি ও জীবনীশক্তি নামে দুটা বিষয় আছে। প্রাণশক্তিতে ভরপুর মানুষের কাছে বয়স শুধুই একটা সংখ্যা। সেটাই প্রমাণ করলেন ৯৯ বছর বয়সী অস্ট্রেলিয়ান জর্জ করোনস। যেখানে ৯০ বছর বয়সের একজন মানুষ লাঠি ছাড়া ঠিকমতো হাঁটতে পারেন না, সেখানে জর্জ করোনস ৫০ মিটার ফ্রি-স্টাইলে সাঁতার কেটে গড়েছেন বিশ্ব রেকর্ড। ২৮ ফেব্রুয়ারি, বুধবার কমনওয়েলথ গেমসের গোল্ড কোস্ট প্রতিযোগিতায় সাঁতারে অংশ নিয়ে এই ‘বিশ্ব রেকর্ড’ গড়েন তিনি।
সাঁতার শেষ করতে জর্জ করোনস সময় নেন মাত্র ৫৬.১২ সেকেন্ড।

কমনওয়েলথ গেমসের গোল্ড কোস্ট প্রতিযোগিতার বয়সভিত্তিক (১০০-১০৪ বয়স) সাঁতার ক্যাটাগরিতে অংশ নেন জর্জ। এ বিভাগে আগের রেকর্ডটি ১ মিনিট ৩১ সেকেন্ডের। সেটি করেছিলেন ব্রিটিশ সাঁতারু জর্জ হ্যারিসন। সেই রেকর্ডটি ২০১৪ সালে গড়েছিলেন হ্যারিসন।
চার বছর পর কমনওয়েলথ গেমসের ট্রায়ালে সাঁতার কেটে হ্যারিসনের করা রেকর্ড ভাংগলেন জর্জ করোনস। তবে জর্জের রেকর্ডটি গ্রহণ করা হবে কিনা সে সিদ্ধান্ত এখনো জানানো হয়নি। আন্তর্জাতিক সুইমিং ফেডারেশন সেই সিদ্ধান্ত নেবে।

কেননা, এই বিভাগে বয়সসীমা ছিলো ১০০ থেকে ১০৪। জর্জ এখানে অংশ নেয়ার সুযোগ পেয়েছেন কেননা তিনি এই এপ্রিলে ১০০ বছরে পা দেবেন। আর এটি ছিলো কমনওয়েলথের ট্রায়াল প্রতিযোগিতা।

জর্জ হ্যারিসন এখানেই থামতে চান না। ৫০ মিটার ফ্রি স্টাইলে বিশ্ব রেকর্ড করার পর এখন তার লক্ষ্য ১০০ মিটারে রেকর্ড করা। বয়সে জর্জ যুবক না হলেও আত্মবিশ্বাসে তিনি যেকোন তরুণকেও তাক লাগিয়ে দেবেন।
জর্জ করোনস, অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনের নাগরিক। ছোটবেলা থেকেই সাঁতার কাটতে পছন্দ করতেন। যুবক বয়সে এসে সাঁতার চর্চা ছেড়ে দেন তিনি। শুধুমাত্র ব্যায়ামের জন্য পরবর্তীতে সাঁতার কাটতেন। ৮০ বছরে পা দেবার পর আবার সাঁতার চর্চা শুরু করেন তিনি। নিজেকে ফিট রাখতে নিয়মিত জিম করেন জর্জ। তবে কখনো কোন আনুষ্ঠানিক প্রতিযোগিতায় অংশ নেননি এই অষ্ট্রেলিয়ান নাগরিক।

Most Popular

To Top