বিশেষ

চলে গেলেন “খোয়াবো কি শেহজাদি” শ্রীদেবী!

চলে গেলেন "খোয়াবো কি শেহজাদি" শ্রী দেবী!- নিয়ন আলোয়

“ম্যায় খোয়াবো কি শেহজাদি, ম্যায় তো হার দিল পে ছায়ি…… হাওয়া হাওয়াই……”
গানের কথাগুলোর মতোই সত্যিকার অর্থে সবার হৃদয় ছেঁয়ে ছিলেন বলিউডের প্রথম নারী সুপারস্টার শ্রীদেবী। বয়স তার সৌন্দর্যকে কখনো ছুঁতে পারেনি। রূপালি পর্দায় তার অনবদ্য অভিনয়, নজরকাড়া চোখ, দুর্দান্ত নাচ দিয়ে যেমন আচমকা ঝড় তুলতেন দর্শক হৃদয়ে তেমনি আচমকা ঝড় তুলে ওপারে পাড়ি জমালেন বলিউডের খ্যতিমান অভিনেত্রী শ্রীদেবী।

আকস্মিক হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাতে দুবাইয়ে মারা যান শ্রীদেবী। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৫৪ বছর।

১৯৬৫ সালে মাত্র চার বছর বয়সে এম.এ. তিরুমুঘামাদের ভক্তিমূলক থুনিভিয়ান চলচ্চিত্রে শিশু শিল্পী হিসেবে অভিনয় জীবন শুরু করেন। ১৯৭৪ সালে ‘জুলি’ ছবিতে শিশু শিল্পী হিসেবে বলিউডে পা রাখেন এই বলিউড লিজেন্ড।

চলে গেলেন "খোয়াবো কি শেহজাদি" শ্রী দেবী!

শ্রীদেবী যখন শিশু শিল্পী

নায়িকা চরিত্রে শ্রীদেবীর প্রথম অভিনয় করেন তামিল চলচ্চিত্র ‘সোলভা সাবন’– এ, এটি ছিলো তামিল ‘সিক্সটিন ভায়থিনিল’ চলচ্চিত্রের রিমেক। নিজের অভিনয় দক্ষতা ও নাচে পারঙ্গমতা দিয়ে অল্পসময়ে বলিউডে নিজের শক্ত অবস্থান গড়ে তোলেন তিনি। ১৯৮৩ সালে সুপার হিট ‘সাদমা’ ছবিতে অভিনয় শ্রীদেবীকে সুপারস্টারের খ্যাতি এনে দেয়।

চলে গেলেন "খাবো কি শেহজাদি" শ্রী দেবী!- Neon Aloy

“সাদমা” চলচ্চিত্রে শ্রীদেবী

৮০ ও ৯০ এর দশকে শ্রীদেবী অসংখ্য হিট ছবি উপহার দিয়েছেন। চাঁদনী, নাগিনা, শ্রীকৃষ্ণ ভারত, চলাচল, মিস্টার ইন্ডিয়াসহ ২৭৫টিরো বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী। হিন্দির পাশাপাশি অভিনয় করেছেন তামিল, তেলেগু, কন্নড় ও মালয়ালাম চলচ্চিত্রে। শ্রিদেবী অভিনীত ‘লামহে’ ছবিকে বলা হয় শত বছরের মধ্যে সেরা রোমান্টিক চলচ্চিত্র।

১৯৯৬ সালে চলচ্চিত্র থেকে অবসরের ঘোষণা দেন তিনি। ১৫ বছর পর ‘ইংলিশ ভিংলিশ’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে আবার ফিরে আসেন রুপালি পর্দায়। সেসময় পর্দায় ফিরে আসার জন্য বলিউড স্টাররা এবং বক্স অফিস উষ্ণ অভ্যর্থনা জানিয়েছিলো শ্রীদেবীকে। ২০১৭ সালে থ্রিলার ছবি ‘মম’ এ প্রতিশোধ পরায়ণ মা চরিত্রে দর্শক নন্দিত হয়েছিলেন এই লিজেন্ড অভিনেত্রী।

চলে গেলেন "খোয়াবো কি শেহজাদি" শ্রী দেবী!

“ইংলিশ ভিংলিশ” চলচ্চিত্রে শ্রীদেবী

১৯৬৩ সালের ১৩ই আগস্ট তামিলনাড়ুতে জন্ম নেয়া শ্রীদেবীর আসল নাম “শ্রী আম্মা ইয়ান্গার অ্যা্য়াপান”। ১৯৯৬ সালে চলচ্চিত্র প্রযোজক বনি কাপুরকে বিয়ে করেন শ্রীদেবী। ব্যক্তিজীবনে জাহ্নবী ও খুশি নামে দুই কন্যসন্তানের জননী তিনি। বড় মেয়ে জাহ্নবী চলচ্চিত্রে পা রেখেছে এরইমধ্যে। তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্রের শ্যুটিং চলছে এখনো।

চলে গেলেন "খোয়াবো কি শেহজাদি" শ্রী দেবী!

শ্রীদেবী ও তার পরিবার

একটি পারিবারিক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে স্বামী ও ছোট মেয়ে খুশিসহ দুবাই গিয়েছিলেন শ্রীদেবী, সেখানেই কার্ডিয়াক এ্যাটাক হয় তার। শ্যুটিং এ ব্যস্ত থাকায় বড় মেয়ে জাহ্নবী যেতে পারেনি বাবা ও মায়ের সাথে। গত দুবছরে মেয়েকে চলচ্চিত্রে অভিষেকের জন্য তৈরি করতে অনেক ছুটাছুটি করেছিলেন শ্রীদেবী, আফসোস মেয়ের বলিউডের প্রথম চলচ্চিত্র মুক্তি পাওয়ার আনন্দ উপভোগ না করেই পৃথিবী ছাড়লেন শ্রীদেবী।

শ্রীদেবী তার অভিনয় জীবনে অসংখ্য পুরস্কারসহ ২০১৩ সালে ভারত সরকারের দেয়া গুরুত্বপূর্ণ ‘পদ্মশ্রী’ সম্মাননা অর্জন করেন।

 

Most Popular

To Top