ফ্লাডলাইট

বাংলাদেশ-উইন্ডিজ টি-টুয়েন্টি সিরিজ ফ্লোরিডায়!

বাংলাদেশ-উইন্ডিজ টি-টুয়েন্টি সিরিজ ফ্লোরিডায়!

আগামি জুন-জুলাই মাসের বাংলাদেশের ক্যারিবিয়ান সফরের প্রস্তাবিত সূচী বিসিবিকে পাঠিয়েছে উইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড। ২ টেস্ট এবং ৩ ওয়ানডের সিরিজ ক্যারিবিয়ান অঞ্চলের বিভিন্ন দেশে হলেও ২ ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজ রাখা হয়েছে মায়ামি বীচখ্যাত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায়।

মার্কিন মুল্লুকের একমাত্র আইসিসি অনুমোদিত ক্রিকেট স্টেডিয়াম ফ্লোরিডার সেন্ট্রাল ব্রোয়ার্ড রিজিওনাল স্টেডিয়াম।

ফ্লোরিডায় এর আগে ৩ টি আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি সিরিজের ৬ টি ম্যাচ হয়েছে। সর্বশেষ ২০১৬ সালে ভারত-উইন্ডিজের দুই ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজ হয়েছিলো। ওই বছর থেকেই ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (সিপিএল)-এর ম্যাচ হয়ে আসছে ফ্লোরিডায়।

নয়নাভিরাম পরিবেশে অত্যাধুনিক সুযোগ সুবিধা আর চমৎকার ড্রেনেজ সিস্টেমের এই স্টেডিয়াম মূলত সেন্ট্রাল ব্রোয়ার্ড রিজিওনাল পার্কের একটি অংশ। এই পার্কে ক্রিকেট, ফুটবল, টেনিস, গলফ গ্রাউন্ডের পাশাপাশি রয়েছে বিভিন্ন বিনোদনের ব্যবস্থা যা বিভিন্ন থিম পার্কে দেখা যায়।

ফ্লোরিডা ক্যারিবিয়ান দ্বীপদেশ জ্যামাইকার কাছাকাছি, এই স্টেডিয়ামে রয়েছে তাই ক্যারিবিয়ান ছোঁয়া, নির্মানশৈলী, নঁকশা এমনকি লাল এবং গোলাপি রং এর আধিক্য সব কিছুতেই রাখা হয়েছে ক্যারিবিয়ান আমেজ। আর এজন্যই উইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড এই স্টেডিয়াম নিয়ে করেছে সুদূরপ্রসারী কিছু পরিকল্পনা। সুযোগ পেলেই এশিয়ার দেশগুলাকে এখানে হোস্ট করছে। এর আগে শ্রীলংকা এবং ভারতকে হোস্ট করেছিলো, অবশ্য ভারতের সাথে সিরিজটা বিসিসিআই নিজেই আয়োজন করতে বলে উইন্ডিজকে, সেক্ষেত্রে সেটা যে কার হোম সিরিজ ছিলো তা বলা মুশকিল। টিকেট বিক্রি থেকে টেলিভিশন রাইট সবই ভারতের ছিলো। গতবছর উইন্ডিজ পাকিস্তানের সাথে সিরিজ আয়োজন করতে চাইলেও ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রসাশনের ভিসা নিয়ে কড়াকড়িতে শেষ পর্যন্ত পাকিস্তানিরা ফ্লোড়িডায় খেলার সুযোগ পায়নি!

ভারত এবং শ্রীলংকা সিরিজের সময় সমগ্র আমেরিকা থেকে অনেক দর্শক এখানে খেলা দেখতে এসেছিলো। অনেকটা কমপ্লিজ প্যাকেজ! মায়াবি মায়ামি বীচে অবকাশ যাপন, থিম পার্ক, ফ্লোরিডায় ঘোরাঘুরি আর একই ভিসায় ক্যারিবিয়ান কিছু দেশে বেড়িয়ে আসার অফারো দেয়া হয় দর্শকদের। তবে অভিযোগ ছিলো অতিরিক্ত টিকেটের মূল্যের। প্রতিটি ম্যাচের টিকেট ছিলো সর্বনিম্ন ৭৫ ডলার থেকে সর্বোচ্চ ২৫০ ডলার। (এটা অনেক দাম ওদের হিসাবেও)। ক্রিকেট এবং ট্যুরিজমের দারুন এক মিশেল হচ্ছে ফ্লোরিডায় ক্রিকেট আয়োজন!

তো যাইহোক আশাকরি বাংলাদেশ জুলাই মাসেই ফ্লোরিডায় ক্রিকেট খেলবে এবং অসংখ্য বাংলাদেশী মাঠে যেয়ে সাপোর্ট করবে।

শেষ করি একটা প্রশ্ন দিয়ে, ফ্লোরিডার মত সুপার ডুপার মানে অত্যাধিক এক্সপেনসিভ শহরে উইন্ডিজ যদি বাংলাদেশকে হোস্ট করতে পারে তাহলে পাকিস্তানের কি সমস্যা হয় দুবাই বা আবুধাবিতে বাংলাদেশকে হোস্ট করতে? মধ্যপ্রাচ্যে কি কম প্রবাসী বাংলাদেশী থাকে?

Most Popular

To Top