টুকিটাকি

নতুন বছরের ১৪টি সহজ টার্গেট!

নতুন বছরের ১৪টি সহজ টার্গেট!

বছর শেষে লাভ ক্ষতির হিসেব কষতে গিয়ে আমাদের চেহারাটা হয়ে যায় বাংলার পাঁচ! কি পেলাম , কি হারালাম করতে করতেই নতুন বছর এসে হাজির হয়ে যায়। এইসব ছেড়ে নতুন বছরে আরও কি কি অর্জন করতে পারবেন সেখানেই চোখ রাখা উচিৎ। নতুন কি কি অভ্যাস আপনাকে আরও ভাল অবস্থানে নিয়ে যেতে পারে সেটা নিয়েই আজকের লেখা।

ফ্রেন্ড সার্কেলে ট্যুর এর প্ল্যানিং, অফিসের প্রোজেক্ট প্ল্যানিং, ঈদ কিংবা পূজার শপিং প্ল্যানিং অথবা সংসদের বাজেট প্ল্যানিং – আপাতদৃষ্টিতে সবখানেই একটা প্ল্যানিং থাকে। তাই বলে গোটা একটা বছরের জন্য প্ল্যানিং? প্ল্যানিং বলতে একটা বছরের জন্য বেশ কিছু অভ্যাস ছাড়া বা ধরার মাধ্যমেই আপনি আপনার নির্দিষ্ট লক্ষে পৌঁছে যাবেন। Actually, A year without a plan is like a useless 8760 hours!

১) নতুন বছরের শুরুতেই একটা বৈয়াম কিনে ফেলুন। প্রত্যেক সপ্তাহে ঘটে যাওয়া একটি ভাল ঘটনা লিখে বৈয়ামটি পূর্ণ করতে থাকুন। বছরের শেষ দিনে বৈয়াম খালি করে সব থেকে পছন্দের ফ্রেন্ড/ফ্যামিলি মেম্বারদের সাথে আপনার বছরটি শেয়ার করতে পারেন।

২) স্টাডি রিলেটেড বই পড়তে পড়তে বিরক্ত? নতুন বছরে গল্প, উপন্যাস, ম্যাগাজিন পড়ার অভ্যাস শুরু করতে পারেন। আপনার পছন্দের লেখক, লেখিকার বইগুলো সংগ্রহে করে বাসায় বসেও পড়তে পারেন অথবা ঢাকা শহরে বেশকিছু স্টল পাবেন যেখানে আপনি ফ্রিতে বই পড়তে ও বন্ধুদের সাথে আড্ডাও দিতে পারবেন।

৩) নতুন বছরে কোথায় কোথায় ঘুরতে যেতে চান সেটার একটা খসড়া করে ফেলুন। সেই অনুযায়ী টাকা জমানো শুরু করে দিতে পারেন। সত্যি বলতে পাহাড়,সমুদ্র না দেখতে পারলে আপনার পুরো জীবনটাই বৃথা।

৪) নতুন বছরে ফ্যামিলি মেম্বারদেরকে বেশি করে সময় দিতে পারেন। কর্মক্ষেত্রে কাজের চাপ কিংবা পড়াশোনার ধকল কাটিয়ে উঠতে গিয়ে ফ্যামিলিকে সময় দেওয়ার সময়টা কমে আসে, সেক্ষেত্রে ফ্যামিলির সাথে রাতের খাবারটা খাওয়ার অভ্যাস করে ফেলতে পারেন, অথবা মাঝে মাঝেই ফ্যামিলি ট্যুর দিয়ে আসতে পারেন।

৫) সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলো প্রয়োজন মাফিক ব্যাবহার করার চেষ্টা করতে পারেন। তথ্যবহুল পেজগুলোর নোটিফিকেশন অন করে রাখতে পারেন।

৬) অবসর সময়কে সঠিকভাবে কাজে লাগানোর জন্য সবথেকে ভাল কাজ হচ্ছে – মুভি দেখা! তবে বাংলা সাবটাইটেল ব্যাবহার থেকে বিরত থাকতে পারেন। অবসর এর সময়টা আরো দীর্ঘ হলে সেই মুভির ছোটখাটো রিভিউও লিখে ফেলতে পারেন । বিভিন্ন টাইপের মুভি ডাইনলোড করে রেখে আপানার মেজাজ মর্জি অনুযায়ী দেখে ফেলতে পারেন।

৭) কনসার্টঃ পছন্দের আর্টিস্টের লাইভ কনসার্টে যেতে পারেন।

৮) সময় ,সুযোগ কম পেলে সপ্তাহে অন্তত দুই দিন সকালে হাঁটাহাঁটির অভ্যাস শুরু করতে পারেন।

৯) নতুন নতুন হবির অভ্যাস করতে পারেন। যেমনঃ‘গার্ডেনিং’।

১০) ভলেন্টারি ওয়ার্ক এর সাথে নিজেকে সংযুক্ত করতে পারেন।

১১) নতুন কোন ভাষা অথবা রেসিপি শিখে ফেলতে পারেন।

১২) গেট টুগেদারঃ পুরনো বন্ধুদের সাথে নতুন বছরে একটা গেট টুগেদারের প্ল্যান করে ফেলতে পারেন।

১৩) স্পোর্টস টাইমঃ নিজের পছন্দের স্পোর্টস টুর্নামেন্ট এর জন্য সময় বের করে রাখুন। পারলে প্রতি সপ্তাহে মাঠে গিয়ে খেলাধুলায় অংশগ্রহণ করতে পারেন।

১৪) সবাইকে সময় দিতে দিতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন? তাহলে , শুধুমাত্র নিজের জন্য কিছুটা সময় রাখুন। অন্য কিছু না ভেবে শুধুমাত্র নিজের জন্য ঐ সময়ে ভাবুন।

Most Popular

To Top