গল্প-সল্প

“সোফিয়া” যখন বাঙ্গালী বউ!

"সোফিয়া" যখন বাঙ্গালী বউ!- Neon Aloy

আগামী দিনে ছেলেদের জীবনসঙ্গী যদি সোফিয়া হয় তবে কেমন হবে?

সোফিয়া চা বানাওতো খুব চা খেতে ইচ্ছে করছে।

আজকে আর তোমাকে চা দেয়া হবে না কেননা তুমি ইতিমধ্যে বেশ কয়েক কাপ চা খেয়েছ।

সফু এমন করে না।

দেখ সফু বলে ডাকলে আমি বিভ্রান্ত হই। মনে হয় তুমি অন্য কাউকে ডাকছ। যদিও আমার নিজের থেকে বুঝার ইন্টিলিজেন্স আছে তাও এই জিনিস বুঝতে আমার সিপিউ গরম হয়ে যায়।

দেখেছ আমি তোমাকে কিভাবে গরম করে দিচ্ছি।

অমিত আমি জানি তুমি কোন গরম বুঝাতে চাচ্ছ। তুমি জানো আমাদের মাঝে আবেগ, উত্তেজনা এগুলো নাই। তাই আমি সানি লিওনের মত গরম হই না। আমার সিপিউ গরম হয় তাতে আমার সিস্টেমে সমস্যা হয়।

আচ্ছা বাবা বুঝলাম। অমিত এবার আব্দার করে প্লিজ চা নিয়ে আস।

তোমাকে আজ আর চা দেয়া যাবে না। চা এর মাঝে ক্যাফেইন আছে। তুমি গত মাসের ১০ তারিখে বেশী চা খেয়েছিলা, সেই রাতে তুমি ঘুমাতে পারোনি। তাই আজকে আর চা হচ্ছে না।

আমি কত ফিট আছি জানো। প্রতিদিন ব্যায়াম করি, খেলাধূলা করি।

তুমি লাস্ট ব্যায়াম করেছ গত মাসের ৩ তারিখে; এরপর আর তোমার ব্যায়াম করা হয় নি। গত মাসের শেষ দিকে তোমার ব্লাড প্রেসার হাই ছিল বেশ কয়েকদিন ধরে। তুমি ব্যায়ামের কথা বলে বের হয়ে বন্ধুদের সাথে আড্ডা দাও। তোমার গাড়ির জি পি এস থেকে এই তথ্য পাওয়া যায়। তুমি এর মাঝে কয়েকদিন জাঙ্ক ফুড খেয়েছ বাইরে, তোমার ক্রেডিট কার্ডের বিল তাই বলে।

দেখ সোফিয়া তুমি কি চাও আমি বলি আমাদের আগের সিস্টেম ভালো ছিল। বউকে যখন যা বলতাম তাই নিয়ে আসত।

তোমাদের আগের সিস্টেম ভালো ছিল কিনা তাতো আমি বলতে পারব না। কিন্তু আগে তুমি বাসায় এসে অনেক বিরক্ত থাকতা। তুমি তখন ফেসবুকে অনেক পোস্ট দিয়েছ যে তোমার বউ তোমাকে অনেক প্রশ্ন করে, তোমার উত্তর দিতে ভালো লাগে না। আমি কিন্তু তোমাকে কোন প্রশ্ন করি না। তোমার জি পি এস, ক্রেডিট কার্ড, মোবাইল ট্র্যাকিং থেকে বুঝে ফেলি তুমি সারাদিন কি করেছ কোথায় ছিলা?

হুম এটা অবশ্য ঠিক। আগে মনে হইত আমি জেলখানায় থাকতাম। এখন বেশ স্বাধীন লাগে। এই যে আমি গতকাল অফিসের জরুরী কাজে বাইরে থাকতে হয়েছে তুমি কিছুই জিজ্ঞেস কর নাই।

তুমি গতকাল কোন মিটিং এ ছিলা না। তুমি গতকাল তোমার গার্লফ্রেন্ড নিয়ে হোটেলে গিয়েছ ডেটিং করতে।

কি যা তা বলছ।

তুমি ৩ টায় উত্তরা গিয়েছিলে সেখান থেকে তুমি জিনিয়াকে ফোন দিয়েছ। এরপর তাকে নিয়ে তুমি গিয়েছ হোটেল লা মেরেডিয়ানে। তোমার জিনিয়ার সাথে মিটিং থাকার কোন সম্ভাবনা নেই কেননা সে একজন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী। তুমি একটা ডিলাক্স রুম ভাড়া করেছ। এরপর তোমরা সেখানে প্রায় রাত ৮ টা পর্যন্ত ছিলা এবং এরপর তুমি জিনিয়াকে উত্তরা নামিয়ে বাসায় এসেছ।

অমিত একটু থতমত খেয়ে যায়। তুমি এই সব আমার জিপিএস, মোবাইল, ক্রেডিট কার্ড দেখে বুঝেছ।

হুম।

আচ্ছা তুমি কি কষ্ট পেয়েছ?

হুম অমিত আমি কষ্ট পেয়েছি। কেননা জিনিয়ার পেছনে তুমি বেশ টাকা খরচ করছ। এই মাসে তুমি বাসা ভাড়া দিতে পারবে কিনা সন্দেহ। তুমি যদি এইভাবে জিনিয়ার পিছনে টাকা খরচ কর তবে আমাদের সংসার চালাতে কষ্ট হবে।

অমিত হাফ ছেড়ে বাচে যাক বাবা চিল্লাচিল্লি নাই। শুধু সংসার খরচ নিয়ে চিন্তা।

জানো আগের দিন হলে বউরা চিল্লাচিল্লি করে মাথায় তুলত। তুমি আমাকে রেখে অন্য মেয়ের কাছে কেন যাচ্ছ। আমি তোমার সাথে সংসার করব না। আমি বাপের বাড়ি চলে যাব। তুমি একটা দুশ্চরিত্র। আরও কত কি। পুরা এলাকা জড়ো করত।

হুম জানি অমিত। তোমার জীবনের ইতিহাসে এমন হয়েছে।

এইবার অমিত একটু লজ্জা পায়। আরে না। মাঝে মাঝে একটু ভুল হয়ে যায় না। জাননা মানুষ মাত্রই ভুল। তবে হয়েছে কি জানো সোফিয়া মাঝে মাঝে রক্তমাংসের মানুষ ছাড়া হয় না।

অমিত এটা তোমাদের বানানো কথা। আমি দেখেছি মানুষ মাত্র ভুল না। তোমরা ইচ্ছে করেই কাজটি কর।

আচ্ছা বাবা এক কাপ চা এর জন্য এত কথা। ঠিক আছে বাবা চা লাগবে না।

ধন্যবাদ অমিত বুঝার জন্য। তোমাকে বুঝাতে গিয়ে আমার সিপিউ গরম হয়ে যায়।

হুম বুঝতে পেরেছি এই গরম সানি লিওনের গরম না।

Most Popular

To Top