টেক

“সোফিয়া” এবং দেশের রোবোটিক্স নিয়ে কিছু প্রশ্ন-উত্তর (FAQ)

"সোফিয়া" এবং দেশের রোবোটিক্স নিয়ে কিছু প্রশ্ন-উত্তর (FAQ)- নিয়ন আলোয়

প্রশ্ন: সোফিয়া নিয়ে আপনার তেমন কোন আগ্রহ দেখতে পাচ্ছি না?
উত্তর: আমার প্রজেক্টে নিয়ে মারাত্নক ব্যস্ত । তবে কিছুটা ঘাটাঘাটি করেছি।

প্রশ্ন: সোফিয়া এবং হ্যানসন রোবটিকসের কোন জিনিসটি আপনার সবেচেয় নজর কেরেছে?
উত্তর: মার্কেটিং টেকনিক , রোবটের স্কিন এবং ফেসিয়াল এক্সপ্রেশন। তাদের মার্কেটিং টেকনিক এটাকে এত জনপ্রীয় করেছে প্রযুক্তি নয়।

প্রশ্ন: সোফিয়া তৈরীতে তারা কি প্রযুক্তি ব্যাবহার করেছে ?
উত্তর: উইকিপিডিয়া এবং অন্যান্য সাইট থেকে যা পেয়েছি তা হল ভয়েস রিকোগনিশনের জন্য গুগলের ভয়েস রিকোগনিশন, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার জন্য SingularityNET ব্যাবহার করা হয়েছে যা ব্লকচেইন ভিত্তিক ডিসেন্ট্রালাইজড AI সিস্টেম। ফেসিয়াল এক্সপ্রেশনের জন্য Frubber ব্যাবহার করা হয়েছে যা একধরনের কৃত্রিম ত্বক যা ম্যাকানিক্যালি কন্ট্রোল করা যায় যে প্রযুক্তিটি হ্যানসন রোবটিকস বানিয়েছে।

প্রশ্ন: সুফিয়া হাটতে পারে না এমনকি হাত নাড়াতেও দেখি নাই তাহলে কি এটা হিউম্যানয়েড রোবট?
উত্তর: হিউম্যানয়েড রোবট হতে হলে হাটতে হবে এমন কোন কথা নাই তবে মানুষের মত দেখতে হবে । সুফিয়া অবশ্যই হিউম্যানয়েড রোবট।

প্রশ্ন: সোফিয়া নিয়ে এত যে মাতামাতি সে বিষয়ে আপনার মন্তব্য কি?
উত্তর: এত মাতামাতি সমালোচনা এটা দেশের রোবটিকসের জন্য ভাল। কারণ মানুষ এ সম্পর্কে আরো কৌতুহলী হচ্ছে।

প্রশ্ন: শুনেছি সোফিয়া আনতে নাকি ১৬ কোটি (মতান্তরে ১০ কোটি) টাকা খরচ হয়েছে এত টাকা খরচ অপচয় নয় কি?
উত্তর: হ্যানসন রোবটিকস তাদের মার্কেটিং এর অংশ হিসেবে বাংলাদেশে রোবট নিয়ে আসছে তাই এ টাকাটা তাদের খরচ করা উচিত ছিল। এমনকি এর প্রযুক্তি নিয়ে তারা কোন সেমিনার করতেও দেখি নাই। এই টাকাটা যদি আমাদের দেশের কয়েকটা ভার্সিটি সিলেক্ট করে ফাণ্ডিং করত তাহলে কয়েক বছরের মধ্যে আমরা অনেক ভাল রোবট দেশেই পেয়ে যেতাম।

প্রশ্ন: সোফিয়াকে আণ্ডারইস্টিমেট করছে অনেকেই এ ব্যাপারে কি বলবেন?
উত্তর: সোফিয়া একটা অসাধারণ রোবট। আপনি একটা রোবটকে এখনই যা বলবেন তার উত্তর মানুষের মত দিয়ে দিবে তা আশা করতে পারেন না। সোফিয়া যে বিষয়ে আলাপ করে আগে সে বিষয়ে কন্টেন্ট তার মধ্যে লোড করতে হয় এর মানে এই নয় কেউ টাইপ করে উত্তর দিয়ে দেয়। সুফিয়ার ফেসিয়াল এক্সপ্রেশনের টেকনোলজি নি:সন্দেহে গ্রাউণ্ডব্রেকিং।

প্রশ্ন: আপনি এখন কি নিয়ে কাজ করছেন ?
উত্তর: আমি মেট্রোপলিটন ভার্সিটিতে শিক্ষকতা করছি এবং ছাত্রদের নিয়ে কাজ করছি। তাছাড়া আমি আমার কোম্পানি CRUX এর কিছু প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করছি যার মধ্যে রোবট , IoT এবং দুইটা অসাধারণ এ্যাপ আছে। বছরখানেকের ভিতর আশা করি কিছু অসাধারণ প্রোডাক্ট দেখতে পাবেন। এ বিষয়ে ইনভেস্টরদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

প্রশ্ন: রোকটিকস নিয়ে কাজে আপনার অভিজ্ঞতা এবং বাঁধা এ বিষয়ে সংক্ষেপে কিছু বলুন।
উত্তর: আমাদের দেশের রোবটিকস নিয়ে যারা কাজ করে তারা যে কি পরিমাণ কষ্টের মধ্যে আছে তা এ বিষয়ে যারা কাজ করে তারা ছাড়া কেউ বুঝবে না। সমস্যাগুলো হল :

  • আমাদের দেশের ভার্সিটিগুলোতে রোবটিকসের শিক্ষক নাই বললেই চলে (যেহেতু নাই সেহেতু আমার মত রোবটিকসে ডিগ্রীহীন চুনাপুঁটি শিক্ষককে রোবটিকস শিক্ষক হিসেবেই ধরে নিলাম। সমস্যা হল এরকম শিক্ষকও হাতে গোনা। সাস্টের প্রথম রোবটিকস ক্লাব SUSTRoboAero যখন শুরু করেছিলাম তখন আমরা ছিলাম মাত্র ৩ জন এবং এক টাকাও বাজেট ছিল না। এর কিছুদিন পর রোবসাস্ট নামে নওশাদ সজিবে নেতৃত্বে আরো একটা ক্লাব হয় যা এখনও কাজ করছে। পরবর্তীতে মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিতে জয়েন করার পর কর্তপক্ষ আমাকে বাজেট দিয়েছিল। আমাদের ছাত্ররা বর্তমানে এ বিষয়ে বাংলাদেশের যেকোন বড় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে ভাল কম্পিটিশন করতে পারে। তাছাড়া বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সাথে আমরা ড্রোন নিয়ে কাজ করেছি এবং করব)।
  • রোকটিকসের জন্য বড় অবকাঠামো দরকার বিশেষ করে ম্যাকানিকালের ল্যাব।
  • বিদেশ থেকে প্রচুর জিনিস আনতে হয় যা বিদেশ থেকে আনা ঝামেলা। এ বিষয়ে কাস্টমস ফি শূন্য করা উচিত। সরকার টাকাও দিবে না আবার ট্যাক্স রাখবে বেশী করে তা হতে পারে না।
  • কোর কোর্সে রোকটিকস ঢোকাতে হবে তবে শিক্ষক না থাকলে সে ক্ষেত্রে যারা এ বিষয়ে কাজ করেছে তাদেরকে খণ্ডকালিন শিক্ষক হিসেবে নেয়া যেতে পারে।
  • ম্যাকানিকাল , ইইই এবং সিএসই এর লোকজনের একসাথে কাজ করা ম্যান্টালিটিটা কেন যেন আমাদের ভার্সিটিগুলোতে কম। তা বাড়াতে হবে। খালি লাইন ফলোয়ার প্রতিযোগিতায় সাড়াবছর পরে থাকলে হবে না।

আর কিছু এ মুহুর্তে মাথায় আসছে না ….. কাজ আছে ভাই গেলাম…।

লেখকঃ সৈয়দ রেজওয়ানুল হক নাবিল
সহকারী অধ্যাপক, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি সিলেট।

Most Popular

To Top