ক্ষমতা

বর্তমান শতাব্দীর এক দুর্লভ মহান কমিউনিস্ট নেতা!

বর্তমান শতাব্দীর এক দুর্লভ মহান কমিউনিস্ট নেতা!

আমরা জানি মোমিনের পবিত্র আরব শেখ এবং আগের কমিউনিস্ট বেশ কিছু নেতৃবর্গ এবং এখনকার এই আলোচ্য নেতাদের প্রচুর মিল আছে। উনারা ধনতন্ত্রের কুফল বুঝতে বিলাস ব্যাসন করে থাকেন যাতে বিষয়টা বুঝতে পারেন। আসুন, এবার এক মহান নেতার উপর বিস্তারিত জানি। এই নেতা হলেন অবশিষ্ট দু একটি কমিউনিস্ট নেতার একজন নাম কিম উন জং। উনি বাবার পরে দেশের দায়িত্ব নিয়েছেন মেহনতি মানুষের সহি রাস্তা দেখানোর জন্য। মিসাইল এবং পরমাণু বোমা নিয়ে প্রায়শই উনি ধমক দিয়ে থাকেন এবং বছরে নিয়ম করে কিছু পরমাণু বোমার পরীক্ষা বা মিসাইল এদিক ওদিকে তাক করে ফেলে থাকেন। ওটা আপাততঃ আলোচনার বাইরে থাক। আমরা এই মহান নেতার জীবন যাপন আর কিছু ব্যক্তিগত তথ্য জানি।

নেতা কি বিবাহিত ?
হ্যাঁ, অনেক বিবাহ ইচ্ছুক বিপ্লবী মহিলাদের আশাহত করে বলতেই হচ্ছে উনি বিবাহিত। উনার স্ত্রীর নাম রি -সোল্ -জু। উনার বয়েস ২৭, ২০০৯ এ তার সাথে বিবাহ হয়েছে। নিন্দুকে বলে উনিই ওই দেশের সেরা গায়িকা হ্য়িং সোল্ জু। তবে এর পরীক্ষা করার কোনো চান্স নেই। বলা হয় ওই দেশের বিশেষ ‘অভিজাত রাজনৈতিক’ পরিবারের একজন (স্বাভাবিক, তা না হলে কি কোনো সাধারণ ঘরের কেউ হবে? আশা করেন কি করে?) আর তা ছাড়া ও উনি একজন বিজ্ঞানের উপর ডক্টরেট।

রি -সোল্ -জু

তার কি সন্তান আছে?
হ্যাঁ, আছে। নাম কিম -জু -রাই। এর কথা জানা যায়, আমেরিকার ন্যাশনাল বাস্কেটবল দলের তারকা রোডম্যান কে একটু আলাদা খাতির করে ওই দুর্লভ সুযোগ করে দেন মহান নেতা। শিশুটিকে উনি দেখেন ২০১৩ তে। তবে উনি আত্বত্যাগী তাই দেশের মানুষকে এই সব তুচ্ছ কথা জানানোর প্রয়োজন বোধ করেন না। সরকারি ভাবে তাই দেশের লোকের কাছে এর কোনো খবর নেই। যাক, তাতে কি এসে যায়!

রডম্যান

নেতার বাসস্থান কোথায়?
নেতা থাকেন অনেক জায়গায় তবে প্রত্যেক জায়গা একই ভাবে বানানো। আরে, উনার একটা রুচি আছে না! রিংয়ং স্যাঙ বলে একটি অতীব অভিজাত জায়গা যাকে উত্তর কোরীয় মানুষরা কেন্দ্রীয় বিলাস প্রাসাদ বলেন ঐখানেই তার বসবাস। এই আবাসস্থান মাত্র ৪.৬ বর্গ মাইল এর উপর অবস্থিত। সামান্য একটা অলিম্পিক স্ট্যান্ডার্ড এর সুইমিংপুল, একটা ওই মানের দৌড় আর ক্রীড়া ট্র্যাক, একটা শুটিং রেঞ্জ এবং কিছু ঘোড়ার ফার্ম/আস্তাবল। অতীব সামান্য জীবন যাপন। এ ছাড়া একটা সামান্য ওয়াটার পার্ক। উনি ভীষণ লাজুক তাই নিজের কথা বলেন না ,এইগুলো স্যাটেলাইট ছবি দিয়ে জানা গেছে। নেতার এছাড়া ওই জলবিহার করার একটি বিলাসবহুল ইয়াট এর খবর দেন ওই রোডম্যান। মাত্র ৭ মিলিয়ন ডলারের ওই জলযান এ বিহার এবং আমাদের নেতার অন্য ভিলা ইত্যাদির সুখসফর কে ওই আমেরিকান তারকা বাস্কেটবল খেলোয়াড় তুলনা করেছেন সাত তারা হোটেলের সাথে। এইসব মিথ্যা, আসলে উনি ওই নেতার সরল সাধাসিধা ব্যবহার দেখে এই কথা বলেছিলেন।

নেতার বাড়ি আর সুইমিং পুল এর স্যাটেলাইট ছবি

নেতা সারা সপ্তাহ করেন কি?
না, নেতা খালি কাজ করেন না। তবে কুচকাওয়াজ দেখা এবং ফ্যাক্টরি বা প্ল্যান্ট ইত্যাদি পরিদর্শন এর কথা আমরা জানি। তবে কিছু মানুষ যারা ওই উত্তর কোরিয়ার মহান শাসন ব্যবস্থাকে বদনাম করতে দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন তাদের মতে কোনো ফ্যাক্টরি ইত্যাদি পরিদর্শন করার কয়েক সপ্তাহ আগেই কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ ছাড়া নেতা ওই সফরের সময় কোনো প্রোডাক্ট এ হাত দিলেই ওটা কাচের শো কেসে সংরক্ষণ করা হয়। ভাবুন ,এই রকম একজন লোক কি কম মহান !

নেতা কি টাকা খরচ করেন? কিছু কেনাকেটা করেন?
যৎসামান্য করেন, উনার মতো লোকের তুলনায় ওটা কিছুই না। রাষ্ট্রসংঘের ২০১৪ সালের একটি রিপোর্টে জানা যায় যে উনি মদ খরিদ করেছেন মাত্র ৩০ মিলিয়ন ডলার। ইলেক্ট্রনিক বস্তু মাত্র ৩৭ মিলিয়ন ডলার আর হাতঘড়ি মাত্র ৮.২ মিলিয়ন ডলার। এই বিষয়ে এই মেহনতি নেতার কৃতিত্বের আর এক পালক জুড়েছেন দেশের বিলাস বহুল পণ্যর মোট ক্রয় কে ৩০০ মিলিয়ন থেকে ৬৪৫ মিলিয়ন ডলার এ তুলে এনেছেন। এ এক অনন্য কৃতিত্ব!

নেতা খায় কি?
নেতা একটু খেতে ভালোবাসেন। তো? এতেও আপনারা নজর দেবেন! কি আর এমন খায়, একটু মোটা হয়ে গিয়েছিলেন, একটা সার্জারি করতে হয়েছিল ওই মোটা হয়ে যাওয়ার জন্য, তো? এতেই এতো আলোচনা? আপনাদের কি কোনো চক্ষুলজ্জা নেই? যাই হোক, উনি একটু চিজ আর ওয়াইন এবং লাল পানি ইত্যাদি খেতে ভালোবাসেন। একবার এক সুইজারল্যান্ডের চিজের বড় চালান উনার জন্য জাহাজে এসেছিল, ওটা খেয়ে বেশকিছু সময় উনি মেহনতি মানুষের সামনে আসতে পারেন নি। আহা, বড় ভালো আর সরল লোক। কি সুইট ভাবুন! পাজি লোকে বলে নিজের কাকাকে কুকুর দিয়ে  কোনো আর্মির কর্তাকে এন্টি এয়ারক্রাফট গান দিয়ে কতল এর কথা। আমরা এই সব খারাপ কথা বলবো না। ওসব ষড়যন্ত্র। লাইনে আসুন!

মহান নেতা কিম জিন্দাবাদ।

Most Popular

To Top