ফ্লাডলাইট

আইসিসির অকল্যান্ড সভার আদ্যপান্ত

প্রত্যাশিত ঘোষনা হাতে আইসিসির অকল্যান্ড সভা

আইসিসির অকল্যান্ড সভায় প্রত্যাশিত ঘোষনা গুলাই এসেছে। জুনে লন্ডনে যেসব বিষয় প্রস্তাব হিসেবে ছিলো সেগুলা এখন চূড়ান্ত করা হয়েছে। এক নজরে দেখা নেয়া যাক বিষয়গুলাঃ

১. টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ
২০১৯ বিশ্বকাপের পরেই শুরু হবে বহুল আলোচিত টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ। প্রথম নয় দল নিয়েই হবে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ। দুই বছরে প্রতিটা দল মোট ছয়টা সিরিজ খেলবে চ্যাম্পিয়নশীপের আওতায়। তিনটা ঘরের মাটিতে, তিনটা বিদেশের মাটিতে। প্রথম দুই দলের ভেতর এপ্রিল ২০২১ সালে ফাইনাল খেলা হবে। চ্যাম্পিয়নশীপের ম্যাচগুলা ৫ দিনের হবে। সিরিজ হবে নূন্যতম দুই ম্যাচের এবং সর্বোচ্চ পাঁচ ম্যাচের। চ্যাম্পিয়নশীপের সূচীর বাইরে যেকোন দেশ অন্য দেশের সাথে আগের মতোই আলোচনা করে সিরিজ খেলতে পারবে যার ফলাফল চ্যাম্পিয়নশীপের উপর প্রভাব ফেলবে না।
যা সমাধান হয়নি
ভারত-পাকিস্তানের সিরিজের ব্যাপারে সমাধান হয়নি। পয়েন্ট কিভাবে ভাগ হবে যেমন দুই ম্যাচের সিরিজ জিতলে কত পয়েন্ট, পাঁচ ম্যাচের বেলায় কি হবে সেটা? আবার চ্যাম্পিয়নশীপ ফাইনাল ড্র হলে কি হবে? অথবা ভারত-পাকিস্তান ফাইনালে উঠে গেলে কোন সমস্যা হবে কিনা। আফগানিস্তান, আয়ারল্যান্ড, জিম্বাবুয়ের ব্যাপারে কোন নির্দেশনা নেই তবে প্রথম নয় দল প্রতি তিন বছরে এই তিন দলের যেকোন একজনের সাথে টেস্ট খেলতে বাধ্য থাকবে।

২. ওয়ানডে লীগ
ওয়ানডে লীগ হবে ১৩ দলের। শুরু হবে ২০২০-২১ ক্রিকেটবর্ষ থেকে। চলবে দুই বছর, এই লীগের শীর্ষ আট দলই সরাসরি ২০২৩ বিশ্বকাপ খেলবে। প্রতিটা দল এই সময়ের ভেতর আটটি সিরিজ খেলবে। বছরে চারটা করে। ১৩-তম দল হবে আইসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লীগের চ্যাম্পিয়ন সহযোগী দেশ। অর্থাৎ তারাও শীর্ষ দল গুলার সাথে আটটি সিরিজ পাবে। ওয়ানডে লীগের বাইরেও দলগুলা সিরিজ খেলতে পারবে আগের মতো তবে সেগুলার ফলাফল বিশ্বকাপে কুয়ালিফাই করার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখবে না। ওয়ানডে লীগের সিরিজ তিন ম্যাচের হবে এটা আইসিসি নির্ধারিত। ভবিষ্যতে তাই পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের সংখ্যা অনেক কমে যাচ্ছে নিশ্চিত।
যা সমাধান হয়নি
এখানেও ভারত-পাকিস্তান সিরিজ রাখা হয়নি, যেটা নিয়ে পাকিস্তানের ক্ষোভ রয়েছে। সূচীতে ভারত না থাকায় পাকিস্তানের ব্রডকাস্টিং পার্টনাররা টাকার অংক অনেক কমিয়ে দিচ্ছে এবং নতুন রাইটস পাচ্ছেনা বলে পাকিস্তানের অভিযোগ। বাকি সব দেশ ভারতের সাথে সিরিজ থেকে অনেক অর্থ লাভ করে থাকে যেটা পাকিস্তান পাচ্ছেনা। শেষ পর্যন্ত পাকিস্তান ওয়ানডে লীগ বর্জনের হুমকি দিয়ে রেখেছে। দ্বিতীয় সমস্যা আফগানিস্তানের হোম ভেন্যু, তাদের সব খেলা নিরপেক্ষ দেশে খেলাটা খরচসাপেক্ষ। আইসিসি কোন সহায়তা করবে কি না সেটা অনিশ্চিত।

৩. চার দিনের টেস্ট
ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকার অনুরোধ রেখে ২০১৯ সাল পর্যন্ত পরীক্ষামূলক বা “ট্রায়াল” হিসেবে চার দিনের টেস্ট অনুমোদন করা হয়েছে। অর্থাৎ, ২৬ ডিসেম্বর বক্সিং-ডে তে সাউথ আফ্রিকা-জিম্বাবুয়ের চার দিনের প্রথম টেস্ট ম্যাচ হচ্ছে। মূলত নীচের দিকের দেশগুলার সাথে খেলার সময় বড় দেশগুলা চারদিনের টেস্ট খেলতে পারে। অথবা আফগানিস্তান, জিম্বাবুয়ে, আয়ারল্যান্ডের ভেতর ম্যাচগুলা চারদিন করে হতে পারে। তবে, এটা দিবা রাত্রির টেস্টের মতো সম্পুর্ন দুই দেশের ইচ্ছার উপর নির্ভর করবে তারা কয়দিনের টেস্ট খেলবে।

৪. বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব
বাংলাদেশে হবার কথা ছিলো তবে বাংলাদেশ সরাসরি বিশ্বকাপ খেলবে বলে জিম্বাবুয়েতে সরিয়ে নেয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষনা দেয়া হয়েছে।

৫. আয়ারল্যান্ডের অভিষেক টেস্ট
আয়ারল্যান্ডের অভিষেক টেস্ট পাকিস্তানের সাথে ২০১৮ সালের মে মাসে হবে। ম্যাচ চারদিন নাকি পাঁচদিনের হবে সেটা এই দুই দেশ সিদ্ধান্ত নিবে।

বছর ভিত্তিক সূচী প্রকাশ করা হলেও টেস্ট এবং ওয়ানডে লীগের চূড়ান্ত সপ্তাহ ভিত্তিক ডিটেইলস সূচী তৈরী করার জন্য সংশ্লিষ্ট বোর্ডসমূহকে ব্যবস্থা নিতে বলেছে আইসিসি।

Most Popular

To Top