শিল্প ও সংস্কৃতি

শুভ জন্মদিন প্রিয় জাহিদ হাসান

শুভ জন্মদিন প্রিয় জাহিদ হাসান

সাল ১৯৭১; দেশজুড়ে মুক্তিযুদ্ধ চলছে। মানুষটির বয়স তখন ৪-৫ বছর। হঠাৎ একদিন শেল, বোম, গোলাগুলির বিকট আওয়াজ শুনে মানুষটির মা তাঁকে কোলে ও তাঁর অন্যসব ভাই বোনকে নিয়ে বাড়ি ছেড়ে তাড়াহুড়ো করে নিরাপদ আশ্রয়ে গেলেন। নিরাপদ আশ্রয়ে পৌছানোর দশ মিনিট পর মা খেয়াল করলেন বাইরে বিকট শব্দে গোলাগুলির আওয়াজ হওয়া শর্তেও তাঁর কোলের বাচ্চাটি মোটেও কান্নাকাটি করছে না। আসলে মা টেনশন ও তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে তাঁর বাচ্চাটিকে কোলে করে আনেননি এনেছেন কোলবালিশ। এমতাবস্থায় মা পুনরায় বাড়িতে গিয়ে বাচ্চাটিকে নিয়ে আসেন। এটি ছিলো মানুষটির জীবনে ঘটে যাওয়া অন্যতম একটি ভয়ংকর ঘটনা।

মানুষটি এক ইন্টারভিউতে বলেছিলেন, “শ্রাবণ মেঘের দিন সিনেমাটি বানানোর আগে হুমায়ূন ভাই (কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ) আমাকে একদিন তাঁর বাসায় ঢেকে পাঠান। তিনি ডাইনিং টেবিলে বসে আছেন আর পেছনে উনার ন্যাশনাল এ্যাওয়ার্ড গুলো সুন্দর করে সাজানো। উনি আমাকে বললেন,

“এই বইটা তুমি নাও (শ্রাবণ মেঘের দিন)। মতি চরিত্রে তুমি অভিনয় করবা। আর পেছনে দেখছো না ন্যাশনাল এ্যাওয়ার্ড, এর একটা তুমিও পাবা।”

আমিও মনোযোগ দিয়ে বইটি পড়েছি। মতি ক্যারেক্টারের সাথে নিজেকে খাপ খাওয়ানোর চেষ্টা করছি, নিজেকে তৈরী করছি। হঠাৎ, শ্যুটিং এর কিছুদিন আগে জানতে পারি আমি আর ওই ক্যারেক্টারে নাই! আমার বদলে অন্য আরেকজন অভিনয় শিল্পীকে নেওয়া হয়েছে। খুব দুঃখ পেলাম। কিন্তু, সেবার আমার ভাগ্য খুব ভালো ছিলো। শেষ পর্যন্ত হুমায়ূন ভাই মতি ক্যারেক্টারে আমাকেই কাস্ট করলেন এবং আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমতে সে বছর শ্রাবণ মেঘের দিন সিনেমাটির মতি চরিত্রে অভিনয়ের জন্যে আমি শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে ন্যাশনাল এ্যাওয়ার্ড পাই।”

মানুষটির জন্মের কয়েক মাস পর একদিন রাতে তাকে কিছুতেই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। পুরো গ্রাম তন্য তন্য করে খোঁজ করার পর দেখা গেলো একটি পুকুরের পাশের ক্ষেতে একটি বাগডাশার (বিড়ালের চেয়ে আকারে বড়ো এবং মাংশাসী প্রাণী) পাশে তিনি অক্ষত অবস্থায় বসে আছেন। আসলে এই বাগডাশাই বাসা থেকে তাঁকে টেনে ওই জায়গায় নিয়ে গিয়েছিলো। হুমায়ূন আহমেদ এই ঘটনাটি জানার পর মানুষটিকে একটি বই উপহার দেওয়ার সময় সেই বইতে লিখেছিলেন, “জাহিদ বাগডাশার হাত থেকে তো বেঁচেছো, মানুষের হাত থেকে কি বাঁচবা? (জনপ্রিয়তার অর্থে)”।

আসলেই মানুষটির জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বী। বাংলাদেশের আবালবৃদ্ধবনিতা তাঁকে ভালোবাসে এবং তাঁর অভিনয়ে মুগ্ধ হয় “হিমুর হাতে কয়েকটি নীলপদ্ম” বইতে হুমায়ূন আহমেদ মানুষটিকে উৎসর্গ করে লিখেছিলেন,

“জাহিদ হাসান, প্রিয় মানুষ। মানুষ হিসেবে সে আমাকে মুগ্ধ করেছে, একদিন হয়ত অভিনয় দিয়েও মুগ্ধ করবে। (দ্বিতীয় বাক্যটি দিয়ে তাকে রাগিয়ে দিলাম, হা হা হা।)”

খুব সম্ভবত এই বছরের ডিসেম্বর মাসে রিলিজ পাবে তৌকির আহমেদ পরিচালিত বহু প্রতিক্ষিত “হালদা” সিনেমাটি। এই সিনেমায় মানুষটি নেগেটিভ চরিএে অভিনয় করেছেন। সিনেমাটি দেখার জন্যে অপেক্ষায় আছি।

যাই হোক, আগামীতে আপনার কাছ থেকে আরোও অনেক সুন্দর সুন্দর কাজ পাবো সাধারণ দর্শক হিসেবে এই টুকুই চাওয়া। ইচ্ছে ছিলো প্রিয় মানুষটির প্রতি ভালোবাসার প্রকাশ আরেকটু বিস্তরভাবে প্রকাশ করার কিন্তু, শারীরিক অসুস্থতার কারণে সেটি সম্ভব হলো না।

শুভ জন্মদিন প্রিয় জাহিদ হাসান।

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top