নাগরিক কথা

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে একদিন…

Neon Aloy Magazine

গতকালের দিন কেটেছে টেকনাফে। রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে। অনেক আগ থেকেই এইখানে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির। এটার এখন এক্সপানশন হচ্ছে। চোখের দেখায় মনে হয়েছে, ৭ লক্ষ মানুষের কথা বলা হলেও এইখানে আরও অনেক বেশি মানুষ।

প্রচুর মানুষ ত্রাণ নিয়ে যাচ্ছে। উত্তরবঙ্গ থেকে, চট্টগ্রাম থেকে। চোখের পলকে ট্রাক ফুরিয়ে যাচ্ছে। সরকারী লোকজন দেখলাম, এনজিও দেখলাম, বিএনসিসি, বিডিআর, পুলিশ, সব দেখলাম। সবাই অনেক আন্তরিকতার সাথেই কাজ করছে। কিন্তু এতো মানুষ।

এক বাসায় ঢোকার অভিজ্ঞতা হয়েছে। বাসা না বলে ছাউনি বলা ভাল।। বড়জোর একটা কিং সাইজ ডাবল খাটের সমান ওই ছাউনি। বাঁশের স্ট্রাকচারের উপর পলিথিনের ছাউনি। একটু জোরে বাতাস হলেই ওই পলিথিন থাকবে না। কিন্তু আপাতত মাথা গোঁজার ঠায় তো মিলেছে। প্রচন্ড গরম। এই গরমে ওই বাসার মধ্যে আমার দম বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ওই বাসার মধ্যে ওদের পরিবারের ৯ জন মানুষ থাকে। ৯ জন! একটা ডাবল বেডে ৪ জন শুলেই আমাদের কেমন হাঁসফাঁস লাগে। ওইটুকু জায়গায় ৯ জন মানুষ! অবিশ্বাস্য।

একই বাসার মধ্যে কারো কারো আবার দুই বউ একসাথে। ৬০ বছর বয়স্ক ভদ্রলোকের বউয়ের কোলে বাচ্চা। বউয়ের বয়স ২২ বছর। ভদ্রলোকের এইটা তৃতীয় বিবাহ। উনার মোট ১৭ ছেলে পেলে। উনি বললেন, বউদের নাকি প্রেগন্যান্ট করে রাখতে হয়। নাহলে বার্মিজ আর্মি এসে নির্যাতন করে। অবশ্য আমার মনে হয়েছে, জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের চিন্তা আসলে এদের মাথায় নেই, শিক্ষার কোন সুবিধা নেই কারো, এসব চিন্তা আসবে কিভাবে।

২০ থেকে ৩৫ বছর বয়সী পুরুষ মহিলার উপস্থিতি অনেক কম এই শিবিরে। যা আছে এর উপরে না হয় নিচে। কয়েকজন বললো, এই বয়সী মেয়ে পেলেই নির্যাতন করেছে, ছেলে পেলেই মেরে ফেলেছে। একটা জাতির একটা জেনারেশন নাই! অবিশ্বাস্য!

এক পিচ্চির সাথে কথা হচ্ছিল। বাবা-মা কে হারায়ে ফেলছে। কোথায় বাসা করছে জানে না। খুঁজছে বাবা-মা কে। পাহাড়ে পাহাড়ে খুঁজতে খুঁজতে আরও ৫-৬ দিন লাগতে পারে তার ধারণা। এক বোনকে নির্যাতন করে চোখের সামনে কেটে ফেলেছে, আর ভাইকে গুলি করে হত্যা। চোখের সামনেই নাকি। কি অবলীলায় বলে ফেললো ছেলেটা।

এই সু চি আসলে তারা নাগরিকতা পাবে, যখন সে গৃহবন্দী ছিল তখন তার জন্য তারা কত দোয়া করেছে। আর সেই সুচি এখন নিজের লাভের জন্য হাত মিলিয়েছে সামরিক বাহিনীর সাথে, এরকম বক্তব্য বয়স্ক লোকদের।

আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সময় আমাদের সাথে কি হয়েছিল অনুমান করতে খুব একটা কষ্ট হয় না। আমাদের অবস্থা হয়তো এরকমই হতো, আমরাও হয়তো রিফিউজি হতাম, যদি আমাদের একজন বঙ্গবন্ধু না থাকতো।

কারো যদি মনে হয়, আপনার জীবনে অনেক কষ্ট, অনেক ফ্রাস্টেশান, একটিদিন ওই ক্যাম্পে কাটিয়ে আসুন।

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top