নাগরিক কথা

কামনা হোক একটি সুস্থ সন্তানের, কেবল পুত্র সন্তানের নয়

নিয়ন আলোয়- কামনা হোক একটি সুস্থ সন্তানের, কেবল পুত্র সন্তানের নয়

ভাই, একটা মেয়ের চাইতে ছেলে সন্তান থাকাটা অনেক বেশি উপকারী এবং দরকারীও বটে, অন্তত আমাদের দেশে- এই কথাটা প্রতি জনে জনে বোঝাতে চাইবেন আবার নিজেকে শিক্ষিত মানুষ বলে দাবী করবেন, আর কতদিন? মেয়ের বদলে একটি ছেলে সন্তান থাকলে, আপনার দুশ্চিন্তা অনেক কম থাকে- ধারনাটা তোতা পাখির মত আউরাবেন আবার নিজেকে শিক্ষিত মানুষ বলে দাবী করবেন, আর কতদিন? স্ত্রী গর্ভবতী হলে মসজিদ, মাদ্রাসায় সিন্নি মানত করবেন একটা সুস্থ সন্তান না, শুধুমাত্র একটা ছেলে সন্তানের আশায়, আর বলবেন আপনি শিক্ষিত মানুষ! আর কতদিন?

জানি, আমার মানা না মানা তে আপনার অবস্থানের কোন হেরফের হবেনা। আপনি দেশ–বিদেশে আরো অসংখ্য কাগজের ‘সার্টিফিকেট’ নামক আস্তাকুড় কুড়াতেই থাকবেন। সমাজের অন্যদের উপর নিজের মধ্যযুগীয় ধারনা চাপাতেই থাকবেন! জানি একটা মেয়ে শারীরিক ক্ষমতায় কখনো একটা ছেলের সমকক্ষ নয়। কিন্তু, নিজের শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে চোখ মেলে দেখুন, সৃষ্টির মানসিকতায়, প্রতিভায় এবং ক্ষমতায় একটি মেয়ে সন্তান কোন অংশেই কম নয়।

দয়া করে, ধর্মের দোহাই দিয়ে বলতে আসবেন না যে, ধর্মই পুরুষদের নারীদের চেয়ে উচ্চতর স্থানে বসিয়েছে! তাহলে হয় আপনি ধর্ম বুঝতে পারেননি না হয় ‘বিচার মানি কিন্তু তালগাছ আমার’ বলে নিজের ধারনা আঁকড়ে বসে আছেন, ধর্মের মুল কথা যাই হোক না কেন! ব্যক্তিগত সম্পত্তির বাটোয়ারা থেকে শুরু করে রাষ্ট্রপরিচালনার কথা উদাহরন দিবেন কিন্তু ভুলে যাবেন, সৃষ্টিকর্তার পর তিনি নিজে কাকে সবচেয়ে সম্মানিত বলে উল্লেখ করেছেন!

রাষ্ট্র পরিচালনায় নারী কে কেন গণ্য করা উচিত নয়, সেটার ব্যাখ্যাটাও বোধহয় ভালোভাবে জানা হয়নি আপনার। পারিবারিক সম্পদের বাটোয়ারায় নারীর ভাগ কেন কম, সেটা আমার মতো অল্প শিক্ষিত একটা মানুষও যেখানে বুঝতে পারছি, সেখানে আপনাদের মতো ‘শিক্ষিত’দের কেন এতো কষ্ট হয় সেটা আমার বোধগম্য নয়। আগেই বলেছি, একটা মেয়ে শারীরিক ক্ষমতায় কখনো একটা ছেলের সমকক্ষ নয়। ধর্মীয়ভাবে (বিশেষভাবে ইসলাম ধর্মে) সকল জায়গাতেই নারীর সমঅধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে (হ্যাঁ, শারীরিক প্রতিবন্ধকতার বিবেচনায় কিছুক্ষেত্রে আলাদা করা হয়েছে, এটা সত্য। তবে মনে রাখবেন সেটা শুধুমাত্র শারীরিক প্রতিবন্ধকতার কারনেই)।

তারপরও যদি আমার কথা গ্রহণযোগ্য না মনে হয়, তাহলে হিসাব করে দেখুন আপনার ৪৬টি ক্রোমজমের ২৩টিই এসেছে একজন নারীর কাছ থেকে। একজন পুরুষ যখন আপনার ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত করতে অর্থ উপার্জনে ব্যস্ত ছিলেন, একজন নারীই আপনাকে দীর্ঘ সময় গর্ভে ধারণ করেছিলেন এবং সর্বোপরি ধর্মীয়ভাবেই মাকে পিতার উপর স্থান দেয়া হয়েছে। তারপরও যদি আপনার একটি কন্যা সন্তান বা সুস্থ একটি সন্তানের চেয়ে কেবলমাত্র একটি পুত্রসন্তানই কাম্য হয় তবে বলতেই হয়, কেন তবে বৃথাই এই কালক্ষেপণ কেন এই শিক্ষার মঞ্ছচায়ন, আলো-আঁধারের ফারাক না বুঝিলে শিক্ষা তোমার কাগজেই রহিবে কভু হইবেনা আপন। ধন্যবাদ, সমাজের ‘শিক্ষিত বাসিন্দাদের’। পুনশ্চঃ বিশ্বের প্রথম শ্রেণীর দেশগুলোতে এখনো এশিয়ান এবং আফ্রিকান হবু পিতাদের কন্যা সন্তানের ভ্রুনের খবর খুব চিন্তা ভাবনা করে জানানো হয়।

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top