গল্প-সল্প

বাসের সিট বিড়ম্বনা ও কথোপকথন

neon aloy বাসের গল্প নিয়ন আলোয়

একটি বাসের পাশাপাশি সিটে দুই নারী-পুরুষের গন্তব্যে যাওয়া ও কিছু কথোপকথন…

নারীঃ এই যে ভাই, এতো গুলো সিট ফাঁকা থাকতে এই সিটেই কেন বসলেন আপনি?
পুরুষঃ কোন সিটে বসবো, সেটা কি আপনার কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে নাকি?
নারীঃ কেন, মেয়েদের পাশের সিট ফাঁকা দেখলে সেখানেই বসতে হবে কেন? আশেপাশে তো আরও অনেক সিট ফাঁকা আছে!
পুরুষঃ আরে, ভালো জ্বালাতো, আপনি এতো পিছনে এসে বসেছেন কেন? সামনে মেয়েদের সিটে বসলেই পারতেন?
নারীঃ আমি কোথায় বসবো সেটা কি আপনার কাছে শিখতে হবে নাকি? মেয়ে দেখলে পাশে না বসলে ভালো লাগেনা না! জত্তসব!
পুরুষঃ না লাগেনা, তাই বসলাম!

আশে পাশের অন্য সিটের যাত্রীরা এবার একটু এদিকে তাকাতে লাগলো, আড় চোখে আর কিছুটা উসখুস করতে লাগলো। কিন্তু কেউ কিছু বলল না। আর সেই দুই যাত্রীও চুপ করে গেল কিছু সময়ের জন্য।

একটু পরে আবার, এবার সেই পুরুষ…

পুরুষঃ এক্সকিউজ মি, আপনি একটু জানালার পাশে চেপে যান-না! আমি ঠিক বসতে পারছিনা।
নারীঃ আমি আমার সিটে বসেছি, আপনার সমস্যা কি? আপনি অন্য সিটে যান, অনেক সিট ফাঁকা পরে আছে। আপনার পাশের সিটও ফাঁকা ওখানে যান, আরাম করে বসেন।
পুরুষঃ কেন আপনি যান অন্য সিটে আমি এই সিটেই বসবো! আপনি চেপে বসেন।
নারীঃ কেন? চেপে বসবো কেন? আপনি আপনার কনুই সরান, গাঁয়ে লাগছে!
পুরুষঃ আপনি তো আমার সিটের অর্ধেক দখল করে নিয়েছেন, আমি কি করতে পারি?
নারীঃ তাই বলে আপনি আপনার কনুই কেন আমার গাঁয়ের সাথে লাগাবেন! ফাইজলামি নাকি?
পুরুষঃ শুনেন এক কাজ করেন..
নারীঃ কি কাজ?
পুরুষঃ আপনি আশে-পাশের মানুষকে আমার নামে কমপ্লেন করেন। যে আমি আপনাকে বিরক্ত করছি!
নারীঃ কেন কমপ্লেন করবো কেন? দরকার নাই আপনি একটু চেপে বসুন।

দুজনেই আবার চুপ। এবার আবার অন্য যাত্রীরা উশখুশ করতে লাগলো, তাকাতে লাগলো ওই নারী-পুরুষের দিকে, একে অন্যদের দিকে জিজ্ঞাসু ভঙ্গিতে তাকাতে থাকলো। নারী-পুরুষ ও সেটা দেখতে লাগলো। কিন্তু চুপচাপ!

আবার শুরু হল……

পুরুষঃ আচ্ছা আপনার বাসায় কে কে আছে?
নারীঃ কেন?
পুরুষঃ না, এমনি-ই জিজ্ঞাসা করলাম!
নারীঃ সবাই আছে।
পুরুষঃ তাহলে কি…
নারীঃ নাহ, আমার হাজব্যান্ড অনেক ভালো মানুষ।
পুরুষঃ নাহ, ভালো হতেই পারে, তবে হয়তো…
নারীঃ ফালতু ইঙ্গিত করবেন না! নিজের চরকায় তেল দেন।
পুরুষঃ আমি কি এমন ইঙ্গিত করলাম? বললাম, মানে বলতে চাইলাম, হয়তো ঠিক জমছে না আজকাল!
নারীঃ মানে, কি জমছেনা, একদম ফালতু কথা বলবেন না!

এবার আশে পাশের মানুষজন বেশ উৎসুক আর কিছুটা বিরক্তও, কিছু বলবে বা করবে কিনা তেমন অভিব্যাক্তি! কিন্তু আবার সেই দুই নারী-পুরুষ চুপচাপ। একেবারেই! কেউ কারো দিকে দেখছেও না, যে যার মতন!

আবার… এবার নারী……

নারীঃ পুরুষের গালে আলতো করে হাত ছোঁয়াল!
পুরুষঃ আঁতকে উঠে, কি করছেন?
নারীঃ কি করছি মানে? আমার যা ইচ্ছে!
পুরুষঃ ফাইজলামি নাকি, সরান, হাত সরান! দূরে যান।

এবার বাসের লোকজন ক্ষেপে উঠলো প্রায়, কিন্তু এখনো কিছু বলেনি, শুধু ফুঁসছে, ফেটে পড়বে যে কোন সময়! নারী-পুরুষ আবার চুপ! একেবারেই। নেই কোন কথা, কোন চাহনি কারো দিকে। আজব!

এবার আবার পুরুষ……

পুরুষঃ চলেন বাসায় যাই!
নারীঃ মানে? কোথায় বাসায়? কার বাসায়?
পুরুষঃ আমার বাসায়! চলেন যাই!
নারীঃ না, আমি কেন আপনার বাসায় যাবো? আমি আমার কাজ শেষ করে আমার বাসায় যাব।
পুরুষঃ আজকে না হয় আমার বাসায়-ই গেলেন…!!
নারীঃ নাহ যাব না..

এই বার লোকজন হইহই করে উঠতেই, একটু জ্যামে বাস থামলো। আর নারী-পুরুষ দুইজন একই সাথে এই নামার জায়গা চলে এসেছে,

পুরুষঃ ভাই একটু স্লো করেন, নামবো মহিলা আছে সাথে…!
নারীঃ ড্রাইভারকে ভাই একটু সাইড করেন, নামবো তো?
হেল্পারঃ ওস্তাদ মহিলা আছে, নামাইয়া দেন।

পুরুষটি আগে নামলো…

মহিলা গেটে গিয়ে রাস্তায় বাম পা বাড়াল…

পুরুষটি নেমে তার ডান হাত বাড়িয়ে দিল…

মহিলা তার বাম হাত পুরুষটির ডান হাতে রেখে বাস থেকে নামলো!

বাস থেকে উৎসুক যাত্রীরা জানালা দিয়ে গলা বাড়িয়ে দেখতে লাগলো, আহাম্মকের মত! আজব কোন ঘটনা!

রাস্তা থেকে বাসের অন্যসব যাত্রীদের এই অদ্ভুত আর কিংকর্তব্যবিমূঢ় চেহারা দেখে সেই নারী-পুরুষ হেসেই কুটিকুটি!

কারণ? তারা দুজনেই একে-অন্যের সঙ্গী আর সঙ্গিনী!
বাসে উঠেছিল একেবারেই বাস ছাড়ার শুরুতে, দুজনেই। আর কোন যাত্রী তখন ছিলনা সেই বাসে।

যেটা বাসের হেল্পার আর ড্রাইভার জানতো শুধু!

Most Popular

To Top