নাগরিক কথা

ধন্যবাদ, ক্ষমাপ্রার্থী ও অভিনন্দন – সাকিব আল হাসান।

neon aloy সাকিব বিতর্ক নিয়ন আলোয়

প্রিয় সাকিব,
আমাদের এই দেশে গর্ব করার মতো জিনিষের খুবই অভাব, মানুষের তো আরো! যুগে যুগে, কালে কালে সেই সংখ্যা কমতে কমতে এখন প্রায় ‘বিলুপ্ত ডাইনোসর’ এর কাতারে এসে দাঁড়িয়েছে।

শুধু কি তাই! গর্ব করার মতো জিনিষ বা মানুষ কালেভদ্রে পেলেও, তাদের উপযুক্ত সম্মান দেয়ার মানসিকতার মানুষ – আমাদের বর্তমান ‘কুইক জাজমেন্টাল’ সমাজে বাঘের দুধের চেয়েও দূস্প্রাপ্য। দু:খজনক হলেও সত্যি, এই মানসিকতায় আমরা পৃথিবীর সবচেয়ে দরিদ্র দেশটির চেয়েও দরিদ্র!

আপনাদেরকে ভালোবেসে আমরা নাম দিয়েছি “টাইগার”। সারা দুনিয়াময় আপনারা আমাদের পতাকাটা গায়ে জড়িয়ে – আমাদের সম্মানটুকু তুলে রাখেন মাথার উপর। শারীরিক আর মানসিক চাপের সবটুকু ঢেলে আমাদের ভাসান আনন্দ অশ্রুতে, একবার না বারবার। দলগত হিসাব বাদ দিয়েও, আপনি ব্যাক্তিগতভাবে সারা দুনিয়ার ক্রীড়াজগতে আমাদের কথা বলার, গর্ব করার সুযোগ করে দিয়েছেন – সেটা একবার না বারবার। অসংখ্য ধন্যবাদ আর কৃতজ্ঞতা আপনার প্রতি।

কিন্তু এদেশের মানুষের নীচতার সাথেও নিশ্চিত আপনি এতদিনে পরিচিত। এই জাতি মোহনলালের মতো সেনানায়ক যেমন জন্ম দিয়েছে, তেমনি ঘসেটি বেগম আর মীরজাফরের জন্মও এই মাটিতেই। শুধু আফসোস, কালের স্রোতে পরের দুইজনের বংশধরদের আধিক্যই এই সময়ে দেখা যায়।

নিজেদের ব্যাক্তি জীবনের নানাধরনের হতাশা, অপ্রাপ্তি আর চাওয়া-পাওয়ার ব্যাপক গরমিল থেকেই আমরা আজ ভার্চুয়াল জগতে অন্যের জীবনের খুঁতগুলো – দোষগুলো ধরার জন্য সর্বক্ষণ ওঁত পেতে থাকি। যেখানে এই অকর্ম থেকে পাড়ার সলিমুল্লাহ-কলিমুল্লাহ-মহাদেব-সাহাদেব এর জীবন চরিত বাদ যায় না, সেখানে আপনারা তো দেশবিখ্যাত-জগৎবিখ্যাত মানুষ। আমাদের সেই দুর্গন্ধময় অভ্যাসের কিছু কাদা আপনাদের গায়ে না ছিটিয়ে আমাদের এই অতৃপ্ত আত্মা সুখী করার আর কোন উপায় আমরা প্রায় ভুলেই গিয়েছি।

আর সফল ব্যাক্তিদের চূড়ান্ত রকমের অসম্মানিত করার রেওয়াজ তো আমাদের আজকের না। মহাত্মা গান্ধী’র মতো মানুষকে সমকামী বলে- চরিত্রের তুষ তুলতেও আমরা ছাড়িনি, আর তো আপনি!

সত্যিই আমরা ক্ষমাপ্রার্থী বারবার আপনাকে-আপনাদেরকে এই ঘরের মাঠেই এত বারবার অসম্মান অপদস্থ করার জন্য। দিনশেষে নিজেদের সকল ব্যার্থতা, অপ্রাপ্তির জ্বালা, আর বুকভরা হিংসা কমাতেই এই সমাজের মানুষগুলো আপনার – আপনাদের মতো সাফল্যের চূড়ায় উঠে যাওয়া মানুষগুলোকে, তাদের চরিত্রকে টেনে-হিঁচড়ে কাদায় নামাতে ব্যস্ত হয়।

কিন্তু আপনি নিজেকে সেই অসভ্যদের কাতারে না নামিয়ে, আপনার গৃহভৃত্যের সাথে একসাথে খেতে বসেছেন সেটা অনেক বড় ব্যাপার। মুখে যত বড় বড় কথা-ই বলি না কেন, সমাজে আমার মতো নিতান্তই অপ্রয়োজনীয় মানুষও কখনোই আমার বাড়ির কাজের মানুষের সাথে এখনো এক টেবিলে বসে খাইনি।

সেটা আপনি করে দেখিয়েছেন এবং তারচেয়ে বড় কথা, এ দিয়ে আমাদের সমাজের মানুষদের চিন্তাচেতনার নোংরামিকে-দারিদ্র্যকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন। যদিও দিনশেষ এ কিছুই হয়তো বদলাবে না। কিন্তু আমরা অন্তত জানতে তো পারলাম যে, সবাই শুধু খেলার র‍্যাংকিং-এই ১ নম্বর হয়না, মানুষ হিসাবেও হয়।

জয়তু আমাদের বিশ্বের ১ নম্বর অলরাউন্ডার, অসংখ্য অভিনন্দন আপনাকে।

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top