ফ্লাডলাইট

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ কি ঘুমন্ত?

neon aloy জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ নিয়ন আলোয়

বাংলাদেশের আর সকল স্টেডিয়ামের মতই নারায়নগঞ্জের ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামেরও প্রকৃত মালিক বিসিবি না। স্টেডিয়ামের মালিক জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ। বিসিবি বলা যায় “ভাড়াটে”। ঢাকা আর চট্টগ্রামের পর দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভেন্যু ফতুল্লা। বেশ কয়েকবছর যাবৎ বড় কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ না হলেও নিয়মিত আন্তর্জাতিক বিভিন্ন দল এই স্টেডিয়ামে আসে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার জন্য। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের একটা অলিখিত নিয়ম হচ্ছে মূল ভেন্যুতে কখনোই প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সুযোগ পায়না অতিথি দল। যার কারনে প্রায় সব দেশেই এমন একটি স্টেডিয়াম থাকে যেটি আন্তর্জাতিক মানের এবং সেখানে সাধারণত প্রস্তুতি ম্যাচ হয়ে থাকে। যেমন, ভারতের ব্রাবোর্ন স্টেডিয়াম, শ্রীলংকার মোরাতোয়া স্টেডিয়াম। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে সেটি ফতুল্লা স্টেডিয়াম। সর্বশেষ আফগানিস্তান এবং ইংল্যান্ড সফরের সময়েও এখানে দল দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে গেছে। এছাড়া অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ, ২০১১ বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচ, এশিয়া কাপ, টি টুয়েন্টির ওয়ার্ম আপ ম্যাচ এখানে হয়েছে। সামনে বড় কোন বহুজাতিক টুর্নামেন্ট হলে আবারো ফতুল্লায় অন্তত বাছাই পর্ব হবে (যেমন লাস্ট এশিয়া কাপ)

যেহেতু আন্তর্জাতিক দল এখানে নিয়মিত আসে তাই এখানকার সুযোগ সুবিধা সব সময় সেই মানের থাকতে হয়। কিন্তু ফতুল্লার চারপাশ এখন হাঁটু সমান পানি! ডুবে আছে আউটার স্টেডিয়াম, অনুশীলন মাঠ। আউটার গ্রাউন্ডে একসময় প্রথম শ্রেনীর ক্রিকেট, লিস্ট “এ” ম্যাচ হতো। এমনকি গত বছর এশিয়া কাপের বাছাই পর্বের একটা ম্যাচও হয়েছে আউটার গ্রাউন্ডে। সেটা এখন হাটু সমান পানির নীচে তলিয়ে আছে। স্টেডিয়ামে ঢোকার মুখে বালির বস্তা ফেলে রাখা হয়েছে, কাদা-পানি এড়িয়ে বালির বস্তায় পার হতে হয়। আশেপাশের কলকারখানার বিষাক্ত রাসায়নিক বর্জ্য পদার্থ, দূষিত পানি, নর্দমার পানি বৃষ্টির পানির সাথে মিশে ভয়াবহ দূর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। চারপাশের ভয়াবহ জলাবদ্ধতার জন্য স্টেডিয়ামের ভেতরের পানি যে ড্রেন দিয়ে বের হয় সেটাও ভরে গেছে, ফলে বাউন্ডারি লাইনের বাইরে গ্যালারী লাগোয়া অঞ্চল, সাইট স্ক্রিন, বিজ্ঞাপন বোর্ডের পেছনের জায়াগায় জমে গেছে পানি। আরো কিছুদিন বৃষ্টি হলে হয়তো প্লেয়িং ফিল্ডের পানি আর সরে যাবার জায়গা পাবেনা, জমে থাকবে ভেতরই।

প্রশ্ন বিসিবির দায়িত্ব কি? শুধু ফতুল্লা না সব স্টেডিয়ামে বিসিবির দায়িত্ব আমার জানামতে গ্রাউন্ডস আর ব্যাসিক কিছু ফ্যাসিলিটিজ (যেটুকু ম্যাচ চালানোর জন্য লাগে), ফতুল্লায় এইগুলাতে কোন সমস্যা নাই। মাঠ ভালো আছে, আউট ফিল্ডে পানি জমেনা। ড্রেসিং রুম, অফিশিয়াল রুম ইত্যাদি সমস্যা নেই। সমস্যা হচ্ছে জলাবদ্ধতা দূর করা বিসিবি’র কাজ না, এটা স্টেডিয়ামের মূল মালিক জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কাজ। আউটার গ্রাউন্ড, রাস্তা, ড্রেন, গেট মানে মাঠটুকু বাদে সব কিছুর দায়িত্ব ক্রীড়া পরিষদের! তবুও ভাড়াটে হিসেবে বিসিবি অনেক কিছু নিজেরাই করে থাকে। জলাবদ্ধতা নিরসন এবং আশেপাশের ময়লা নোংরা পানি স্টেডিয়ামে যাতে না আসে সেটা দেখার দায়িত্ব নারায়নগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের। বিসিবির পক্ষ থেকে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ এবং নারায়নগঞ্জ সিটির মেয়র বরাবর কয়েক দফা চিঠি দিয়েও লাভ হয়নি।

অবশেষে অস্ট্রেলিয়া যদি আসে তাহলে প্রস্তুতি ম্যাচ ফতুল্লা থেকে সরিয়ে বিকেএসপি’তে নেওয়ার মানসিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিবি। ভবিষ্যতে বর্ষার মৌসুমে ফতুল্লা হয়ে যেতে পারে খেলাহীন।

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ কি ঘুমিয়ে থাকে? কয়েক মাসেও কোন ব্যবস্থা নেয়না! ক্রীড়া মন্ত্রনালয় কি জানে ফতুল্লার কি অবস্থা এখন! বিসিবি আছে বলে সবাই কি ঘুমায়? আমার জানামতে অন্য কারো জায়গায় খোঁড়াখুঁড়ি বা উন্নয়ন করার ক্ষমতা বিসিবির নেই। এসব কাজের বাজেট, টেন্ডার সবই ক্রীড়া পরিষদের মাধ্যমে হয়ে থাকে। ফতুল্লা অনেকদিন ধরেই বিসিবি’র উপর দিয়ে চলছে, ২০০৪ সালে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের আগে বড় একটা আর্থিক অনুদান আসে আইসিসি’র কাছ থেকে, তখন একদফা সংস্কারকাজ হয় এখানে। তারপর বিশ্বকাপের রিজার্ভ ভেন্যু বাবদ প্রায় ৭৫ কোটি টাকা পায় ফতুল্লা আর খুলনার আবু নাসের স্টেডিয়াম, সেটাও আইসিসি’র কাছ থেকে। এই টাকা দিয়ে গ্রাউন্ড আর ড্রেনেজ সিস্টেম, ড্রেসিং রুম, ভিআইপি বক্স ইত্যাদি উন্নত করা হয়। সব যদি আইসিসি আর বিসিবি করে তাহলে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ কি করবে? নাসিক মেয়রকে চাপ দিয়ে জলাবদ্ধতা আর নর্দমার পানির লাইন পরিষ্কার করাবে, আশেপাশের দুটি খাল খনন করিয়ে নোংরা পানি নামানোর ব্যবস্থা করবে এটাই পারছে না?

ফতুল্লা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা ভেন্যু, যেকোন ইমার্জেন্সীতে ঢাকায় খেলা না হলে ঢাকার হোটেল থেকে যেয়েই খেলা যাবে এমনই একটা স্টেডিয়াম ফতুল্লা। আন্তর্জাতিক ম্যাচ না হলেও আন্তর্জাতিক দলের সাথে বিসিবি একাদশের প্রস্তুতি ম্যাচ অন্তত নারায়নগঞ্জের মানুষ দেখতে পেয়েছে। এখন কি সেটাও বন্ধ হয়ে যাবে?

Most Popular

To Top