নাগরিক কথা

আবারও পাহাড়ে আগুন!

পাহাড়ে আগুন নিয়ন আলোয় neon aloy

বেশ কয়েকমাস আগেও পাহাড়ে একজন সেটেলার বাঙালির লাশ পাওয়া গিয়েছিলো। পাহাড়ে সেটেলারের লাশ মানেই একশ্রেণীর সুবিধাবাদীদের জেগে ওঠা। হত্যা যেই করুক না কেন, শুরু হয়ে যায় পাহাড়িদের উপর অত্যাচার, লুন্ঠন, ধর্ষন, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট। পুলিশ তদন্তে নামলো, খুনের রহস্য উদঘাটিত হলো, ব্যবসায়িক জেরের কারনে সেটেলারের হাতে সেটেলার খুন হয়েছে। তাহলে পাহাড়িদের সব বাড়িঘর জ্বালিয়ে দিলেন কেন, আর ক্ষতিপুরণ কে দিবে?

পাহাড়ে আগুন নিয়ন আলোয় neon aloy

আগুনে পুড়ছে পাহাড়িদের ঘরবাড়ি

গতকাল খবর পেলাম দিঘীনালায় আবার এক সেটেলারের লাশ পাওয়া গেছে, তার বাড়ি রাংগামাটি জেলার লংগদুতে। পাহাড়ি-বাঙালি সবাই চাচ্ছে যে-ই খুন করে থাকুক, তার যেন প্রকৃত বিচার হয়। প্রশাসন ভালভাবেই জানে, প্রতিবারের মত এবারও একশ্রেণীর লোক এটাকে ইস্যু করে শুধুমাত্র পাহাড়িদের বাড়িগুলোতে লুটপাট, অগ্নিসংযোগ, ধর্ষন, দখলবাজি এসবের জন্য উঠে পড়ে লাগবে। হয়েছেও তাই।

পাহাড়ে আগুন নিয়ন আলোয় neon aloy

মেসেঞ্জারে সাহায্য চাওয়া এই মানুষগুলোকে আমরা কি জবাব দিব?

গতকাল রাতেও যাদের সাথে কথা হয়েছে, তারা অনেকেই সকালে উঠে বলছে- “দাদা, আমার বাড়িঘর সব জ্বালায় দিয়েছে। মা আর বোন কোনরকম পালিয়ে এসেছে, বাবা বাসায় ছিলো। বাবাকে ওরা কি করেছে জানি না, এখনো খোঁজ পাচ্ছি না।” তাকে আমি কি জবাব দিবো, কি পরামর্শ দিবো? আর সে জবাব চাইবেই বা কার কাছে?

পাহাড়ে শুধু একটা ইস্যু কোনভাবে তৈরি হলেই হলো, আদিবাসীদের ঘরবাড়ি, টাকাপয়সা, নারী-শিশু সব যেন গনিমতের মাল। যার যেটা ইচ্ছে নিয়ে যাবে, জ্বালিয়ে-পুড়িয়ে দিবে, লুটেপুটে খাবে। কিছুদিন পরপরই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটবে। কিন্তু আর কত?

হাজার-হাজার মানুষ বাড়িভিটা ছেড়ে প্রাণভয়ে পালাচ্ছে। লংগদুর তিন মৌজার হেডম্যান, এবং চেয়ারম্যান কুলীন মিত্র চাকমার হেডম্যন অফিসসহ সবকিছুতে আগুন লাগিয়ে দেয়া হয়েছে। কুলীন মিত্রের কোন খোঁজ এখনো পাওয়া যায়নি।

এখানে একজন সেটেলার মারা গেলেই শুরু হয় আদিবাসীদের উপর গণহত্যা, ধর্ষন, অগ্নিসংযোগ। আর কত? এর আগেও এই লংগদুতে গণহত্যা হয়েছে। লোগাং, দিঘীনালা, পানছড়ি, ন্যানারচর, মারিশ্যা কোথায় গণহত্যা হয়নি? সমতলবাসীরা এসব অন্যায়, অবিচার, অত্যাচারের কথা তেমন কিছুই জানে না, কিংবা জানতে দেয়া হয় না। সময় এসেছে, আপনারা জানুন, এই দেশটা পাহাড়ি-বাঙালি সকলের। একজন মানুষকে কে খুন করেছে কেউ জানে না, অথচ কাল খুন হলো আর আজই হাজার-হাজার আদিবাসীদের ঘর-বাড়িতে আগুন দিতে হবে কেন? যদি কোন পাহাড়ি এই খুন করে থাকে, তাকে খুঁজে বের করে শাস্তি দিন। হাজার-হাজার নিরপরাধ মানুষের ঘরবাড়ি জ্বালানোর মানে কি?

পাহাড়ে আগুন নিয়ন আলোয় neon aloy

ঘরবাড়ি ছেড়ে পালাতে বাধ্য হচ্ছে পাহাড়িরা

১৯৭১ সালের মত পরিস্থিতি হয়ে গেছে। প্রশাসন এবং সেনাবাহিনীর সহায়তায় আজ হাজার-হাজার বাড়িঘর পুড়িয়ে দেওয়া হলো। অগ্নিসংযোগ-লুটপাট সব শেষ হওয়ার পর এখন ১৪৪ ধারা জারি করার মানে কি? সেনাবাহিনীর কাজটা কি পাহাড়ে? শুধুমাত্র চাঁদা খাওয়ার জন্য এদেরকে দিনের পর দিন পাহাড়ে রেখেছেন? সেনাবাহিনী উপস্থিত থাকতে আজ কেন হাজার-হাজার বাড়িঘরে অগ্নিসংযো্‌গ লুটপাট করা হলো, এর জবাব কে দিবে? রাষ্ট্র কি জবাব দিবে? সরকার কি জবাব দিবে? ক্ষতিপূরণ কে দিবে?

যেখানে পিতার অপরাধের শাস্তি পুত্র বহন করে না, সেখানে অজ্ঞাত একজনের করা অপরাধের শাস্তির দায় হাজার নিরপরাধ সাধারণ পাহাড়ি কেন নিবে? জবাব কার আছে চাইবো- আমাকে জানাবেন কি?

দয়া করে ২০১৭ সালে এসে দেশের মানুষকে ১৯৭১-এর ভয়াবহতা দেখাবেন না। দমন, শোষন, অন্যায়, অবিচার, অত্যাচার, লুটপাট, ধর্ষণ কখনোই একটা রাষ্ট্রের জন্য ভাল কিছু বয়ে আনবে না। পাকিস্তানের জন্য এগুলো যেমন ভালকিছু বয়ে আনেনি, তেমনি আমাদের সবার প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশের জন্যেও ভাল কিছু বয়ে আনবে না। আমরা চাই শান্তি। এই দেশে সব ধর্মের, সব জাতির লোক সমান অধিকার নিয়ে বেঁচে থাকবে, এই জন্যই তো আমরা মুক্তিযুদ্ধ করেছিলাম, তাই নয় কি?

কিছু দখলবাজ সেটেলার বাঙালির কুকর্মের দায় দেশের সাধারণ বাঙালিরা কেন নিবে? এই দায়মোচন করতে তাই আজ দল-মত নির্বিশেষে সব বাঙালিদের এগিয়ে আসতে হবে।

সবার শুভবুদ্ধির উদয় হোক।

লেখকঃ রেজাউল করিম সুমন

[এডিটরস নোটঃ নাগরিক কথা সেকশনে প্রকাশিত এই লেখাটিতে লেখক তার নিজস্ব অভিজ্ঞতার আলোকে তার অভিমত প্রকাশ করেছেন। নিয়ন আলোয় শুধুমাত্র লেখকের মতপ্রকাশের একটি উন্মুক্ত প্ল্যাটফরমের ভূমিকা পালন করেছে। কোন প্রতিষ্ঠান কিংবা ব্যক্তির সম্মানহানি এই লেখার উদ্দেশ্য নয়, বরং একটি ভয়াবহ অসঙ্গতির বিরুদ্ধে প্রবল গণসচেতনতা গড়ে তোলাই একমাত্র উদ্দেশ্য। আপনার আশেপাশে ঘটে চলা কোন অসঙ্গতির কথা তুলে ধরতে চান সবার কাছে? আমাদের ইমেইল করুন neonaloymag@gmail.com অ্যাড্রেসে।]

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top