ফ্লাডলাইট

কাঁচা পয়সা কি কিনে নেবে ক্রিকেটের ঐতিহ্য?

গতকাল আইসিসি সভায় বিষয়টা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়েছে। একাধিক বোর্ডের প্রতিনিধিরা বিষয়টা তুলে ধরেছেন। সভায় বলা হয়েছে আইপিএলের কারনে অস্ট্রেলিয়াসহ ৬ দেশের হোম সিরিজ আয়োজন অসম্ভব কঠিন হয়ে গেছে।

এই বছর সাউথ আফ্রিকা তাদের ফ্রাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি-টুয়েন্টি লীগ চালুর ফলে অন্য আরো একটি বোর্ড তাদের হোম সিরিজ আয়োজন সমস্যা হবে বলে জানিয়েছে। আইপিএল দশ বছর আগের টুর্নামেন্ট, এটার জন্য আইসিসি এবং অন্যসব দেশ একটা জায়গা রাখে এপ্রিল-মে মাসে। কিন্তু এখন প্রায় সব দেশের নিজস্ব টি-টুয়েন্টি লীগ থাকায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য সময় কমে যাচ্ছে। সবচেয়ে বেশি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট হয় অক্টোবর থেকে মার্চ মাসে। ওই সময় আগে থেকেই বিপিএল ছিলো। এখান সাউথ আফ্রিকার লীগের জন্য ৬ সপ্তাহ প্লেয়াররা ব্যস্ত থাকবে। আবার গতবছরের চেয়ে দল এবং ম্যাচ বাড়ায় পিএসএলের জন্য লাগবে ৮ সপ্তাহ। সবচেয়ে বেশি ঝামেলা এই দুটি লীগ নিয়েই।

গত ফেব্রুয়ারী মাসে সব বোর্ডের প্রধান নির্বাহীরা এফটিপি তৈরী করেছে খসড়া, সেখানে ১২ দলের দুই বছর মেয়াদী টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ এবং ১৩ দলের তিন বছর মেয়াদী ওয়ানডে চ্যাম্পিয়নশীপ প্রস্তাব করা হয়। কিন্তু সব দলের এফটিপি মিলিয়ে দেখা গেছে এই প্রস্তাব অবাস্তব! কারন দেখা গেছে অতিরিক্ত কাছাকাছি সময়ে একটা দলের দুটি সিরিজ পড়ছে, বড় বড় দলের সিরিজ ওভারল্যাপিং হচ্ছে, অফসিজনে খেলা পড়ছে (যেমন তীব্র শীতে অস্ট্রেলিয়ায়, ভরা বর্ষায় বাংলাদেশে), এমন দেখা গেছে চারদিনের ব্যবধানে বিশ্বের দুই প্রান্তের দুই মহাদেশে সিরিজ পড়ছে কোন এক দেশের, আবার টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে পড়ছে টেস্ট সিরিজ ফলে পর্যাপ্ত অনুশীলন হবে না। তাছাড়া আন্তর্জাতিক এবং টি-টুয়েন্টি লীগ বাদেও সবার ঘরোয়া ক্রিকেট আছে।

সব মিলিয়ে আইসিসি টেস্টের সংখ্যা কমানোর কথা ভাবছে, ওয়ানডে এবং টি-টুয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচের জন্য জায়গা রাখতে হবে টেস্ট কমিয়ে! আইসিসি জেনারেল ম্যানেজার জিওফ এলারডাইস বলেছেন, পাঁচ বা চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ভবিষ্যতে আর হয়তো সম্ভব না, আইসিসি দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের কথা ভাবছে প্রিমিয়ারশীপ ফুটবলের মতো।

এক আইপিএলের জন্য অন্তত ৬ দেশ দুই মাস ক্রিকেট খেলতে পারেনা! ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলংকার হোম সিজন দুই মাস পিছিয়ে জুন অথবা জুলাই মাসে শুরু হয় এখন, যখন দুই দেশেই বর্ষাকাল শুরু হয়।

আন্তর্জাতিক দল গুলার ভেতর একমাত্র অস্ট্রেলিয়া বিগব্যাশ এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেট একসাথে চালাতে আগ্রহী, তারা সেটা করেও আসছে। অন্যকোন দল টি-টুয়েন্টি লীগ এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেট একসাথে চালাতে আগ্রহী না।

২০১৭ এর টি-টুয়েন্টি লীগ সমূহের ক্যালেন্ডার (ক্রিকইনফো- হতে সংগ্রহকৃত)।

২০১৭ এর টি-টুয়েন্টি লীগ সমূহের ক্যালেন্ডার (ক্রিকইনফো- হতে সংগ্রহকৃত)।

প্লেয়ারদের সামনেও এখন দেশ না টি-টুয়েন্টি লীগ প্রশ্ন সামনে চলে আসছে। আয়ারল্যান্ডের ট্রাই নেশনে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়কসহ দশজন থাকবে না আইপিএলের জন্য। বেন স্টোকস এবং আরো দুইজন ইংলিশ প্লেয়ার খেলবে না আয়ারল্যান্ডের সাথে ওয়ানডে সিরিজ। কার্লোস ব্রাথওয়েট, স্যামুয়েল বাদ্রিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ছেড়েছে আইপিএলের জন্য।

অর্জুনা রানাতুঙ্গার কথা মনে পড়ে, তিনি বলেছিলেন টি-টুয়েন্টি দুই মিনিটের ম্যাগী নুডুলস, জাঙ্ক ফুড। আর টেস্ট মায়ের হাতের আদর্শ খাবার। তিনি বলেছিলেন টি-টুয়েন্টি মেধাহীন খেলা, এর জন্য কোন আদর্শ টেকনিক লাগেনা। টি-টুয়েন্টি আগামীতে টেস্ট ক্রিকেট ধ্বংস করবে।

আর বাস্তবে শুধু টেস্ট না সব রকমের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের উপর আগ্রাসন চালাবে এই টি-টুয়েন্টি লীগসমুহ। কারন আইসিসি সভায় একজন প্রস্তাব করেছেন এখন থেকে সব সফর দুই টেস্ট, তিন ওয়ানডে আর সর্বোচ্চ দুটি টি-টুয়েন্টি ম্যাচের হতে পারে। আমাদের সমস্যা নাই, আমরা এমনই ছোট ছোট সিরিজ খেলেই অভ্যস্ত কিন্তু এশেজের কি হবে (পাঁচ টেস্ট), বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির কি হবে (চার টেস্ট)??

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top