ফ্লাডলাইট

মুদ্রার সুন্দর পিঠটার সাথেই আবার দেখা হোক তবে

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা প্রথম টেস্ট ২০১৭ রিভিউ নিয়ন আলোয় neon aloy

ভারত মহাসাগরের কূলে অবস্থিত গল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের পিচ কি দিয়ে তৈরিআর কেনই বা সেখানকার সর্বোচ্চ স্কোর ৬৩৮-এর পাশে সর্বনিম্ন স্কোর ৭৯, কেনই বা সেখানে রানের পাহাড় গড়া ও বালির পাহাড়ের মত হুড়মুড়িয়ে ভেঙ্গে পড়া দুটোই খুব সহজ- এসব প্রশ্নের বৈজ্ঞানিক বা ক্রিকেটীয় উত্তর অনেকভাবেই দেয়া সম্ভব।

তবে বাংলাদেশী ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে এসব প্রশ্ন নেই। বরং তাদের মনে উঁকি দিচ্ছে সম্পূর্ণ ভিন্ন সব প্রশ্ন, ৫ বছর আগের ৬৩৮-টাকে ছাড়িয়ে নতুন ইতিহাস লেখা হবে কি? কিংবা প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির মত প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরিটাও কি এখান থেকেই আসবে? কে করবেন? তামিম ইকবাল, নাকি এবারও মুশফিক? নাকি একেবারে অপ্রত্যাশিত কেউ?

গল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে সেই ১৯৯৮ সাল থেকে খেলা হয়েছে ২৮টি টেস্ট। এর ভেতরে শ্রীলংকা জিতেছে ১৬টিতেহেরেছে ৬টিতে। আর ড্র ৬টি।

মুদ্রার এক পিঠে ৬৩৮ এর মত স্কোর যেমন হয়েছেতেমন অপর পিঠে জিম্বাবুয়েকে ৭৯ইংল্যান্ডকে ৮১ কিংবা এই গত বছরই একই টেস্টে অস্ট্রেলিয়াকে ১০৬ ও ১৮৩ এর মত অপমান সইতে হয়েছে।

 

মুশফিকুর রহিম নিয়ন আলোয় neon aloy

৫ বছর আগে গলে দেশের হয়ে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করে এভাবেই উচ্ছ্বসিত হয়েছিলেন মুশফিকুর রহিম।

আমরা এর আগে গলে টেস্ট খেলেছি মাত্র একটি। ৫ বছর আগে। দেখেছি অবশ্য মুদ্রার সুন্দর পিঠটাকেই৬৩৮ রান করে এই স্টেডিয়ামের সর্বোচ্চ স্কোরের রেকর্ডটা নিজেদের করে নিয়েছি। এমনকি খোদ শ্রীলঙ্কারও ৬০০ এর ওপরে কোন স্কোর নেই এই মাঠে। ঐ ইনিংস আমাদের এনে দিয়েছিল টেস্ট ক্রিকেটে আমাদের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিজন্ম দিয়েছিল মিস্টার ডিপেন্ডেবলমুশফিকুর রহিমকে।

 

সেই টেস্টের মাত্র তিনজন আছেন এবারের দলে। মুশফিকুর রহিমমুমিনুল হক ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। নেই সেঞ্চুরি করা নাসিরনেই মোহাম্মদ আশরাফুল যিনি তার জীবনের আরো অনেক কিছুর মত সেদিনও ছুঁড়ে ফেলে এসেছিলেন তার প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিটিকে। তবে এবারের দলটিতে সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল আছেনযারা সেই টেস্টে থাকলে ইতিহাস হয়তো আরো মধুর হত। 

বদলে গেছে আরো অনেক কিছু। তামিম ইকবাল বনে গেছে সহ-অধিনায়কইংল্যান্ডকে টেস্ট ম্যাচে হারিয়েছি আমরা, টেস্ট ক্রিকেটে দেখা মিলেছে আরো দু’টো ডাবল সেঞ্চুরিরভারতের মাটিতে খেলে ফেলেছি প্রথম টেস্ট ম্যাচ। তবে সবচেয়ে বড় বৈপ্লবিক বদল যেটি- অধিনায়ক মুশফিক কিপিং ছেড়ে নামবেন বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবেযে সিদ্ধান্তটা আরো কিছু সময় আগে নিলে হলে হয়তোবা তার নামের পাশে লেখা হত আরো ২-১টি ডাবল সেঞ্চুরি। 

যদি‘, ‘হয়তো‘, ‘কিন্তুএর কথা বাদ দিয়ে আশা-ভরসার কথা বলা যাক। আগের টেস্টটির মতই গল এবারও আমাদের দুহাত ভরে দিক, এটাই কাম্য। সাথে বরাবরের মত টাইগারদের কাছে অনেক কিছু আশা করছিআবার আরো অনেক কিছু আশা করছিও না। 

কি কি আশা করছি বা করছিনা একটু দেখা যাকঃ

আশা করছি নাঃ ৬৩৮ কে ছাড়িয়ে যাওয়া।
আশা করছিঃ একটা ভালো প্রথম ইনিংসের সংগ্রহ।

আশা করছি নাঃ একটা ডাবল বা ট্রিপল সেঞ্চুরি।
আশা করছিঃ উইকেটে থেকে কত বেশি বল খেলা যায় তার প্রচেষ্টা।

আশা করছি নাঃ দুর্দান্ত ফিল্ডিং।
আশা করছিঃ ফিল্ডিং করার সময় পুরো ১১ জন মিলে খেলায় থাকার চেষ্টা।

আশা করছি নাঃ আক্রমণাত্মক অধিনায়কত্ব।
আশা করছিঃ সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়া।

আশা করছিনাঃ সেরা ইনিংস বা সেরা বোলিং ফিগারকিংবা দুর্দান্ত কোন ক্যাচ।
আশা করছিঃ নিজের সামর্থ্যের সবটুকু দিয়ে ব্যাটিং, বোলিং বা ফিল্ডিং করা।

বেশি কঠিন নয়ছোটখাট কিছু কাজ দেখতে চাই টাইগারদের কাছ থেকে যা আমাদের মুদ্রার কদর্য অপর পিঠ দেখা থেকে বিরত রাখবেআমাদের সেশন জেতাবেএমনকি ম্যাচটাও জেতাতে পারে। সিরিজের নাম যেখানে জয় বাংলা‘, সেখানে এই ছোটখাট ব্যাপারগুলো আশা করা কি খুব বেশি হয়ে গেল?

 

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top