ফ্লাডলাইট

ক্রিকেট মাঠের বিখ্যাত সব স্যালুট

ক্রিকেট স্যালুট নিয়ন আলোয় neon aloy

সদসমাপ্ত বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচের শেষ দিনে বেন স্টোকসের উইকেট তুলে নেওয়ার পর সাকিব আল হাসানের স্যালুট নিয়ে মেতে আছে পুরো ক্রিকেটবিশ্ব! সেই ওয়ানডে সিরিজ থেকে স্টোকসের সাথে বাংলাদেশী খেলোয়াড়দের বিবাদ-বচসা ও মাঠের স্লেজিং-এর এরচেয়ে ভাল জবাব আর হতে পারতো না হয়তো।

তবে ক্রিকেট ইতিহাসে প্রতিপক্ষকে স্যালুট দিয়ে বিদায় জানানোর এটাই প্রথম ঘটনা না। এমনকি বেন স্টোকসই এই নিয়ে দ্বিতীয়বারের মত স্যালুট নিয়ে মাঠ ছাড়লেন। তবে এসব স্যালুটের প্রত্যেকটাই ব্যাংগাত্মক ছিলো না। ক্রিকেট মাঠের আলোচিত সব স্যালুটের ভিডিও নিয়েই এই সংক্ষিপ্ত ফিচার।

 

১। বেন স্টোকসকে সাকিব আল হাসানের স্যালুট

ঘটনার সূত্রপাত বাংলাদেশ বনাম ইংল্যান্ড দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে। বেন স্টোকসের একটি এলবিডাব্লিউ’র আবেদন রিভিউয়ের অপেক্ষায় পাশাপাশি দাঁড়িয়ে ছিলো বাংলাদেশ দল এবং ইংল্যান্ডের দুই ব্যাটসম্যান। মাঠের বড় স্ক্রিনে রিভিউ’র রিপ্লে দেখামাত্র উল্লাসে ফেটে পরে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা। যা মেনে নিতে পারেননি বেন স্টোকস। মাঠের মাঝেই দৃষ্টিকটুভাবে তেড়ে যান মাহমুদুল্লাহ’র দিকে। উত্তপ্ত পরিস্থিতি আম্পায়াররা তখনকার মত সামলে নিলেও পরে ম্যাচশেষে হাত মিলানোর সময় গায়ে পরে তামিমের সাথে ঝগড়া লাগান স্টোকস। পরে প্রথম টেস্ট ম্যাচেও রিভিউ’র অপেক্ষায় থাকা সাব্বিরের সামনে দৃষ্টিকটুভাবে উল্লাস প্রকাশ করেন বেন। তখন থেকেই স্টোকসকে এক হাত দেখে নেওয়ার অপেক্ষায় ছিলো বাংলাদেশ দল। যার সবচেয়ে ভালো সুযোগ চলে আসে দ্বিতীয় টেস্টে। ম্যাচ তখন বাংলাদেশের প্রায় হাতের মুঠোয়। শেষ বাধা পুরো সফরেই দুর্দান্ত খেলতে থাকা বেন স্টোকস। তাকে দারুণ এক ডেলিভারিতে বোকা বানিয়ে সরাসরি বোল্ড করেন সাকিব। আর সাথে সাথেই পিচের এক পাশে দৌড়ে গিয়ে সামরিক কায়দায় সটান হয়ে দাঁড়িয়ে জানান এক স্যালুট।

মাঠে থাকা অবস্থায় বেন হয়তো সাকিবের এই সেলিব্রেশন দেখেননি, কারণ হতাশায় তিনি মাথা নিচু করে পিচে হাঁটু গেড়ে বসে ছিলেন। তবে পরবর্তীতে রিপ্লে দেখে এই বিষয়ে টুইট করেন ম্যাচ শেষে।

 

২। মারলন স্যামুয়েলস বনাম বেন স্টোকস

আগেই উল্লেখ করেছিলাম মাঠের মাঝে এবারই প্রথম স্যালুট সহকারে বিদায় নেননি বেন, এর আগেও এমন তিক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছে তার। গত বছরের এপ্রিলে গ্রানাডা টেস্টের ঘটনা এটি। সেই সফরে বারবার মারলন স্যামুয়েলসকে উত্যক্ত করে আসছিলেন বেন। যার প্রতিশোধ বেশ সুন্দরভাবেই নেন মারলন। সেই টেস্টে বেন আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরার পথে তার পাশে দাঁড়িয়ে মাথার হ্যাট বুকে নামিয়ে গা-জ্বলানো ভঙ্গীতে স্যালুট জানান তার প্রতিপক্ষকে।

যেটা নিয়ে সে সময় ইংলিশ মিডিয়া মারলন স্যামুয়েলসের ব্যাপক সমালোচনা করেছিল। তবে তা খুব একটা গায়ে মাখাননি। তবে পরে আইসিসি টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলার পর সংবাদ সম্মেলনে টেবিলের উপর পা তুলে আয়েশি ভঙ্গীতে জানিয়ে দেন মাঠে প্রতিপক্ষের কারো সাথেই তার কোন সমস্যা নেই, বরং সবাইকেই তিনি শ্রদ্ধা করেন। তবে কেউ যদি তাকে হেয় করে কথা বলে, তবে তাকেও ছেড়ে দেওয়ার পাত্র তিনি নন। এ সময় তার পুরনো শত্রু সেন ওয়ার্নকেও ধুয়ে দিতে ভুলননি তিনি!

পরে এক সাক্ষাৎকারে বেন স্টোকসকেও জিজ্ঞেস করা হয় মারলন স্যামুয়েলসের সাথে তার দ্বন্দ্ব নিয়ে। পুরো ব্যাপারটিকে তিনি ক্রিকেট মাঠে আবেগ এবং উত্তেজনার ফল বলেই দেখেন বলে জানান। সেই সাথে তুলে ধরেন যে শুধুমাত্র প্রতিপক্ষই নয়, সতীর্থদের কাছ থেকেও স্যালুট পাওয়ার স্মৃতিগুলো। (নিচের ভিডিওর ২:৩১- ৩:১৫ মিনিট)

 

৩। ক্রিস গেইলকে স্যামুয়েল কট্রেলের স্যালুট

স্যালুট-সংস্কৃতিতে সবচেয়ে এগিয়ে আছে মনেহয় ওয়েস্ট ইন্ডিয়ানরা। তাদের ফাস্ট বোলার শেলডন কট্রেল অহরহ একে-তাকে স্যালুট বিলিয়ে বেড়াচ্ছেন। তবে তার প্রিয় শিকার সম্ভবত ক্রিস গেইল। ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ঘরোয়া টি-টুয়েন্টি লীগে গেইলকে বোল্ড করে স্যালুট ঠুকে দেন কট্রেল।

 

৪। আবারো গেইল বনাম কট্রেল!

তবে এইবার শেষ হাসি হেসেছেন ক্রিস গেইল। তার বিরুদ্ধে সেই টি-টুয়েন্টি লীগেরই একটি ম্যাচে গেইলের কট বিহাইন্ডের আবেদনে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের অপেক্ষা না করেই স্যালুট ঠুকে দেন কট্রেল। তবে আম্পায়ার তার আবেদন পরে নাকচ করে দেন। ফলে নিশ্চিত উইকেট বঞ্চিত তো হতেই হয় কট্রেলকে, সাথে বিব্রতকর পরিস্থিতিতেও পরতে হয়।

 

৫। পাকিস্তান ক্রিকেট টিমের স্যালুট

বেন স্টোকসের উদাহরণ থেকেই বলা যায়, মাঠের খেলায় যে প্রতিপক্ষকে হেয় করে স্যালুটই দেওয়ার ইতিহাস আছে, তা- না। স্যালুটের প্রকৃত ব্যাবহার যেটা- কাউকে সম্মান জানানো, এরকম উদাহরণও আছে। যার সর্বশেষ নজির পাকিস্তান ক্রিকেট দল। এ বছর ইংল্যান্ড সফরে আসার আগে পাকিস্তান দলের জন্য এক লম্বা সামরিক অনুশীলনের আয়োজন করে তাদের ক্রিকেট বোর্ড। যার ফলাফল দেখা যাচ্ছিলো মাঠে পাকিস্তানী খেলোয়াড়দের খেলাতেই। অলস ফিল্ডিং এর জন্য কুখ্যাত পাকিস্তানি ফিল্ডাররা ইংল্যান্ড সিরিজে বেশ চটপটে আর কার্যকর ফিল্ডিং প্রদর্শন করে, আর জিতে নেয় লর্ডসে সফরের প্রথম টেস্ট ম্যাচটি। আর ম্যাচ জিতে মিসবাহ’র নেতৃত্বে পুরো দল মাঠের মাঝেই প্রতীকী সামরিক অনুশীলন করে স্যালুট দিয়ে ধন্যবাদ জানায় পাকিস্তান সেনাবাহিনীকে।

 

আপনাদের কি এমন আর কোন স্যালুটের ঘটনা জানা আছে? জানা থাকলে আমাদের জানিয়ে দিন নিয়ন আলোয় এর ফেসবুক পেজের ইনবক্সে

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top