ফ্লাডলাইট

আইসিসি’র বোলিং অ্যাকশন পরীক্ষায় উতরে গেলেন তাসকিন-সানি!

গত ৮ই সেপ্টেম্বর অস্ট্রেলিয়ারব্রিসবেন ন্যাশনাল ক্রিকেট সেন্টার ল্যাবএ বোলিং নিষেধাজ্ঞা কাটানোর পুনঃপরীক্ষা দিয়েছিলেন বাংলাদেশী পেসার তাসকিন আহমেদ ও স্পিনার আরাফাত সানি, যার ফল প্রকাশিত হয়েছে আজ। বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের জন্য সুখবর হচ্ছে, বোলিং অ্যাকশনের পূনঃপরীক্ষায় সাফল্যের সাথে ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পেয়েছেন টাইগারদের পেস এবং স্পিন অ্যাটাকের দুই নির্ভরযোগ্য তরুণ অস্ত্র।

পরীক্ষার ফলাফল অনুযায়ী, বোলিং এর সময় তাদের কারো হাতই বৈধ সীমা ১৫ ডিগ্রী কোণের চেয়ে বেশি বাঁকে না। তাই এই মুহুর্ত থেকেই আন্তর্জাতিক ম্যাচে তাদের বোলিং-এ কোন আপত্তি নেই আইসিসি’র। তবে ভবিষ্যতে ম্যাচ আম্পায়াররা আবারো তাদের অ্যাকশনের বিষয়ে সন্দেহ প্রকাশ করলে নতুন করে বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষায় নামতে হবে তাদেরকে।

অস্ট্রেলিয়ায় পরীক্ষা দিয়ে আসার ১৫ দিনের মাথায় তার ফলাফল পেলেন তাসকিনসানি। এর মধ্যে তাসকিন আহমেদ আসন্ন আফগানিস্তান সিরিজের জন্য নির্বাচকদের পরিকল্পনায় বেশ ভালভাবেই আছেন। সিরিজ শুরু হওয়ার আগেই ব্রিসবেন থেকে ইতিবাচক সংবাদ পেলে স্কোয়াডে তাসকিনের অন্তর্ভুক্তি প্রায় অনিবার্য- এরকম আভাস পাওয়া যাচ্ছিলো টিম ম্যানেজমেন্ট এবং নির্বাচকমন্ডলীর কথায়। আর আরাফাত সানি’র পরিবর্তে আফগানিস্তান সিরিজে স্কোয়াডে অন্তর্ভূক্ত হয়েছিলেন তাইজুল ইসলাম। তাই আফগানিস্তান সিরিজে শুধুমাত্র তাসকিনকে মাঠে দেখা গেলেও সানি’কে আন্তর্জাতিক ম্যাচে দেখতে অপেক্ষা করতে হতে পারে আরো কিছুদিন।

উল্লেখ্যগত টিটোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ বনাম নেদারল্যান্ড ম্যাচ চলাকালীন সময়ে তাসকিন ও সানির বোলিং অ্যাকশান নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন সেদিনকার খেলা পরিচালনাকারী আম্পায়ার রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া) ও অ্যান্ডি পাইক্রফট (জিম্বাবুয়ে)। পরবর্তীতে ভারতের চেন্নাইয়েরামচন্দ্র মেডিকেল সেন্টারএ তাসকিনসানির বোলিং অ্যাকশান নিয়ে পরীক্ষা করা হয় এবং কিছু ডেলিভারী অবৈধ প্রমাণিত হওয়ায় এই দুই বোলারকে বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার আগে পর্যন্ত সাময়িক নিষেধাজ্ঞার সম্মুখীন হতে হয়।উল্লেখ্য,আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী কোনো বোলারের বোলিং অ্যাকশান নিয়ে সন্দেহপ্রকাশ রিপোর্ট হওয়ার ১৪ দিনের ভেতর আইসিসি অনুমোদিত ল্যাবরেটরিতে অভিযুক্তদের বোলিং পরীক্ষা দেয়া বাধ্যতামূলক।

তাসকিন-সানি নিয়ন আলোয় neon aloy

“আইসিসি’র যদি আমার বোলারদের বোলিং অ্যাকশান নিয়ে সন্দেহ থাকে, তবে আমারও তাদের যাচাই পরীক্ষা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে”

এ দুই বোলারের বোলিং অ্যাকশানের উপর সন্দেহপ্রকাশ নিয়ে কোচ হাতুরেসিংহে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “আম্পায়ারদ্বয়ের তাসকিনসানির বোলিং অ্যাকশান নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে। এ ব্যাপারে আইসিসির কার্যপ্রণালী অনুযায়ী আমরা আগাবো”। তিনি আরো জানান, “তারা (তাসকিনসানি) গত ১২ মাস ধরে একইভাবে বোলিং করছে। অভিযোগকারী আম্পায়াররা যদি তাদের খেলা (তাসকিনসানি) আগেও পরিচালনা করে থাকেন তবে তারা গতকাল ভিন্ন কিছু দেখেছেন”। উল্লেখ্যঅভিযোগকারী দুই আম্পায়ার(টাকারপাইক্রোফট) গত বছর অনুষ্ঠিত বাংলাদেশভারতের ওয়ানডে সিরিজ পরিচালনা করেন যেখানে বাংলাদেশ ভারতের বিপক্ষে ২১ ব্যবধানে সিরিজে জয়লাভ করে।

এমনকি সেই টুর্নামেন্টে ২১ মার্চ ভারতের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের ঠিক একদিন আগে ১৯ তারিখ আইসিসি’র এই আকস্মিক ঘোষণা মানসিকভাবে প্রচন্ড ক্ষতিগ্রস্ত করে বাংলাদেশ দলকে, যা পরিষ্কার ফুটে উঠেছিলো ২০ মার্চে মাশরাফি’র ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে।

তাসকিন-সানি নিয়ন আলোয় neon aloy

দলের নির্ভরযোগ্য দুই স্ট্রাইক বোলারের আকস্মিক নিষেধাজ্ঞা মেনে নিতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে মাশরাফিকে

তাসকিনসানির নিষেধাজ্ঞার পরপরই বিসিবি প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী জানান, তাসকিনসানির বোলিং পুনঃপর্যালোচনা করার জন্য বিসিবি’র পক্ষ থেকে আইসিসি’র কাছে আবেদন করা হয়েছিলো। এ ব্যাপারে বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজুমুল হাসান আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেভিড রিচার্ডসনের সাথে কথা বলেন। যদিও পরবর্তীতে এ আবেদন নামঞ্জুর করা হয়।

তাসকিন-সানি নিয়ন আলোয় neon aloy

অনলাইনে প্রতিবাদের পাশাপাশি রাস্তায় নেমে মিছিল-মানববন্ধন ও কুশপুত্তলিকা দাহের মাধ্যমে আইসিসি’র সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানায় বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা

তাসকিনসানির নিষেধাজ্ঞা নিয়ে সেসময় দেশজুড়ে আইসিসি’র ব্যাপক সমালোচনা হয়েছিলো। বিসিবি প্রেসিডেন্ট সংবাদমাধ্যমে বলেন, “তাসকিনসানির নিষেধাজ্ঞা বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য খুবই অবিচারমূলক হয়েছে। তারা দু’জনই গত কয়েকটি সিরিজ ধরে বেশ চমকপ্রদ বোলিং করছে এবং এই অবস্থায় তাদের নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত বাংলদেশ ক্রিকেটের জন্য খুবই ন্যায়বিরুদ্ধ হয়েছে। শুধু দেশেই নয়, বিশ্বব্যাপী ক্রিকেটানুরাগী এবং বিশেষজ্ঞদের কাছেও এই নিষেধাজ্ঞা ছিলো এক পরম আশ্চর্যের বিষয়। এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার এবং ফেসবুকে অনেক ক্রিকেটপ্রেমীকেই প্রকাশ্যে প্রশ্ন তুলতে দেখা যায়তাসকিনের অ্যাকশন অবৈধ হলে ভারতের জাসপ্রিত বুমরাহর অ্যাকশন বৈধ হয় কিভাবে!

তাসকিন-সানি নিয়ন আলোয় neon aloy

তাসকিনের বিপরীতে বুমরাহ’র বোলিং অ্যাকশনের তুলনা করে ক্রিকেটপ্রেমীদের সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করা ছবি

নিষেধাজ্ঞা পাবার পর থেকেই তাসকিনসানি দু’জনই নিজেদের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে কাজ করেন এবং গত আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহে তারা বিসিবির পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। এরপরই তারা চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে অস্ট্রেলিয়ায় চলে যান মূল পরীক্ষা দেয়ার জন্য।

পরীক্ষা শেষ করে বোলার তাসকিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি পোস্ট করে জানান, “মাত্রই পরীক্ষা শেষ করলাম, এখন ফলাফলের অপেক্ষায়। সবাই দোয়া করবেন। এসব ছবিতে তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানিকে বেশ নির্ভার দেখে আশা করা যায় তাদের পরীক্ষা বেশ সন্তোষজনকই হয়েছিলো।

 

এখন এরকম আশা করাই যায় যে, নিষেধাজ্ঞা কেটে যাওয়ায় আসন্ন ইংল্যান্ড সিরিজে বাংলাদেশ দলের বোলিং অ্যাটাকের দুই ভবিষ্যৎ কর্ণধারকে একসাথে দেখা যাবে লাল-সবুজ জার্সী গায়ে, আর সেই সাথে তারা বাঘের গর্জনে জানিয়ে দেবেন বিশ্বকে-

সাবাস বাংলাদেশ, পৃথিবী অবাক তাকিয়ে রয়
জ্বলেপুড়ে মরে ছাড়খার তবুও মাথা নোয়াবার নয়!

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top