ক্ষমতা

ঘটনে-অঘটনে হিলারি ক্লিনটন

হিলারি ক্লিনটন

দীর্ঘদিন পাবলিক সার্ভিসে থাকার পর হিলারি ক্লিনটন আবার ২০১৬-তে অনুষ্ঠিতব্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট দলীয় প্রার্থী হিসেবে অংশ নিতে যাচ্ছেন। তার দীর্ঘদিনের ক্যারিয়ারে, বিশেষ করে বিগত দুই দশক ধরে হিলারি ক্লিনটন সব সময় মিডিয়ার আলোচনায় ছিলেন। কখনও জীবনসঙ্গী সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনের হরেক কেলেঙ্কারি, আবার কখনও উইকিলিক্স এর মেইল ফাঁস মিডিয়ায় হিলারি ক্লিনটনকে সবসময়ই রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প এর মত হাই টিআরপি ব্যক্তিত্ব করে রেখেছে।

হিলারি ক্লিনটন

সেক্রেটারি অফ স্টেট থাকাকালীন সময়ে হিলারি ক্লিনটন

আসন্ন মার্কিন নির্বাচন উপলক্ষ্যে হিলারির ঘটনাবহুল জীবনের কিছু অধ্যায় নিয়ে এই বিশেষ ফিচার।

হিলারি রডহাম ক্লিনটন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেক্রেটারি অফ স্টেট থাকার সময় মোট ১২২ বার বিদেশ ভ্রমন করেন, যা যেকোনো মার্কিন স্টেট সেক্রেটারির জন্য রেকর্ড। এছাড়া হিলারি ১৯৯৬ সাল থেকে এখন পর্যন্ত কখনোই গাড়ি চালান নি। যদিও সিক্রেট সার্ভিস থেকে তাকে অনেকবার গাড়ি চালানোর ক্লিয়ারেন্স দেয়া হয়েছে, তবুও তিনি গাড়ি চালাতে অনীহা প্রকাশ করেন, যে বিষয়টি তৎকালীন অনেক সিক্রেট সার্ভিস কর্মকর্তা পছন্দ করেন নি।

হিলারি ক্লিনটন

তিনি একবার সিনেটর জন ম্যাককেইনকে ভদকা পান করার প্রতিযোগিতায় হারিয়ে দিয়েছিলেন! ২০০৪ সালে এস্তোনিয়াতে ভ্রমণকালীন সময় দুই সিনেটর একটি রেস্টুরেন্টে বসেন এবং ভদকা অর্ডার করেন। হিলারি ক্লিনটন সেদিন জন ম্যাককেইনের সাথে চার-পেগ ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছিলেন।সিনেটর ম্যাককেইন পরবর্তীতে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন- “ভদ্রমহিলা মদ দেখলে নিজেকে একেবারে ধরে রাখতে পারেন না, যদিও তার সঙ্গে পান করা যথেষ্ঠ চ্যালেঞ্জিং”।

হিলারি ক্লিনটন

গ্র্যামি-বিজয়ী হিলারি ক্লিনটন

হিলারি ক্লিনটন একজন গ্র্যামি খেতাব বিজয়ী। ১৯৯৪ সালে তার লেখা একটি বইয়ের কথ্য সংস্করণের জন্য তাকে গ্র্যামি এওয়ার্ড দেয়া হয়। হিলারির নামকরা বই গুলোর মধ্যে অন্যতম ছিল Dear Socks, Dear Buddy: Kids’ Letters to the First Pets (১৯৯৮), An Invitation to the White House: At Home with History (২০০০), সেইসাথে তার আত্মজীবনী Living History (২০০৩) – এই বইগুলো থেকে তিনি প্রায় ৮ মিলিয়ন ডলার উপার্জন করেন।

১৯৯১ সালে বিল ক্লিনটন যখন আরকানসাস এর গভর্নর, হিলারি তখন একটি প্রাইভেট প্রতিষ্ঠানের আইন পরামর্শক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সেই সময় হিলারি তার বেতন থেকে এক দফায় প্রায় ১৮৮,০০০ ডলার উত্তোলন করেছিলেন যা ছিল সেই সময় তার গভর্নর স্বামীর বেতনের চেয়ে অনেক বেশি। হিলারি ক্লিনটন ১৯৮৮ এবং ১৯৯১ এই দুই সালে ন্যাশনাল ল জার্নাল কর্তৃক আমেরিকার সবচেয়ে ক্ষমতাধর ১০০ আইন পরামর্শকের একজন ছিলেন।

রাজনীতি হিলারি ক্লিনটনের প্রথম লক্ষ্য ছিল না। তিনি তরুন অবস্থায় একজন বেসবল খেলোয়াড় অথবা সাংবাদিক হতে চেয়েছিলেন। ১৯৬০ সালে তিনি নাসায় নভোচারী হওয়ার জন্য আবেদন করেন। কিন্তু নাসা কোন নারীকে নভোচারী হিসেবে নিয়োগ না দেওয়ায় হিলারি তখন নাসায় যোগদান করতে পারেন নি। যদিও এরপর ১৯৭৫ সালে তিনি আমেরিকার মেরিন বাহিনীতে যোগ দেয়ার চেষ্টা করেন, কিন্তু আবারো মেয়ে হওয়ার দরুন এবং বয়স বেশী হওয়ায় তিনি মেরিনে যোগ দিতে ব্যর্থ হন।

হিলারি ক্লিনটনই প্রথম ফার্স্ট লেডি, যিনি একজন মার্কিন সিনেটর ছিলেন। তিনি ২০০০ সালে নিউ ইয়র্ক এর প্রথম মহিলা সিনেটর নির্বাচিত হয়েছিলেন যা তাকে পরবর্তীতে আমেরিকার প্রথম নারী রাষ্ট্রপতি হওয়ার স্বপ্নে ভিত্তি যোগায়। যদিও হিলারি ক্লিনটন সিনেটর হয়েছিলেন তার স্বামী বিল ক্লিনটন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি থাকা অবস্থায়। সেই সময় হিলারি WhiteWater, Filegate কেলেঙ্কারি র মত ঘটনার সাথে যুক্ত হন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠে যে তিনি হোয়াইট হাউসের ভ্রমন বিষয়ক কিছু কর্মকর্তাকে চাকুরি থেকে সরিয়ে দেন এবং নিজের পছন্দের ব্যক্তিদের নিয়োগ দেন। তদুপরি বিল ও হিলারি-ই আমেরিকার ইতিহাসে প্রথম রাষ্ট্রপতি ও ফার্স্ট লেডি, যারা হোয়াইট হাউজে থাকাকালীন সময়ে এফবিআই এর কাছে  ফিঙ্গারপ্রিন্ট প্রদান করেছিলেন।

হিলারি ক্লিনটন
হিলারি রডহাম ক্লিনটন ১৯৭৫ সালের অক্টোবর মাসে বিল ক্লিনটনকে বিয়ের পর ঘোষণা দেন যে তিনি তার নামের মধ্যাংশ কখনই বাদ দিবেন না, কারন এই রডহাম অংশটিই তাকে আত্মপরিচয় ধরে রাখতে এবং তার স্বামীর কাজ থেকে নিজেকে পৃথক করতে সাহায্য করে। এই বিষয়টি  হিলারি এবং ক্লিনটন উভয়ের পরিবারের কেউই পছন্দ করেননি। কিন্তু ১৯৮২ সালে বিল ক্লিনটন যখন দ্বিতীয় মেয়াদে আরকানসাসের গভর্নর হন, তখন হিলারি তার ভোল পাল্টান। আরকানসাসের ভোটারদের কাছে জনপ্রিয় হওয়ার জন্য তিনি নিজের নামের রডহাম অংশটি বাদ দেন। এমনকি মাঝে মধ্যে মিসেস বিল ক্লিনটন নাম ব্যবহার শুরু করেন। মূলত সেই সময় থেকেই সাধারনের কাছে তিনি হিলারি ক্লিনটন নামে পরিচিত।

হিলারি যদিও ২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনে ডেমোক্রেট প্রার্থী হিসেবে অংশ নিবেন কিন্তু রাজনৈতিক জীবনের শুরু থেকে তিনি ডেমোক্রেট ছিলেন না। বায়োগ্রাফি.কম এর মতে, হিলারি প্রথমদিকে একজন রিপাবলিকান সমর্থক ছিলেন এমনকি ১৯৬৪ সালে রিপাবলিকান প্রার্থী বেরি গোল্ডওয়াটার এর নির্বাচনী প্রচারনায় অংশ নেন। তবে ১৯৬৮ সালে তিনি দল পরিবর্তন করেন এবং রিপাবলিকান থেকে পুরদস্তুর ডেমোক্রেট হয়ে যান। ডেমোক্রেট হওয়ার পর তিনি ১৯৭২ সালে জর্জ ম্যাকগ্রভান ও ১৯৭৬ সালে জিমি কার্টার এর নির্বাচনী প্রচারনায় অংশ নেন।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

আর দশটি নিউজপোর্টালের মত যাচ্ছেতাই জগাখিচুড়ি না, "নিয়ন আলোয়" আমাদের সবার লেখা নিয়ে আমাদের জন্যই প্রকাশিত হওয়া বাংলা ভাষায় প্রথম পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন।

আজকের আলোচিত

Copyright © 2016 Neon Aloy Magazine

To Top