টেক

জার্মানির মোট জ্বালানির ৯৫ ভাগই “নবায়নযোগ্য জ্বালানি”

জার্মানি নবায়নযোগ্য জ্বালানিকে জ্বালানির “নতুন মান” তৈরীর একটি নজির স্থাপন করছে। নিউক্লিয়ার জ্বালানি যুগের সমাপ্তি ঘটাতে জার্মানী সর্বদাই তাদের চেস্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এই মুভমেন্ট এর সুত্র ধরেই জার্মানি নবায়নযোগ্য জ্বালানির খরচ কমাতে এবং উৎপাদন বাড়াতে সক্ষম হয়েছিল। গত রবিবার দেশটি তাদের জ্বালানি চাহিদার 95% নবায়নযোগ্য জ্বালানি  শক্তির উৎস থেকে গ্রহণ করতে সক্ষম হয়।

জার্মানি 95% নবায়নযোগ্য জ্বালানি উপর চলছে, যা তাদের 70-80% এর আগের রেকর্ড ভেঙে ফেলে।

জার্মানি উৎপাদনে বিশ্বের একটি প্রথম সারির দেশ। এখানে প্রচুর শিল্প কারখানা রয়েছে যার এনার্জি চাহিদা মেটাতে জার্মানির দরকার পরে প্রায় 57.8GW বিদ্যুৎ।  এই শক্তি উৎপাদনে মুলত যৌথ ভাবে সৌর ও বায়ু শক্তি ব্যবহার করা হয়।  উল্লেখ্য যে, যেমন আবহাওয়া যে সময় আদর্শ ছিল, দেশের 90% শক্তি চাহিদা নবায়নযোগ্য জ্বালানি দিয়ে পুরনে সক্ষম ছিল। এখানে “আদর্শ” শব্দটি  হল মুল চাবিকাঠি।

 

জার্মানির উৎপাদিত মোট শক্তির 26,11 গিগা ওয়াট আসে সৌরশক্তি হতে, উইন্ডমিল হতে আসে  20.83 গিগা ওয়াট, বায়োগ্যাস এবং জল বিদ্যুৎ থেকে আসে যথাক্রমে 2.75 গিগা ওয়াট ও 5.14 গিগা ওয়াট। জার্মান ভাষায় এনার্জিওইয়েন্ড (Energiewende) নামের এই মুভমেন্টটি শুরু করেছিল জার্মানীর রক্ষনশীল সমাজ, যেখানে তারা চেয়েছিল  এবং এ আন্দোলনে এখন পর্যন্ত তাদের সফল বলা চলে! নিউক্লিয়ার এনার্জি না ব্যাবহার করে নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যাবহারে দৃষ্টান্ত স্থাপন করাই ছিল তাদের লখ্য।

সুত্রঃ ইন্টারনেট।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top